• শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

চুয়াডাঙ্গায় ভুট্টার বাম্পার ফলন, ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেন না কৃষক

  চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ২০ এপ্রিল ২০১৯, ১২:৩৪

ভুট্টা
ভুট্টা ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেন না কৃষক (ছবি : দৈনিক অধিকার)

গতবারের মতো এ বছরও ভুট্টা চাষে আগ্রহ দেখিয়েছে জেলার অধিকাংশ কৃষক। প্রথম অবস্থায় ফসল বিধ্বংসী পোকা ‘ফল আর্মিওয়ার্ম’ এর আক্রমণ চাষিদের ভাবিয়ে তুলে। প্রতিবছরই বাংলাদেশের শীর্ষ স্থানে থাকে চুয়াডাঙ্গা। এই অঞ্চলের মাটি ও আবহাওয়া ভাল হওয়ায় ভূট্টার আবাদ বেশি হয় বলে কৃষকেরা ভূট্টা চাষে বেশি আগ্রহী। বিগত বছরগুলোতে ভূট্টার দাম ভালো পাওয়ায় এ বছরও জেলার অধিকাংশ কৃষক ভুট্টা চাষ করেছে। তবে এবার ভুট্টার ভালো আবাদ হলেও ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় হতাশ চাষিরা। অনেক কৃষক সমিতি থেকে লোন তুলে ভূট্টা চাষ করে ভাল ফলন পেলেও দেখছে না লাভের মুখ। কৃষকেরা বলছে লাভ তো দূরের কথা এখন লোন আর সুদের টাকা তারা পরিশোধ করতে দিশেহারা।

গত বছর এ সময়ে ৫৫০ থেকে ৭০০ টাকা মণ দরে ভূট্টা বিক্রি হলেও চলতি মৌসুমে শুরুতে চুয়াডাঙ্গা জেলায় কাঁচা ভূট্টার দাম কমেছে মণ প্রতি ৩০০ টাকা। আর এতে করে নিম্ন আয়ের কৃষকেরা বলছে এ রকম দাম যদি আরও কদিন থাকে তাহলে পৈত্রিক ভিটা বিক্রি করে লোনের টাকা পরিশোধ করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই তাদের।

চুয়াডাঙ্গা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বলছে গত ১০ বছরে চুয়াডাঙ্গায় ভূট্টার আবাদে লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করছে। এ বছর চুয়াডাঙ্গা সদরে ১৩ হাজার ৯শ, আলমডাঙ্গা উপজেলায় ৯ হাজার ২৮৮ দামুড়হুদা উপজেলায় ১২ হাজার ৫শ ও জীবননগর উপজেলায় ৬ হাজার ১১০ হেক্টর জমিতে এবার ভুট্টার আবাদ হয়েছে ।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সাতগাড়ি গ্রামের ভুট্টা চাষি অনন্ত দাস জানান, ভুট্টার ফলন ওঠার প্রথম পর্যায়ে দাম কিছুটা ভালো থাকলেও এখন তা আর নেই। বর্তমান বাজারে কাঁচা ভুট্টা স্বল্পমূল্যে বিক্রি করতে হচ্ছে। এই দামে ভূট্টা বিক্রি করলে তাদের লাভ নয় বরং লোকসান গুণতে হবে অনেক টাকা। এখনই দাম ভালো না হলে ঋণের টাকা পরিশোধ করা কষ্ট হয়ে যাবে।

চুয়াডাঙ্গার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক নাইম আল সাকিব জানান, এ বছর চুয়াডাঙ্গা জেলায় ভুট্টা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিলো প্রায় ৪৩ হাজার হেক্টর জমিতে। সে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ৪৬ হাজার হেক্টর জমিতে ভুট্টার চাষ হয়েছে।। ভূট্টার দাম কমে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন কৃষকের হাতে বাজারের নিয়ন্ত্রণ থাকে না। উৎপাদিত ফসল কৃষক ঘরে রাখতেও পারে না। অভাবের সংসারে টাকার প্রয়োজনে তাদের উৎপাদিত ফসল বিক্রি করে দিতে হয়। এজন্যই ভূট্টার দাম কমে গেছে। যেসব ব্যবসায়ী ভূট্টা কিনে রাখছেন তারা ঠিকই লাভবান হবেন।

আরও পড়ুন- রাজবাড়ীতে বাড়ছে ভুট্টার আবাদ

ওডি/এসজেএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড