• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

নিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের দুই শর্ত||এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী  ||উদ্বেগ থাকলেও ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ||ছাত্রলীগের চাঁদাবাজি ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ : রিজভী ||কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের অভিযোগে সীমান্তে‌ হাই অ্যালার্ট||ভারতের পর এবার বিশ্বকে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি পাকিস্তানের||সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক||মেক্সিকোয় কুয়া থেকে ৪৪ মরদেহ উদ্ধার করল বিজ্ঞানীরা||অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : কাদের    ||সৌদির তেল স্থাপনাতে হামলায় ইরানকে দায়ী করল যুক্তরাষ্ট্র

হিলি ইমিগ্রেশনে বেড়েছে যাত্রী পারাপার, বাড়েনি সেবার মান 

  অর্থ-বাণিজ্য ডেস্ক

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:৩১
ভ্রমণ
(ছবি : সংগৃহীত)

হিলি ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে যাত্রী পারাপার বেড়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে এমনটাই লক্ষ্য করা যাচ্ছে। চলতি বছরের গেল দুই মাসে ৩৫ হাজার যাত্রী ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করেছেন। তবে সেবার মান এখনও সেইভাবে বাড়েনি। ইমিগ্রেশন ব্যবস্থাপনা নিয়ে যাত্রীরা সন্তুষ্ট নন।

অবশ্য হিলি ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের ভোগান্তির কথা মাখায় রেখে দ্রুত এই সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিয়েছে।

ভারতের কলকাতা, দার্জিলিং, মাদ্রাজ ও চেন্নাই সহ বিভিন্ন রাজ্যের সঙ্গে হিলির সড়ক ও রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো হওয়ায় ভারত যাওয়ার জন্য এ রুট বেছে নিচ্ছেন বাংলাদেশি যাত্রীরা। হিলি ইমিগ্রেশন দিয়ে যাত্রী পারাপার ও সরকারের রাজস্ব আয় বাড়লেও ইমিগ্রেশনে সেবার মান না বাড়ায় ভোগান্তিতে পড়তে হয় যাত্রীদের। একটি মাত্র রাস্তা দিয়ে সারাদিন আমদানি রফতানি কার্যক্রম চলে, রয়েছে রেল ক্রসিং। যাত্রী পারাপারের এটি একমাত্র রুট হওয়ায় ঝুঁকি নিয়ে পার হতে হয় যাত্রীদের। সেখানে বসার জায়গা, টয়লেট ও ভালো খাবারের ক্যান্টিনের পর্যাপ্ত অভাব রয়েছে।

একজন যাত্রী অভিযোগ করে বলেন, এ ইমিগ্রেশন দিয়ে আমদানি-রপ্তানি হয় এবং সঙ্গে যাত্রীরাও যাওয়ায় দুভোর্গে পড়েন বহু যাত্রীরা। রাস্তাটা যদি আলাদা করতো তাহলে আমাদের সুবিধা হতো। শুধু তাই নয় এখানে পর্যাপ্ত বসার জায়গা বা টয়লেটও নেই।

সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের এএসআই মো. মোতালেব জানান, এখানে কিছু টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে ও বসার স্থান করা হয়েছে। সঙ্গে তিনি এটাও যোগ করেন তবে সেটা পর্যাপ্ত নয়, বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।। 

হিলি কাস্টমস জানিয়েছে যাত্রী পারাপার বাড়ায় এ ইমিগ্রেশনে একটি স্ক্যানার মেশিন ও আলাদা রাস্তা করা হবে।

হিলি কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা আবু বকর সিদ্দিক বলেন, এখানে স্ক্যানার মেশিন এবং আলাদা রাস্তা করার বিষয়ে কথাবার্তা চলছে।  

তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে শুধু ভ্রমণখাত থেকে সরকারের রাজস্ব এসেছে ৮৪ লাখ টাকা। তাই এ কথা বলাই যায় যে, যদি সেবার মান বাড়ানো যায়নি। তাহলে হিলি ইমিগ্রেশন থেকে সরকারের মোটা অঙ্কের রাজস্ব আদায় করা সম্ভব হবে।

ওডি/টিএএফ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড