• রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

সঞ্চয়ে আগ্রহ হারাচ্ছে সাধারণ মানুষ

সঞ্চয়
সঞ্চয়ে অনাগ্রহ প্রকাশ (ছবি: প্রতীকী)

তানভীর খান, দেশের নামকরা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। বেতনও মোটামুটি ভালো হলেও পরিবার চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। পরিবারের খরচ মিটিয়ে আগে ব্যাংকে কিছু রাখতে পারলেও এখন তা সম্ভব হচ্ছে না। বরং বাড়তি খরচ মেটাতে ভাঙতে হচ্ছে সঞ্চয়। 

শুধু তানভীরই নয়, তার মত অসংখ্য মানুষ জীবনযাত্রার ব্যয় বাড়ার কারণে তাদের গচ্ছিত সঞ্চয় ভাঙতে বাধ্য হচ্ছে। দিনশেষে তারা কিছুই জমাতে পারছে না। সাধারণ মানুষ দিন দিন সঞ্চয়ে উৎসাহ হারাচ্ছে। 

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশের সরকারি ব্যাংকগুলোর আমানত গড়ে দেড় হাজার কোটি টাকা কমেছে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, নিত্যপণ্যের অস্বাভাবিক দাম এবং ব্যাংকে আমানতের সুদ কম হওয়ায় এমনটি হচ্ছে। 

রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক ২০১৮ সালে এক লাখ ৬ হাজার ৪২২ কোটি টাকার আমানত নিয়ে শুরু হয়েছিল। সেপ্টেম্বর মাসে যা এক লাখ পাঁচ হাজার কোটি টাকায় কমে দাঁড়ায়। অর্থাৎ আট মাসের ব্যবধানে ব্যাংকটি এক হাজার ৪২২ কোটি টাকা আমানত হারিয়েছে। অন্যদিকে, জনতা ব্যাংক হারিয়েছে ১ হাজার ৯২২ কোটি টাকা। পাশাপাশি রূপালি ও অগ্রণী ব্যাংকের আমানতও হ্রাস পেয়েছে। 

এ বিষয়ে অর্থনীতিবিদ জাহিদ হোসেন বলেন, এভাবে সঞ্চয় কমতে থাকলে, মানুষের সামাজিক সুরক্ষা এক সময় হুমকির মুখে পড়বে। কর্মসংস্থান, মজুরি বাড়ালে সঞ্চয় বাড়ানো সম্ভব।একই সঙ্গে প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় এবং সরকারি গুদামে পণ্যের মজুদ বাড়ানোর পরামর্শ দেন তিনি।
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড