• সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা

৩০ দিনে ৩৭ অভিযোগ

বাণিজ্য মেলা
ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা (ছবি :তারিন ফাহিমা)

এবারের ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় তুলনামূলকভাবে ক্রেতাদের অভিযোগ বেশ খানিকটা কম।  কেননা মেলায় রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) কর্মকর্তাদের সামনেই প্রতিনিয়ত বসছেন হকার, ভিক্ষুক। ফলে তাদের নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছে মেলা কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে ভোক্তা পর্যায়ে অভিযোগও ছিল কম। 

ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরে মেলার ৩০ দিনে (শুক্রবার, ৮ ফেব্রুয়ারি) অভিযোগ ছিল মাত্র ৩৭টি। আর জরিমানা করা হয় ৭টি প্রতিষ্ঠানকে। আর সমঝোতা ও প্রমাণ না থাকায় বাকিগুলো শুধু নথিবদ্ধ করা হয়েছে। 

অন্যদিকে ভোক্তা অধিদপ্তরের নিজ উদ্যোগে ৩০ দিনে ৪১টি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।  ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর এমনটাই জানিয়েছে। 

বাণিজ্যমেলায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অস্থায়ী কার্যালয় থেকে জানা যায়, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে ৩০তম দিন পর্যন্ত মাত্র ৩৭টি অভিযোগ জমা পড়েছে। 

সেখানকার কর্মকর্তারা বলছেন, এবারের মেলায় তুলনামূলক কম অভিযোগ এসেছে। ভোক্তারা ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন না বলেই তাদের অভিযোগের সংখ্যা কম। অথবা তারা এখনও সচেতন না হওয়ায় কোনো অভিযোগ করছেন না।  

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মোট অভিযোগের সংখ্যা ৩৭টি। এর মধ্যে ৭টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে। আর ৫টি অভিযোগের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। অন্যদিকে বাকি অভিযোগ উভয়পক্ষের মধ্যে সমঝোতা করে দেওয়া হয়েছে।

রংপুর মেটালকে মূল্য বেশি রাখায় ২০ হাজার টাকা, ইটালিয়ানো পণ্য না পাওয়ায় ইটালিয়ানো প্যাভিলিয়নকে ৩০ হাজার টাকা, ক্লাসিক্যাল হোমটেক্সকে ক্যাশ ব্যাক না দেওয়ায় ১০ হাজার টাকা, শাহজাদা স্টোরকে মূল্য বেশি রাখায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অন্যদিকে, ২৫ জানুয়ারি হাজীর বিরিয়ানিকে খাবারের মূল্য বেশি রাখায় ১০ হাজার টাকা, নান্না বিরিয়ানি ও কাবাবকে মূল্য তালিকা না থাকায় ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একইসাথে কানিজ এন্টারপ্রাইজকে একইদিন ১টি পণ্য কিনে অন্যটি ফ্রি না দেওয়ায় ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।     

এছাড়া বাকি যেসব প্রতিষ্ঠানকে অভিযুক্ত করা হয়েছে তাদের নাম ও জরিমানার পরিমাণ হলো- নাবিস্কো বিস্কুট এন্ড ব্রেড ফ্যাক্টরি ২৫ হাজার টাকা, মিয়াকো ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল ২৫ হাজার টাকা, রয়েলেক্স মেটাল ইন্ডা. লিমিটেড ২৫ হাজার টাকা, কিয়াম মেটাল ২৫ হাজার টাকা, এসকেবি স্টেইনলেস স্টিল ২০ হাজার টাকা, দিল্লী অ্যালুমিনিয়াম ২০ হাজার টাকা, হাসেম ফুড ২০ হাজার টাকা, বেঙ্গল মেলামাইন ২০ হাজার টাকা, নিউস্টাইল মার্কেটিং ১০ হাজার টাকা, এফজি ১০ হাজার টাকা, শাহজাহান স্টোর ১০ হাজার টাকা, বেবি হ্যান্ডিক্রাফট ১০ হাজার টাকা, দি পার্ল হাউস ১০ হাজার টাকা, এসএ ইন্টারন্যাশনাল  ১০ হাজার টাকা, মামুন ট্রেডার্স ১০ হাজার টাকা, কামাল এন্টারপ্রাইজ ১০ হাজার টাকা,নাছির আবেদীন ট্রেডার্স – ১০ হাজার টাকা, আশরাফ এন্ড ব্রাদার্স- ১০ হাজার টাকা, সিমুরা ১০ হাজার টাকা, নিদা ট্রেডিং ১০ হাজার টাকা, খাজা হোটেল এন্ড হাজীর বিরিয়ানি ১০ হাজার টাকা, গৃহিণী বিরিয়ানি এন্ড কাবাব ২০ হাজার টাকা, ঢাকা ফাস্ট ফুড এন্ড হাজীর বিরিয়ানি ১০ হাজার টাকা, সিয়াম ফেব্রিক্স ১০ হাজার টাকা এবং তৌফিকা ফুড এন্ড এগ্রো ১০ হাজার টাকা।  

নিজ উদ্যোগে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর মোট ৩০ দিনে ৪১টি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। সে সময় তারা মোট ২ লাখ ৯৯ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

ইপিবির তথ্যানুযায়ী, মাসব্যাপী এ মেলার পর্দা নামবে ৯ ফেব্রুয়ারি শনিবার।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড