ব্যাংকিং খাতের স্থিতিশীলতা ফেরাতে ব্যাংক মালিকদের যৌথ উদ্যোগ

প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:৫৮

 অধিকার ডেস্ক   

অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য অনুযায়ী খেলা‌পি ঋণ কমা‌নো, তারল্য সংকট, ব্যাংক খা‌তের সংস্কার এবং বর্তমান সমস্যা নি‌র্ণয় ও উ‌ত্তর‌ণের উপায় খুঁজ‌তে এক যৌথ সভা করেছে বেসরকারি ব্যাংক মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) ও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি)। শ‌নিবার (১২ জানুয়া‌রি) ‌তারা এসকল বিষয়ে যৌথ সভা ক‌রে‌। 

বিএবি’র সভাপ‌তি ও এক্সিম ব্যাংকের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার বলেন, অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে আমরা দেখা করেতে গিয়ে‌ছিলাম। তি‌নি তখন ব্যাংক খাত সংস্কারসহ বেশকিছু শর্ত ও পরামর্শ দেন। তাই ব্যাংক খাতের স্থিতিশীলতা ফেরানোর জন্য এবিবি ও বিএবির যৌথ সভা হ‌য়ে‌ছে। 
 
ব্যাংক খা‌তের বড় সমস্যা খেলাপি ঋণ কমা‌তে বি‌ভিন্ন উপায় খোঁজা হ‌চ্ছে উল্লেখ করে বিএবি’র সভাপ‌তি ব‌লেন, আমরা খেলাপি ঋণকে কয়েকটি স্তরে বিন্যাস করতে চাচ্ছি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ইচ্ছাকৃত ও অনিচ্ছাকৃত খেলাপি চিহ্নিত করা। কোন প্র‌ক্রিয়ায় এটি আলাদাভাবে নির্ণয় করা যায় সেই কৌশল সম্প‌র্কে এই সভায় আলোচনা হয়ে‌ছে।    

পাশাপাশি ব্যাংকিং খাতে বর্তমানে যেসব সমস্যা আছে, তা চিহ্নিত করা ও সমাধানের পথ নি‌র্ণয়  সম্পর্কে আলোচনা করা হ‌য়ে‌ছে। আগামী সপ্তাহের শেষ দিকে এসব বিষ‌য়ে আরেকটি ফলোআপ মিটিং হবে। অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে এরপর সমস্যা ও সমাধা‌নের বি‌ভিন্ন বিষয় নি‌য়ে আলোচনায় বসবেন ব‌লে জানান এই নেতা।  

নজরুল ইসলাম মজুমদার আরও বলেন, সরকার চা‌চ্ছে ব্যাংকিং খাতে সংস্কার হোক। কারণ এই খাত যত ভালো থাকবে অর্থনীতি তত উন্নত হবে। 

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) বেসরকারি ব্যাংক মালিক ও প্রধান নির্বাহীদের সঙ্গে বৈঠক শেষে নতুন অর্থমন্ত্রী বলেছি‌লেন, দেশের ব্যাংক খাতে খেলাপি ঋণ আজ থেকে ‘আর এক  টাকাও’ বাড়বে না।

প্রসঙ্গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে ব্যাংক খাতের করহার ৪০ শতাংশ থেকে কমিয়ে সাড়ে ৩৭ করা হয়। ঋণের সুদহার কমানোর শর্তেই ব্যাংক করহার কমানোর কথা বললেও সেটির বাস্তবায়ন হয়নি।