• বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সরকার ও ই-ক্যাবের কর্মতৎপরতায় পেঁয়াজের বাজারে স্বস্তি  

  অর্থ-বাণিজ্য ডেস্ক

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৫৩
সরকার ও ই-ক্যাবের কর্মতৎপরতায় পেঁয়াজের বাজারে স্বস্তি  
সরকার ও ই-ক্যাবের কর্মতৎপরতায় পেঁয়াজের বাজারে স্বস্তি  

গত বছরের এ সময়ের দিকে পেঁয়াজের দাম হুহু করে বাড়তে থাকে। পেঁয়াজের দাম এতটাই উদ্ধমুখি হয়ে যায় যে, মধ্যবিত্ত এবং নিম্নবিত্তের ক্রয়সীমার বাইরে চলে যায় পেঁয়াজের দাম। তেমনি বর্তমানে পেঁয়াজের দাম যখন উদ্ধমুখি হওয়া শুরু হয়েছে, সরকার পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রনে বিভিন্ন উদ্যাগ গ্রহণ করে।

এমতাবস্তায় ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ বা ইক্যাব বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও টিসিবিকে অনলাইন প্লাটফ্রমে পেঁয়াজ বিক্রির আহ্বান জানায়। কারন মধ্যবিত্ত পরিবারসহ অনেকেই ট্রাকসেলের পেঁয়াজ কিনতে পারেন না। সেক্ষেত্রে ই-কমার্সের মাধ্যমে সাশ্রয়ী দামের এই পেঁয়াজ তাদের বাসায় পৌঁছে যাবে। ইক্যাবের আহবানে সাড়া দেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও টিসিবি।

এরই ধারাবাহিকতায় রোববার (১৬ সেপ্টেম্বর) অনলাইনে সাশ্রয়ী মূল্যে টিসিবির পেয়াজ বিক্রির এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বাণিজ্য সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীনের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়য়ে অতিরিক্ত সচিব ওবায়দুল আজম, টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ আরিফুল হাসান ও ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) সভাপতি শমী কায়সার। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব এএইচএম সফিকুজ্জামানের সঞ্চালনায় ই-ক্যাবের মহাসচিব মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াহেদ তমালসহ ই-ক্যাবের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইট যাচাই ডটকমের চেয়্যারম্যান ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ এবং বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও অংশ নেন উদ্বোধনী এই অনুষ্ঠানটিতে।

এখন ঘরে বসেই কেনা যাচ্ছে সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি)র পেঁয়াজ। কম মূল্যে আমদানিকৃত পেঁয়াজ বিক্রি করছে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সহযোগিতায় দেশের স্বনামধন্য গ্রোসারি ই-কমার্স শপগুলো।

প্রাথমিকভাবে ৫টি অনলাইন প্রতিষ্ঠানকে টিসিবির অনলাইন ডিলারশিপ দেওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো দেশের জনপ্রিয় ই-কমার্স শপ যাচাই ডটকম।

প্রতিকেজির দাম পড়ছে ৩৬ টাকা। একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ ৫ কেজি পেঁয়াজ কিনতে পারবেন। তবে আপাতত এই সীমা ৩ কেজি নির্ধারণ করা হয়েছে। একবারে সরবরাহ বা ডেলিভারি চার্জ বাবদ ঠিক করা হয়েছে সর্বোচ্চ ৩০ টাকা। তবে একমাত্র যাচাই ডটকমই দিচ্ছে ডেলিভারি চার্জ ছাড়া পেঁয়াজ কেনার সুযোগ।

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, দেশে এখনো ছয় লাখ টন পেঁয়াজ মজুদ আছে। আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। তবুও মিয়ানমার এবং তুরস্ক থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হবে। টিসিবির পাশাপাশি ই-কমার্সের মাধ্যমেও কম দামে আমদানি করা এই পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে।

ই-ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, আমরা ই-ক্যাব থেকে ইতোমধ্যে করোনাকালীন নিয়মিত সেবা দিয়ে মানুষের পাশে আছি। এছাড়া লকডাউন এলাকায় জরুরি পণ্য সরবরাহ, আম মেলার মাধ্যমে অনলাইনে আম বিক্রয় ও ডিজিটাল কুরবানি হাটের মাধ্যমে গরু বিক্রি করে বাসায় মাংস পৌঁছে দিয়ে একদিকে নিজেরা অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি, অন্যদিকে জনগণের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সব সময় আমাদের সঙ্গে ছিল। আমাদের সাম্প্রতিক উদ্যোগগুলোর সফলতাই আমাদেরকে আজ পেঁয়াজের বাজারে নিয়ে এসেছে।

জানা যায়, সরকারের আমদানিকৃত পেঁয়াজের দশ শতাংশ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সরবরাহ করা হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে এই পরিমাণ কম হলেও পরে তা বাড়ানো হবে। আশা করা যায় ১০ হাজার মেট্রিকটন পেঁয়াজ অনলাইন শপ থেকে এই কর্মসূচীর আওতায় বিক্রি করা হবে।

বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ ও মূল্য স্বাভাবিক রাখতে ইক্যাবের আহবানে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও টিসিবির উদ্যাগে অনলাইন প্লাটফ্রমে পেঁয়াজ বিক্রির ফলে বাজারে ইতিবাচক প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বলে লক্ষ্য করা গেছে।

সরকারের কাছ থেকে পেঁয়াজ নিয়ে ই-ক্যাবের সহযোগিতায় যাচাই ডটকমসহ অন্যান্য অনুমোদিত ই-কমার্স কোম্পানিগুলো ইতিমধ্যে পেঁয়াজ সরকার নির্ধারিত দামে অর্থাৎ ৩৬ টাকা করে কেজি দরে বিক্রি শুরু করেছে। ই-ক্যাবের কর্মতৎপরতায় বানিজ্য মন্ত্রণালয় এবং টিসিবির উদ্যাগে অনলাইনে পেঁয়াজ বেচাকেনা জমে উঠেছে। এই উদ্যাগের ফলে বাজারেও পেঁয়াজের দামে লাগাম পড়ানো গিয়েছে, ফলে স্বস্তি ফিরে এসেছে জনগণের মাঝে। প্রতিয়মান হয় যে সরকার ও ই-ক্যাবের কর্মতৎপরতার কারনেই নিম্নবিত্ত এবং মধ্যবিত্তদের মাঝে পেঁয়াজের দাম নিয়ে এই স্বস্তির বাতাস বয়ে এনেছে।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড