• সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মুন্সিগঞ্জে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯৯

  মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি

১৭ মে ২০২০, ২৩:৩৮
করোনা
করোনা

মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মনিরুজ্জামান তালুকদার  ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক এস এম শফিক ও মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের এক চিকিৎসক সহ জেলায় নতুন করে আরও ৩৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩৯৯ জনে।

এর মধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগের ১৬ জন চিকিৎসক ও ২২ জন নার্সসহ ৮৩ আক্রান্ত হয়েছে। মৃতের সংখ্যা ১৩ জন। তবে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৩ জন।

রবিবার (১৭ মে) বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন মুন্সিগঞ্জ সিভিল সার্জন ডা. আবুল কালাম আজাদ।

সিভিল সার্জন জানান, গত ১৪ ও ১৬ মে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব প্রিভেন্টিভ অ্যান্ড সোশ্যাল মেডিসিনে (নিপসম)  পাঠানো নমুনার মধ্যে ২৩৪ জনের ফল এসেছে। সেখানে মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও  স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক, মুন্সিগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের এক চিকিৎসকসহ ৩৪ জনের করোনা পজিটিভ হওয়ার কথা জানানো হয়।

জেলা প্রশাসনের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানান,গত বৃহস্পতিবার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খান মো. নাজমুস সোয়েবের করোনা পজেটিভ আসে। সেদিন সকালে তার সাথে জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকতারা একটি সভায় ছিলেন।

পরে  ১৪ মে জেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তাসহ ২৭ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। এর মধ্যে জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার(৪৫) ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক এস এম শফিকের (৪২) এর করোনা পজেটিভ হওয়ার বিষয়টি রোববার বিকেলে জানানো হয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো.সাইফ উল ইসলাম জানান, জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক দুজনেই সুস্থ ও স্বাভাবিক আছেন। তারা তাদের সরকারি  বাসভবনে আইসোলেশনে আছেন। সেখানে বসেই অফিসের কাজ গুলো করছেন। সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে, মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় ১২ জন, গজারিয়ায় ৬ জন, সিরাজদিখান উপজেলায় ৫ জন, টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় ৫ জন, শ্রীনগর উপজেলায় ৩ এবং লৌহজং উপজেলায় ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

সিভিল সার্জন আবুল কালাম আজাদ বলেন, মুন্সিগঞ্জের সর্বত্রই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিদিন নমুনা পাঠানোর  সংখ্যা বাড়ছে। এতে করে আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে। এর মধ্যে স্বাস্থ্য বিভাগ ও প্রশাসনের লোকজন দ্রুত আক্রান্ত হয়ে পড়ছেন। আক্রান্তদের  অধিকাংশের মধ্যে তেমন লক্ষণ ছিলনা।

আক্রান্তের বিষয় নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও তিনি বলেন, যারা পূর্বে আক্রান্ত হয়েছিলেন তারা দ্রুত সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরতে শুরু করেছেন। বাকিদেরও অবস্থাও ভালো আছে। জেলায় মৃত্যুর হারও কম । মৃত ব্যক্তিদের অধিকাংশ বয়স্ক এবং তাদের অচেতনাতার কারনে চিকিৎসা নেননি।

এজন্য শনাক্ত হওয়ার আগেই তারা মারা যান।
তিনি বলেন, সচেতনতা বৃদ্ধি পেল, সরকারি নির্দেশ এবং স্বাস্থবিধি যথাযথভাবে মেনে চললে সংক্রমিত হবার সংখ্যাও কমে আসবে দ্রুত।

জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, রোববার ১৭২ জনসহ জেলার মোট ২ হাজার ৪৪৭ জনের নমুনা এ পাঠানো হয়। ইতোমধ্যে দুই হাজার ১৪৭  জনের নমুনার ফল পাওয়া গেছে।

এ পর্যন্ত সদর উপজেলায় ১৬৬ জন, টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় ৩৭ জন, সিরাজদিখান উপজেলায় ৬৩জন, শ্রীনগর উপজেলায় ৪৬ জন, লৌহজং উপজেলায় ৪২ জন এবং গজারিয়া উপজেলায় ৪৫ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে।

এর মধ্যে সদরে একজন স্বাস্থকর্মীসহ আটজন, টঙ্গিবাড়ীতে দু’জন ও শ্রীনগর উপজেলায় একজন ও লৌহজং উপজেলায় একজন করোনা সনাক্ত হওয়ার আগেই মারা যান। তবে লৌহজং উপজেলায় আরেকজন করোনা নিয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে।

এদিকে শ্রীনগরে একজন নতুন করে সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় ৫৩ জন করোনামুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এর মধ্যে মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় ২২ জন, সিরাজদিখান উপজেলায় ১৪ জন, শ্রীনগর উপজেলায় ৯ জন, টঙ্গিবাড়ী উপজেলায় ৪ জন, লৌহজং ২ ও গজারিয়া উপজেলায় ২ জন রয়েছেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড