• শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

করোনা নিয়ে চীনের দেওয়া তথ্য কি সঠিক ছিল?

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৯ এপ্রিল ২০২০, ১৫:২৩
করোনা ভাইরাস
করোনা ভাইরাস (ছবি : সংগৃহীত)

করোনা ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনে এই ভাসের  প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর গেল মঙ্গলবারের মত প্রথম নতুন করে কোন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হয়নি। চীন করোনার এই কঠিন পরিস্থিতি কাটিয়ে আশার আলো দেখতে শুরু করেছে।

কিন্তু আন্তজার্তিক গণমাধ্যম বিবিসির রবিন ব্রান্ট বলছেন, এসব পরিসংখ্যান এবং রোগটির প্রাদুর্ভাব নিয়ে চীনের বর্ণনার ব্যাপারে প্রশ্ন রয়েছে।

গত কয়েকমাস ধরে প্রতিদিন চীনের ভাইরাসের বিস্তারের তথ্য-উপাত্ত বিশ্বের কাছে তুলে ধরেন চীনের কর্মকর্তারা। সাতই এপ্রিল দেশটি জানিয়েছে, তাদের মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮১,৭৪০ জন আর মারা গেছেন ৩,৩৩১জন।

তবে চীনের সরকারি এসব পরিসংখ্যান নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। গেল সপ্তাহে ব্রিটিশ সরকারের জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী মাইকেল গভ বিবিসিকে বলেছেন, ভাইরাসের সংক্রমণ, প্রকৃতি বা মাত্রা নিয়ে চীনের বেশ কিছু প্রতিবেদন পরিষ্কার নয়। চীনের মৃত্যু নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও। বেশ কিছুদিন ধরেই মহামারির বিষয়ে সঠিক তথ্য তুলে না ধরার জন্য চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে আসছেন মার্কিন আইন প্রণেতারা।

এর আগেও বিশ্বের কাছে বিশ্বাসযোগ্য সরকারি তথ্য উপস্থাপনের ব্যাপারে চীনের দুর্নাম রয়েছে। এর আগে নিজেদের জিডিপি নিয়ে তথ্য লুকিয়েছে চীন। স্থানীয় পর্যায়ের কিছু কর্মকর্তাকে বানোয়াট জিডিপি তথ্য দেয়ার জন্য প্রকাশ্যে শাস্তিও দেয়া হয়েছে।

উহানের মেয়র অনেকদিন আগেই স্বীকার করেছেন যে জানুয়ারির শুরুর দিকে তারা যথাযথ পদক্ষেপ নিতে পারেন নি যখন প্রায় ১০০ আক্রান্ত নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছে এই ভাইরাসটির ব্যাপারে চীন প্রথম তথ্য জানায় ৩১শে ডিসেম্বর।

প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর প্রথমবারের মতো চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং উহান সফর করেন, সেই সময়ে হুবেই প্রদেশ ছাড়া মূল চীনে নতুন করে আর কোন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়নি।

প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ওই সফরের সময় জাপানের বার্তা সংস্থা কিয়োডো উহান শহরের একজন চিকিৎসকের নাম প্রকাশ না করে একটি সংবাদ প্রকাশ করে। সেখানে ওই চিকিৎসকের বরাতে বলা হয়, কর্মকর্তারা ওই চিকিৎসকদের নির্দেশ দিয়েছেন যেন, নতুন রোগীদের তথ্য সরকারি তথ্যে যোগ করা না হয়। ব্লুমবার্গে প্রকাশিত সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে এক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের কর্মকর্তারা আরও একধাপ এগিয়ে গেছেন। সেখানে বলা হয়েছে চীনের তথ্য-উপাত্ত ইচ্ছাকৃতভাবে অসম্পূর্ণ’ এবং সংখ্যাগুলো বানানো।

দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত কোভিড-১৯ এর সংজ্ঞা বর্ণনা করতে গিয়ে সাত রকমের তথ্য দিয়েছে। হংকং ইউনিভার্সিটির স্কুল অব পাবলিক হেলথের অধ্যাপক বেন কাউলিং বলছেন, প্রথমদিকে পরীক্ষাগুলো করা হয়েছে শুধুমাত্র তাদের, যাদের গুরুতর নিউমোনিয়ার সমস্যা এবং উহানের মাছমাংসের বাজারের সঙ্গে কোনরকম সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে। তিনি এখন ধারণা করেন, পরবর্তীতে যেসব সংজ্ঞা দেয়া হয়েছে, সেগুলো যদি প্রথম থেকে প্রয়োগ করা হতো, তাহলে নিশ্চিত রোগীর সংখ্যা হতো ২ লাখ ৩২ হাজার। চীনে যতো রোগী শনাক্তের কথা বলা হয়েছে, এই সংখ্যা তার তিনগুণ।

ওডি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড