• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

গেলেন পীরের বাড়ি, ফিরলেন লাশ হয়ে

  নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকা।

২৪ মে ২০১৯, ১১:০৫
নিহতের স্বজনদের আহাজারি
নিহতের স্বজনদের আহাজারি (ছবি : সংগৃহীত)

ঢাকার নবাবগঞ্জে জোড়া খুনের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার রাত ১১টার সময় বান্দুরা ইউনিয়নের মহব্বতপুর তালতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- আবুল কালাম (৫৫) ও মো. জাহিদ (৪৪)। নিহত কালাম গালিমপুর ইউনিয়নের নোয়াদ্দা এলাকার অধিবাসী কৃষক তার বাবার নাম কদম আলী। এ দিকে নিহত জাহিদ পেশায় একজন ব্যবসায়ী ছিলেন তার বাবার নাম ফৌজদার খান।

নিহতের স্বজনরা জানায়, বৃহস্পতিবার ইফতারের পর কালাম ও জাহিদ মোটরসাইকেল যোগে পার্শ্ববর্তী দোহার উপজেলার বাস্তা এলাকায় পীরের বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশে রওনা হয়। ফেরার পথে মহব্বতপুর তালতলা সংলগ্ন এলাকায় হঠাৎ তিন দুস্কৃতকারী মহব্বতপুর তালতলা এলাকায় কলাগাছ ফেলে তাদের মোটরসাইকেল থামায়। এ সময় দুস্কৃতকারীরা কালাম ও জাহিদের ওপর এলোপাতাড়ি কোপ দেয়।

কালামের গলায় আঘাত লাগায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। জাহিদ হেলমেট পড়ে থাকায় তার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত লাগে। পরে তাদের নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাহিদকে ঢাকায় পাঠাই। পরে ঢাকায় আসার পথে তার মৃত্যু হয়।

কালামে স্ত্রী যমুনা বেগম ও জাহিদের লিজা আক্তার জানান, আমারা এই হত্যাকাণ্ডের বিচার চায়। কেন তাদের হত্যা করা হলো, তারা কোনো অন্যায় কাজ করত না। কাজ করে সংসার চালাত তাহলে কেন তাদের মরতে হলো।

খুনের বিষয়ে নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল বলেন, বিষয়টি আমরা দেখছি। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অপরাধী যেই হোক পুলিশ তাদের খুঁজে বের করবে।

ওডি/এসএস

অপরাধের সূত্রপাত কিংবা ভোগান্তির কথা জানাতে সরাসরি দৈনিক অধিকারকে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড