• মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

টাকা পরিশোধের পরও বুঝিয়ে দিচ্ছে না জমির রেজিস্ট্রি, সংবাদ সম্মেলনে এনপিআই

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০১ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৬:৫৫
সংবাদ সম্মেলন
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ন্যাশনাল প্রফেশনাল ইনস্টিটিউট (এনপিআই) এর সংবাদ সম্মেলন। ছবি- অধিকার

পূর্বাচলে জমি জালিয়াত চক্রের শিকার হয়েছে দেশের স্বনামধন্য কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল প্রফেশনাল ইনস্টিটিউট (এনপিআই)। আজ (১ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন গুরুতর অভিযোগ করে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, প্রতিষ্ঠানটি নিজস্ব ক্যাম্পাস তৈরির লক্ষ্যে পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পে ২০ নম্বর সেক্টরের ৪০১/বি রোডের রাজউক থেকে বরাদ্দকৃত কয়েকটি প্লট ক্রয়ের জন্য টাকা পরিশোধ করে। চুক্তিমূল্য পরিশোধের পরও প্লটের রেজিষ্ট্রি ও দলিল বুঝে পাচ্ছে না কর্তৃপক্ষ। উল্টো জালিয়াত চক্রের হুমকির শিকার হচ্ছে এনপিআই-এর শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্তৃপক্ষ। ফলে হুমকিতে পড়েছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন।

পূর্বাচল নতুন শহর আবাসিক একালায় জমির প্লট নিয়ে জালিয়াত চক্র দীর্ঘদিন ধরেই সক্রিয়। তারা নানা সময়ে নানা ব্যক্তিকে জমি বিক্রি প্রসঙ্গে ঠকিয়ে আসছে। কখনও জমি দেখিয়ে টাকা আত্মসাৎ আবার কখনও একই জমি একাধিক ব্যক্তির কাছে বায়না করাসহ নানারকমভাবে প্রতারণা করে যাচ্ছে। দুঃসাহসী এই প্রতারক বিভিন্ন সময় উসকানিমূলক কথা বলে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে স্থানীয় কিছু লোকজনকে ব্যবহার করেছে, এমনকি মিথ্যা কথা বলে গণমাধ্যমকেও হাতিয়ার করেছে। এই ভয়ংকর প্রতারক চক্রের মূলহোতা সালাহ উদ্দিন।

সালাহ উদ্দিন পূর্বাচলের সেক্টর-২০, রোড- ৪০১/বি, ০৯, ১১, ১২, ১৪ নং প্লট বিক্রির কথা বলে আব্দুল আজিজ ও মোঃ আব্দুল আলিম এর সাথে চুক্তিপত্র স্বাক্ষর করে। সেই মোতাবেক বিক্রয় বাবদ টাকা গ্রহণ করে বায়না স্ট্যাম্প দলিল মূলে সালাউদ্দিন রাজউকের নকশা অনুমোদনসহ ক্রেতাদের প্লটের দখল বুঝিয়ে দেয়। জমি রেজিস্ট্রি করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে জমি বাবদ গত ১২/৩/২০২২ইং থেকে ২৯/১২/২০২২ইং তারিখে আব্দুল আজিজ ও আব্দুল আলিমের নিকট থেকে ব্যাংক চেক, ব্যাংক ডিপোজিট, পে অর্ডারের মাধ্যমে এবং নগদ মোট ৭৭,৫৮৯,৮২০ (সাত কোটি পঁচাত্তর লাখ ঊননব্বই হাজার আটশত কুড়ি) টাকা গ্রহণ করেছেন। ক্রেতাদ্বয় উক্ত প্লটগুলোতে প্রায় ১৭০০০০০০/ এক কোটি সত্তর লাখ টাকা খরচ করে ভবন নির্মাণ করে। সর্বমোট ৯৪৫৮৯৮২০/= টাকা (ভবন নির্মাণ সহ ) ব্যয় করার পর সালাউদ্দিন জমি রেজিস্ট্রি করে দেওয়ার পরিবর্তে ওই জমি থেকে ক্রেতাদের উৎখাত করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে।

সালাহ উদ্দিন প্রতারণা করার উদ্দেশ্যে জমি বিক্রির চুক্তিপত্রে নিজের শ্বাশুরির ভুল এনআইডি কার্ড নম্বর লিখেছে। শুধু তাই নয় এই প্রতারক জমি বিক্রি বাবদ টাকা গ্রহণের পর আত্মসাৎ করার উদ্দেশ্যে এতদিন বিদেশে আত্বগোপনে ছিল। কিন্তু বর্তমানে দেশে এসে আব্দুল আজিজ ও তার ভাই আব্দুল আলিমকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিচ্ছে যেন আমরা উক্ত জায়গার দখল ছেড়ে দেয়।

এছাড়াও সালাউদ্দিন পূর্বাচল প্রকল্পের তার মালিকানা ১০২ শতাংশ জমি আব্দুল আজিজ ও আব্দুল আলিমের নিকট থেকে নগদ ৩৭০০০০০০/= তিন কোটি সত্তর লাখ টাকা গ্রহণ করে সাবকাবলা দলিল রেজিস্ট্রেশন করে দিয়েছে। কিন্তু এর আগে উক্ত জমি তরিকুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির নিকট ১০ কোটি টাকা মূল্যের রেজিস্ট্রি বায়না নিয়েছে। প্রতারণার শিকার তরিকুল এই বিষয়ে সালাউদ্দিনের নামে প্রতারণার মামলা করেছে।

এর পূর্বে সালাউদ্দিনের ইন্ধনে কিছু গুন্ডা দেশীয় অস্ত্রসহ ওই জমিতে প্রতিষ্ঠিত ন্যাশনাল প্রফেশনাল ইনস্টিটিউট (NPI) এর শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের পরিবহনের কাজে নিয়োজিত বাসগুলোতে ভাংচুর করেছে। নিরাপত্তা কর্মীসহ অফিস স্টাফ নির্যাতন ও প্রাননাশের হুমকি দিচ্ছে সালাহ উদ্দিনের নিয়োজিত সন্ত্রাসীরা। এ বিষয়ে পূর্বে নিরাপত্তা চেয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরিও করেছে ভুক্তভোগীরা।

এনপিআই-এর বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য এবং অপপ্রচার করে প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুন্ন করছে। প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, কর্মকর্তা এবং শিক্ষার্থীদের ভয় ভীতি প্রদর্শন করছে। এতে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত করছে। এই সব কারণে হাজার হাজার শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন আজ অনিশ্চিত।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, সবরকম কৌশলে ব্যর্থ হয়ে এই ভয়ংকর প্রতারক, গণমাধ্যমকে তার নিজের অস্ত্র বানানোর চেষ্টা করছে। সে মসজিদ, মাদ্রাসা এবং এতিমখানার মতো ধর্মীয় স্পর্শকাতর বিষয় তুলে ধরে এই এলাকার সরল মানুষদের ক্ষেপিয়ে তোলার চেষ্টা করছে। এর পেছনে মূলত রয়েছে ক্রয়কারীকে জমি থেকে উচ্ছেদ করার ছক, এমনটাই অভিযোগ ভুক্তভোগীদের।

এনপিআই কর্তৃপক্ষ ও ভুক্তভোগী জমির মালিকদের আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তুলে ধরেন এনপিআই-এর লিগ্যাল অ্যাডভাইজার সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট মো. ইমদাদুল হক কাজী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ভুক্তভোগী জমির মালিক মো. গোলাম হোসেন, মো. মকবুল হোসেন, আলতাফ হোসেন, মো. জয়নাল প্রমুখ।

অপরাধের সূত্রপাত কিংবা ভোগান্তির কথা জানাতে সরাসরি দৈনিক অধিকারকে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড