• শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৩ কার্তিক ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আদালতে জবানবন্দি দিলেন সেই অনিক 

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:১৫
আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ড
আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে জড়িত আসামি অনিক সরকার (ছবি : সংগৃহীত)

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। এই হত্যাকাণ্ডের অন্যতম আলোচিত আসামি অনিক সরকার। 

পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) আবেদনের প্রেক্ষিতে শনিবার (১২ অক্টোবর) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম তার (অনিক সরকার) জবানবন্দি রেকর্ড করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

রিমান্ডে থাকাকালে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হলে তাকে আদালতে নেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মো. ওয়াহিদুজ্জামান।  

গত রবিবার রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ফাহাদের ওপর চলে নির্যাতন। এ সময় ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যায় ছাত্রলীগের- সকাল, মনির, তানভীর, জেমি, তামিম, সাদাত, রাফিদ, তোহা, অনিকসহ ১০-১২ জন নেতাকর্মীর জড়িত থাকার প্রমাণ মিলে সিসি টিভি ফুটেজে। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মারধর করেছে মদ্যপ অনিক বলেও অভিযোগ ওঠে। 

শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর হলে ওইদিন রাতে কী ঘটেছিল এর লোমহর্ষক বর্ণনা দিতে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী বিটু বলেন, অনিক ভাই মাতাল অবস্থায় একটু বেশি মারছে। তখন ওখানে থাকা আমার জন্য সুরক্ষিত না ভেবে তখনই আমি ওখান থেকে ব্যাগ নিয়ে বের হয়ে আসি। 

আরও পড়ুন- অনেক কষ্ট করে টাকা পাঠিয়েছি মাসের পর মাস : অনিকের বাবা

এ নিয়ে তিনজন আবরার হত্যায় দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিলেন। এর আগে বৃহস্পতিবার বুয়েট ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত উপ-সমাজ সেবা সম্পাদক আসামি ইফতি মোশাররফ সকাল ও শুক্রবার মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তদারকির নামে গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। ৫ অক্টোবর ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসের জেরে আবরার ফাহাদকে হত্যা করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন তার সহপাঠীরা। এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ ১৯ জনকে আসামি করে সোমবার (৬ অক্টোবর) রাজধানীর চকবাজার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ওডি/এআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড