• বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

রিফাত হত্যায় মিন্নি জড়িত, বললেন তদন্ত কর্মকর্তারা

মিন্নি
হামলার শিকার রিফাত শরীফ ও সদ্য গ্রেফতার হওয়া মিন্নি। (ছবিসূত্র : এপি নিউজ)

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা ওরফে মিন্নি জড়িত ছিলেন বলে দাবি করছেন মামলার তদন্তকারী দলের কর্মকর্তারা। বুধবার (১৭ জুলাই) তদন্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির গণমাধ্যমকে বলেন, 'রিফাত শরীফ হত্যার ঘটনায় মূল হত্যাকারী নয়ন বন্ড ও রিফাত ফরাজীর সঙ্গে মিন্নি পরিকল্পিতভাবে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করে।'

গত মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) রিফাত হত্যা মামলার প্রথম সাক্ষী ও নিহতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতার করে বরগুনার পুলিশ। পরে বুধবার দুপুরে তাকে আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বরগুনার বিচারিক হাকিম মো. সিরাজুল ইসলাম গাজী এ নির্দেশ দেন।

এর আগে গত ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে প্রকাশ্যে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করে নয়ন বন্ডের নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত। ঘটনার পরদিন নিহত রিফাতের বাবা আবদুল হালিম শরীফ বরগুনা থানায় ১২ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। তাছাড়া এতে সন্দেহভাজন অজ্ঞাতনামা আরও চার-পাঁচজনকেও আসামি করা হয়। যার প্রেক্ষিতে মামলার প্রধান আসামি সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড গত ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে এক বন্দুকযুদ্ধে প্রাণ হারায়। যদিও মামলাটির এজাহারভুক্ত ছয় আসামিসহ মোট ১৪ জনকে এরই মধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এ দিকে গত মঙ্গলবার নিহতের স্ত্রী মিন্নিকে প্রায় ১৩ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার জড়িত থাকার অভিযোগ এনে একই দিন রাত সাড়ে নয়টার দিকে তাকে গ্রেফতার ঘোষণা করে। বরগুনার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মারুফ হোসেন এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন।

পরদিন মামলার প্রধান তদন্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির গণমাধ্যমকে বলেন, 'ঘটনার আগের দিন মিন্নি নয়ন বন্ডের বাড়িতে গিয়ে এই হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা করেছিল। তাছাড়া মামলার ৬ নম্বর আসামি টিকটক হৃদয় আদালতে দেওয়া তার জবানবন্দিতে এই হত্যায় আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সংশ্লিষ্টতার কথা জানিয়েছে।'

আরও পড়ুন :- মিন্নিকে ৫ দিনের রিমান্ডে পেল পুলিশ

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, 'ফুটেজে মিন্নি রিফাত শরীফকে রক্ষার যে চেষ্টা করে সেখানে সে নয়নকে জাপটে ধরলেও তাকে (মিন্নি) কোনো আঘাত করেনি। এটা ছিল লোক দেখানো। ঘটনার আগের দিন এবং ঘটনার পূর্বে নয়ন বন্ডের সঙ্গে মিন্নির মুঠোফোনের আলাপ-আলোচনা থেকে এই হত্যাকাণ্ডে মিন্নির জড়িত থাকার বিষয়টি প্রাথমিকভাবে সত্যতা পাওয়া গেছে।'

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড