• রোববার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ৩৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রেইনট্রির ঘটনায় মামলা ঝুলছে ৩ বছর

  আদালত প্রতিবেদক

২৮ মার্চ ২০২০, ১১:৪৩
দ্য রেইনট্রি হোটেল
বনানীতে দ্য রেইনট্রি হোটেল ও আসামিরা (ছবি : সংগৃহীত)

রাজধানীর বনানীতে দ্য রেইনট্রি হোটেলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় করা মামলা তিন বছর ধরে ঝুলে আছে। মামলার বিচারকার্য কবে নাগাদ শেষ হবে তাও বলতে পারছেন না রাষ্ট্রপক্ষের সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা।

শনিবার (২৮ মার্চ) পূর্ণ হয়েছে নির্যাতনের তিন বছর।  

বর্তমানে মামলাটি ঢাকার ৭ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক বেগম মোছা. কামরুন্নাহারের আদালতে বিচারাধীন। চলতি বছরের ২৩ মার্চ মামলাটি সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু ওইদিন সাক্ষী না আসায় সাক্ষ্যগ্রহণ হয়নি। এ জন্য আগামী ৭ মে পরবর্তী দিন নির্ধারণ করেন ট্রাইব্যুনাল।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট আদালতের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর আফরোজা ফারহানা আহমেদ (অরেঞ্জ) বর্তমানে মামলাটি সাক্ষ্যগ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে। কয়েকদফা সাক্ষী না আসায় ও আইনি জটিলতায় মামলাটির বিচার শেষ হচ্ছে না। মামলার দুই ভিকটিমের বন্ধু আহমেদ শাহরিয়ার। তার সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য আদালত থেকে সমন পাঠানো হয়। তিনি আদালতে হাজির হচ্ছেন না।

বাদীপক্ষের আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ বলেন, ‘মামলাটির বিচার দ্রুতও শেষ হবে বলে আমরা আশা করেছিলাম। কিন্তু সাক্ষী না আসায় বিচারকার্য শেষ হচ্ছে না। আমরা আশা করি, এ মামলাতে আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা হবে।’

আসামিপক্ষের আইনজীবী হেমায়েত উদ্দিন মোল্লা বলেন, ‘আসামিদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সত্য নয়। মামলাটির বিচারকার্য চলমান। আসামিরা নির্দোষ আমরা সেই বিষয়টি প্রমাণ করতে পেরেছি। আশা করছি, তারা খালাস পাবেন।’

আরও পড়ুন : আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলের জামিন

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৮ মার্চ রাত ৯টা থেকে পরদিন সকাল ১০টা পর্যন্ত আসামিরা মামলার বাদী এবং তার বান্ধবী ও বন্ধুকে আটকে রাখে। অস্ত্র দেখিয়ে ভয়-ভীতি প্রদর্শন ও অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। বাদী ও তার বান্ধবীকে জোর করে একটি কক্ষে নিয়ে যায় আসামিরা। বাদীকে সাফাত আহমেদ ও তার বান্ধবীকে নাঈম আশরাফ একাধিকবার ধর্ষণ করেন।

ওডি/ 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড