• রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হলি আর্টিজান হামলার পরবর্তী যুক্তিতর্ক ১৩ নভেম্বর

  অধিকার ডেস্ক

০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১৮:৫৯
হলি আর্টিজানে হামলার পরের দৃশ্য
হলি আর্টিজানে হামলার পরের দৃশ্য (ছবি: সংগৃহীত)

রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান হামলা মামলায় আট আসামির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে আসামীপক্ষের পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য করা হয়েছে আগামী ১৩ নভেম্বর।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর ) ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান এ আদেশ দেন।

ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিকারী ভারপ্রাপ্ত সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর গোলাম সরোয়ার খান জাকির বলেন ‘রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হয়েছে। আশা করছি, সব আসামির সর্বোচ্চ সাজা নিশ্চিত হবে। আজকে রাষ্ট্রপক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আসামি পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুরু হয়েছে। আগামী ১৩ নভেম্বর পরবর্তী যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে।’

এ দিন সকলে কারাগার থেকে আট আসামিকে আদালতে হাজির করার পর তাদের সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

গত বুধবার (৩০ অক্টোবর) আট আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থন শেষে বিচারক (৬ নভেম্বর) যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন। বুধবার (৬ নভেম্বর) ও আজ এ দুই দিন রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষ করেন।

এর আগে, ২৭ অক্টোবর মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। এই পর্যন্ত মোট ১১৩ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করেন ট্রাইব্যুনাল।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর আট আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। এর আগে, গত বছরের ৮ আগস্ট আট জন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন। গত বছরের ২৩ জুলাই মামলার তদন্তকারী (কর্মকর্তা কাউন্টার টেরোরিজম বিভাগের পরিদর্শক) হুমায়ূন কবির সিএমএম আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করলে গত বছরের ২৬ জুলাই সিএমএম আদালত মামলাটি ট্রাইব্যুনালে বদলির আদেশ দেন। ৩০ বছরের জুলাই মামলাটির অভিযোগপত্র গ্রহণ ও আসামিদের উপস্থিতির জন্য এ দিন ধার্য করেন।

অভিযোগপত্রে আসামি ২১ জনের মধ্যে ১৩ জন মারা যাওয়ায় তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়। নিহত ১৩ জনের মধ্যে ৮ জন বিভিন্ন অভিযানের সময় এবং ৫ জন ঘটনাস্থলে নিহত হয়। অভিযোগপত্রে ৮ আসামি হলো— হামলার মূল সমন্বয়ক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক তামিম চৌধুরীর সহযোগী আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে আবু জাররা ওরফে র‌্যাশ, ঘটনায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহকারী নব্য জেএমবি নেতা হাদিসুর রহমান সাগর, নব্য জেএমবির অস্ত্র ও বিস্ফোরক শাখার প্রধান মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, জঙ্গি রাকিবুল হাসান রিগ্যান, জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব ওরফে রাজীব গান্ধী, হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী আব্দুস সবুর খান (হাসান) ওরফে সোহেল মাহফুজ, শরিফুল ইসলাম ও মামুনুর রশিদ। সব আসামিই কারাগারে রয়েছে।

ঘটনাস্থলে নিহত ৫ আসামি হলো- রোহান ইবনে ইমতিয়াজ, মীর সামেহ মোবাশ্বের, নিবরাস ইসলাম, শফিকুল ইসলাম ওরফে উজ্জ্বল ও খায়রুল ইসলাম ওরফে পায়েল।

এছাড়া, বিভিন্ন ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযানের সময় নিহত ৮ আসামি হলো— তামিম চৌধুরী, নুরুল ইসলাম মারজান, তানভীর কাদেরী, মেজর (অব.) জাহিদুল ইসলাম ওরফে মুরাদ, রায়হান কবির তারেক, সারোয়ান জাহান মানিক, বাশারুজ্জামান ওরফে চকলেট ও মিজানুর রহমান ওরফে ছোট মিজান।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাতে গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলা চালিয়ে বিদেশি নাগরিকসহ ২০ জনকে হত্যা করে জঙ্গিরা। এ সময় তাদের গুলিতে দুই পুলিশ সদস্য নিহত হন। পরে অভিযানে পাঁচ জঙ্গি নিহত হয়। ওই ঘটনায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে গুলশান থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ।

ওডি/এমই

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড