• বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সাংবাদিকরা আবরারের মায়ের ছবি নিয়ে কী করবেন!

  কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

০৮ অক্টোবর ২০১৯, ১৬:৩৪
আবরার ফাহাদের মা
আবরার ফাহাদের মাকে শান্ত করার চেষ্টা করছেন এক স্বজন (ছবি : সংগৃহীত)

বুয়েটের ছাত্র নিহত আবরার ফাহাদের বাড়ি কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডে। সেখানে গিয়ে দেখা গেল, পুরো এলাকাই যেন শোকে স্তব্ধ। আর আবরারের বাড়িটি যেন কোনো মৃত্যুপুরী। তার মা ছেলের শোকে আহাজারি করছেন, কাঁদতে কাঁদতে চোখ দুটো ফুলে গেছে, চোখে পানি ছলছল করছে আর ক্ষণে ক্ষণে গড়িয়ে পড়ছে। স্বজনরা তাকে কিছুতেই শান্ত করতে পারছেন না।

এ সময় উপস্থিত সংবাদকর্মীদের কেউ কেউ ফাহাদের মা ও বাড়ির ছবি তুলছিলেন। সন্তানের শোকে স্তব্ধ এ মায়ের প্রশ্ন, ‘সাংবাদিকরা তার ছবি নিয়ে কী করবে?’ সাংবাদিকদের কাছে পেয়ে খুনিদের কঠোর শাস্তির দাবি জানান আবরার ফাহাদের মা। তিনি বলেন, আমার ছবি নিয়ে কী করবেন? পারলে যারা আমার ছেলেকে খুন করেছে, তাদের খুঁজে বের করেন। তাদের ছবি তোলেন। প্রশাসন কি পারবে আমার ছেলেকে আমার বুকে ফিরিয়ে দিতে? আমার ছেলেকে কী অপরাধে এমন নৃশংসভাবে মেরে ফেলা হলো। কী ছিল তার অপরাধ? সরকার কি পারবে যারা আমার বুকের মানিককে হত্যা করেছে তাদের ফাঁসি দিতে?

তিনি আরও বলেন, রবিবার সকালেও আমার বাবুটাকে (আবরার) মুখে তুলে খাইয়েছি। এরপর একসঙ্গে বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে তাকে বাসে তুলে দিয়েছি। ছেলেটা বিকালে ঢাকায় গিয়ে আমাকে ফোন করে বলেছে- ‘মা আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে এসে পৌঁছেছি। তুমি কোনো চিন্তা কোরো না’।

রবিবার (৬ অক্টোবর) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শেরে বাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। নিহত ফাহাদ বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শের-ই বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন।

ওডি/এমআর

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড