• বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

খুলনা জেলার অতন্দ্র প্রহরী পুলিশ সুপার শফিউল্লাহ্

  এম, ডি অসীম, খুলনা

১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:২৬
শফিউল্লাহ্
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত থেকে পদক নিচ্ছেন পুলিশ সুপার শফিউল্লাহ্ । (ছবি : সংগৃহীত)

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পঞ্চিমাঞ্চলে বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেঁষে খুলনা জেলার অবস্থান। বিশ্ব সপ্তাশ্চর্য সুন্দরবন রয়েছে এই জেলায়। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি এখানে অফুরন্ত থাকলেও নিরাপদ ছিল না লোকালয়। সুন্দরবন সংলগ্ন হওয়ায় বন ও সাগরে একাধারে যেমনি ছিল বনদস্যুদের প্রভাব তেমনি স্থলভাগে অপরাধের সংখ্যাও এখানে কম ছিল না। এমনি সংকটময় মুহূর্তে খুলনা জেলার রূপ বদলে ফেলেন পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ, বিপিএম।

খুলনা জেলার পুলিশ সুপার এস.এম. শফিউল্লাহ্ সততা, নিষ্ঠা, ও সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের সাথে সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ দমন, মাদক নির্মূল, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি প্রতিরোধ এবং গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন ও সার্বিক আইন শৃংঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক ‘‘বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম-সেবা)’’ এ ভূষিত হয়েছেন। খুলনা জেলায় অপরাধ নির্মূলের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৪ ফেব্রুয়ারী নিজ হাতে এ পদক পরিয়ে দেন।

পুলিশ সুপার এস,এম শফিউল্লাহ, বিপিএম

খুলনায় বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আলো ছড়াচ্ছেন তিনি। পুলিশ সুপার হিসেবে খুলনা জেলায় যোগদানের পর থেকে পেশাগত দায়িত্বপালনের পাশাপাশি সামাজিক কর্মকাণ্ড করে আলোচনায় আসেন ২৪ ব্যাচের এই কর্মকর্তা। দরিদ্রদের চিকিৎসা ব্যবস্থা, রক্তদান কর্মসূচি, দরিদ্র মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান ও আর্থিক সহযোগিতা, বনায়নের উদ্যোগ নেয়া, অসহায় ও দুস্থদের মাঝে বস্ত্র বিতরণসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে পুলিশকে জনসাধারণের সেবক হিসেবে পরিচিত করানোর আপ্রাণ চেষ্টা তার। এসব সামাজিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে ইতোমধ্যে বেশ আলোচনায় সেছেন তিনি। স্থানীয়দের কাছে পুলিশ সুপার শফিউল্লাহ জনদরদি পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন।

সম্প্রতি তিনি ১০০ টাকার মাধ্যমে পুলিশে চাকরি দিয়ে দেশে আলোড়ন সৃষ্টি করেন। কোনো রূপ হয়রানি ও ঘুষ ছাড়াই পুলিশের চাকরি পেয়েছেন এই জেলার ১১৪ জন। পুলিশ সুপারের ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগকে আর্তমানবতার সেবায় উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হিসেবে দেখছেন অনেকেই।

তিনি ১৯৭০ সালের ১৫ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার সদর থানার ঘড়ইগাতি গ্রামে জম্নগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম শেখ আব্দুল হাকিম একজন সৎ, দক্ষ, আদর্শবান পুলিশ অফিসার ছিলেন।

এস.এম. শফিউল্লাহ্ ২৪ তম বিসিএস পুলিশ ক্যাডারে ২০০৫ সালের ০২ জুলাই এএসপি হিসেবে যোগদান করেন। তিনি এএসপি হিসেবে ১ম আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন, মহালছড়ি, খাগড়াছড়ি, ডিএমপি, ঢাকা, সিআইডি, ঢাকা যশোর জেলায় ক-সার্কেল, নারায়ণগঞ্জ জেলার বি-সার্কেলে দক্ষতার সাথে কর্তব্য পালন করেন। তিনি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ), খুলনা হিসেবে প্রায় ৬ বছর দায়িত্ব পালন করেন। এস.এম. শফিউল্লাহ্ দেশ-বিদেশে অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। তিনি ইতিপূর্বে অনন্য সাধারণ কৃতিত্বের স্বীকৃতি স্বরূপ “আইজিপি গুড সার্ভিস ব্যাজ” অর্জন করেন। এস.এম. শফিউল্লাহ্ পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি পেয়ে ১০ জুন ২০১৮ তারিখে পুলিশ সুপার, খুলনা হিসেবে যোগদান করেন।

তিনি বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী পরিচালক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। পরবর্তীতে তিনি ২০তম বিসিএস (শিক্ষা) ক্যাডারে ২০০১ সালে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে খুলনা বিএল কলেজে প্রভাষক (অর্থনীতি) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ব্যক্তিগত জীবনে জনাব এস. এম. শফিউল্লাহ্ দুই সন্তানের জনক। তার নিজ জেলা গোপালগঞ্জ।

অপরাধের বিরুদ্ধে তাঁর অবিরাম সংগ্রাম। কর্মসূত্রে যে সকল জেলাতে তিনি দায়িত্ব পালন করেছেন সেখানে অল্প কিছু দিনের মধ্যেই তিনি আইন-শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছেন। তার সাহসী ভূমিকার কারণে খুব সহজেই তিনি জনমনে ঠাঁই করে নিয়েছেন।

বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) প্রাপ্তির প্রতিক্রিয়ায় তিনি প্রধানমন্ত্রী এবং খুলনা জেলার মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদক নির্মূলে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন এবং খুলনাবাসী দুর্নীতিমুক্ত সুশাসন উপহার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

ওডি/এসএইচএস

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড