• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

সিজারের তিন মাস পর পেট থেকে বের হলো গজ

  ফরিদপুর প্রতিনিধি

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:৫৩
ফরিদপুর
সাফা মক্কা পলিক্লিনিক (ছবি : দৈনিক অধিকার)

ফরিদপুরে সিজারের তিন মাস ১৮ দিন পর এক গৃহবধূর পেট থেকে গজ ব্যান্ডেজ বের করা হয়েছে। ওই গৃহবধূ বর্তমানে শহরের একটি ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাতে তার দ্বিতীয় অপারেশন সম্পন্ন হয়। ওই গৃহবধূর নাম ফরিদা বেগম। সে সালথা উপজেলার রসুলপুর গ্রামের মাসুদ শেখের স্ত্রী।

গৃহবধূর স্বজনেরা জানান, চলতি বছরের ২৫ মে ওই গৃহবধূর খাবাসপুরের সাফা মক্কা ক্লিনিকে সিজারের মাধ্যমে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। গৃহবধূর সিজার করেন ওই হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. শ্যামল কুমার বিশ্বাস।

ক্লিনিক থেকে ছাড়পত্র দিলেও শারীরিকভাবে সুস্থ ছিলেন না সে। বাড়ি যাওয়ার পর ক্রমেই পেটের ভেতরে ব্যথা অনুভব হতে থাকে। সম্প্রতি ওই ব্যথা প্রকট আকার ধারণ করলে একই এলাকার হ্যাপি হাসপাতাল ক্লিনিকে ভর্তি করেন স্বজনরা। চিকিৎসকের নির্দেশনা অনুযায়ী আলট্রাসনোগ্রাম করলে পেটের মধ্যে গজ ব্যান্ডেজের উপস্থিতি লক্ষ করা যায়।

ফরিদা বেগম (ছবি : দৈনিক অধিকার)

পরে বৃহস্পতিবার রাত নয়টায় ফের অপারেশন করে পেট থেকে গজ ব্যান্ডেজ বের করা হয়।

অপারেশন পরিচালনাকারী চিকিৎসক ডা. স্বপন কুমার জানান, অসুস্থ এক রোগীর পেট থেকে গজ বের করা হয়েছে, বর্তমানে তিনি শঙ্কামুক্ত। দীর্ঘদিন ধরে পেটের মধ্যে গজ ব্যান্ডেজ থাকায় ইনফেকশন হয়েছিল বলেও জানান তিনি।

এদিকে অভিযুক্ত চিকিৎসক ডা. শ্যামল কুমার বিশ্বাস এ ব্যাপারে কিছু বলতে রাজি হননি। তিনি ওই রোগীর সিজার করেছিলেন কিনা তাও স্মরণে নেই বলে জানান। এছাড়া ওই সাফা মক্কা ক্লিনিকের পক্ষ থেকেও কেউ কথা বলতে চাননি।

ওডি/এমবি

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড