• বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

নিম্নমানের কাজে বাধা দেওয়ায় প্রকৌশলীকে হত্যাচেষ্টা

  নাটোর প্রতিনিধি

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:৩৪
সওজ
সওজ প্রকৌশলীর কার্যালয় (ছবি : দৈনিক অধিকার)

নিম্নমানের কাজে তদারকি ও বাধা দেওয়ায় নাটোরে লিটন আহমেদ খান নামে সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের এক সহকারী প্রকৌশলীকে ধাওয়া করেছে ঠিকাদারের লোকজন। এ সময় ঠিকাদার আশফাকুল ইসলাম ওই প্রকৌশলীকে কাজের জায়গায় আসলে তাকে মেরে হাত পা ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকালে সওজের সহকারী প্রকৌশলী লিটন আহমেদ খান নিরাপত্তা চেয়ে বাগাতিপাড়া মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।  

বর্তমানে নিরাপত্তার অভাবে সহকারী প্রকৌশলী লিটন আহমেদ খান আজ বুধবার আর ওই কাজ পরিদর্শনে যাননি। 

সূত্র জানায়, বাঘার আড়ানী এবং বাগাতিপাড়া উপজেলায় সরাসরি সড়ক যোগাযোগের জন্য রাস্তা নির্মাণ করছে নাটোর সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর। যার ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬ কোটি টাকা। আর ওই সড়কটি নির্মাণ কাজ করছেন নাটোরের ঠিকাদার আশফাকুল ইসলাম।  

জিডি সূত্র জানায়, ১০ সেপ্টেম্বর বিকাল সোয়া ৫টার দিকে ওই সড়কে প্রাইম কোট দেওয়া নিয়ে সহকারী প্রকৌশলী লিটন আহমেদ খানের সঙ্গে ঠিকাদার আশফাকুল ইসলামের কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় ঠিকাদার আশফাকুল ইসলাম প্রকৌশলীকে হাত পা ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দেন এবং তার লাইসেন্স করা পিস্তল দিয়ে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেন। এ সময় সহকারী প্রকৌশলীকে ঠিকাদারের লোকজন ধাওয়া দিলে প্রাণ ভয়ে পালিয়ে আসেন তিনি। পরে বিষয়টি সওজের ঊর্ধ্বতন এবং পুলিশ কর্তৃপক্ষকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। 

সহকারী প্রকৌশলী লিটন আহমেদ খান বলেন, আড়ানি-বাগাতিপাড়া সড়কের ঠিকাদার আশফাকুল ইসলাম ও তার লোকজন প্রাইম কোটের আগে কার্পেটিং করতে চায়। এ সময় মালামালের গুণগত পরীক্ষা করে তারপর কার্পেটিং করার কথা বলা হয়। কিন্তু সে কোনো কথা না শুনেই আমাকে ধাওয়া করে এবং প্রাণে মেরে ফেলার জন্য হুমকি দেয়। বর্তমানে নিরাপত্তার অভাবে আমি কাজের সাইটে যেতে পারছি না। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।  

নাটোরের নির্বাহী প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) আফতাব হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নির্বাহী প্রকৌশলী দেশের বাইরে রয়েছেন। আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর তিনি দেশে ফিরলে পরবর্তীতে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

এ বিষয়ে বাগাতিপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি জানার পর পরই পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। বুধবার সকালে ওই প্রকৌশলী নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি করেছেন। জিডির তদন্ত করে পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড