• বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

স্যানমারের ২০০ রাবার গাছ কেটে নিয়ে গেল সন্ত্রাসীরা

  লামা প্রতিনিধি, বান্দরবান

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:২৫
রাবার বাগান
রাবার বাগান থেকে গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে সন্ত্রাসীরা (ছবি : দৈনিক অধিকার)

চাঁদা না দেওয়ায় বান্দরবানের লামা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের এক বহিষ্কৃত সদস্যের নেতৃত্বে স্যানমার ওশান সিটি নামের একটি কোম্পানির বাগান থেকে ২০০টি রাবার গাছ কেটে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, দফায় দফায় বাগানে হামলা, ভাঙচুর ও প্রাণ নাশসহ নানা ধরনের হুমকি দিচ্ছে সন্ত্রাসীরা। 

এ ঘটনায় ১০ জনের নাম উল্লেখসহ আরও অজ্ঞাত নামা ২০-২৫ জনের বিরুদ্ধে সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বাদী হয়ে মামলা করেছেন কোম্পানির সিনিয়র ম্যানেজার মোহাম্মদ মাইনুল হক। 

মামলায় উল্লেখিত অভিযুক্ত বিবাদীরা হলেন- বহিষ্কৃত ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য কুতুব উদ্দিন (৩২), মো. হোছাইন (৪৫), ইমাম হোসেন (৩৪), আবদুল হামিদ (৩৬), মো. বাবুল হোসেন (২৮), জসিম উদ্দিন (২২), রহমত উল্লাহ (৫৫), আহম্মদ হোসেন (৪৫), টুনু (২০) ও সাদ্দাম হোসেন ড্রাইভার (৩৫)। এরা সবাই পাগলীর আগা এলাকার বাসিন্দা। 

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ১৯৮৩-৮৪ সালের ৩ (আর) নম্বর রাবার বন্দোবস্ত মোকদ্দমা মূলে চট্টগ্রামস্থ স্যানমার ওশান সিটির নামে উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের পাগলীর আগা এলাকায় ২৮৬ নম্বর ফাঁসিয়াখালী মৌজার সিট নম্বর ১৮, রাবার প্লট নম্বর ১০৫৭৬, রাবার হোল্ডিং নম্বর ৬২ মূলে ২৫ একর জমি রয়েছে। এ জমিতে বহু শ্রম ও অর্থ ব্যয়ে রাবার বাগান সৃজন করে ভোগ করে আসছে স্যানমার ওশান সিটি কর্তৃপক্ষ। 

বর্তমানে এ বাগান থেকে রাবার উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাত করণের মাধ্যমে দেশের বেকারত্ব বিমোচন ও অর্থনীতিতে অবদান রাখছে কোম্পানিটি। এতে লোভের বশবর্তী হয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের বহিষ্কৃত সদস্য কুতুব উদ্দিনের নেতৃত্বে একটি বাহিনী বাগানের মালিক স্যানমার ওশান সিটির কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। দাবিকৃত চাঁদা না দেওয়ায় গত ১ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টার দিকে মামলায় উল্লেখিত বিবাদীরাসহ আরও ২০-২৫ জন অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে রাবার বাগানে ঢুকে পাঁচ দিনের মধ্যে চাঁদার ১০ লাখ টাকা না দিলে বাগানের গাছ কেটে বিক্রি করে টাকা আদায় করবেন বলে হুমকি দেন। বাধা দিলে খুন করে লাশ গুম করে ফেলবে বলেও হুমকি দেন বিবাদীরা।

এতেও বাগানের মালিক চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে গত ৬ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত ২টার দিকে কুতুব উদ্দিনসহ অন্যরা ভারী অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাগানের কেয়ারটেকার রুবেল, নুরুন্নবী, নুরুল কবির ও বাবু মিয়াকে মারধর করে কার্যালয় থেকে বের করে দেয়। পরে বিবাদীরা বাগানের ২৫ বছর বয়সী ২০০টি রাবার গাছ কেটে গাড়ি বোঝাই করে নিয়ে যায় এবং ১০০টি রাবার গাছ নষ্ট করে আট লাখ টাকার ক্ষতি সাধন করেন।

মামলার বাদী স্যানমার ওশান সিটির সিনিয়র ম্যানেজার মাইনুল হক বলেন, বহিষ্কৃত সদস্য কুতুব উদ্দিনের সন্ত্রাসী আগ্রাসনে এলাকায় বাগান সৃজন করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। ভয়ভীতি ও প্রাণ নাশের হুমকি দিয়ে প্রায় ৪০ বছরের সৃজিত বাগান দখলের জন্য চেষ্টা করছেন কুতুব উদ্দিনগং। 

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে এলাকায় বাগান মালিক ও স্থানীয় লোকজনের মধ্যে আতঙ্কের অপর নাম কুতুব উদ্দিন গং। তাছাড়া কুতুব উদ্দিন ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা প্রতিনিয়ত ১০-১৫টি গরু ছেড়ে দিয়ে বাগানের চারা গাছগুলো নষ্ট করে ফেলছে। এক পর্যায়ে ২০০টি রাবার গাছ কেটে নিয়ে যায়। বাধা দিলে বাগান কর্মচারীদের গায়ের দিকে তেড়ে আসে এবং নারী নির্যাতন মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করার হুমকি দেয় তারা। 

অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত কুতুব উদ্দিন বলেন, আমি কারও বাগানের গাছ কাটিনি। আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। 

ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জাকের হোসেন মজুমদার বলেন, মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হওয়ায় কুতুব উদ্দিনকে পরিষদের সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। 

লামা উপজেলা সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রকৌশলী মো. ইব্রাহিম বলেন, স্যানমার ওশান সিটির অভিযোগটি এফ আই আর হিসেবে নেওয়ার জন্য থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এ বিষয়ে লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অপ্পেলা রাজু নাহা বলেন, স্যানমার ওশান সিটি কর্তৃক আদালতে দায়েরকৃত মামলার কপি হাতে পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড