• রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩১ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

নিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের দুই শর্ত||এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী  ||উদ্বেগ থাকলেও ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ||ছাত্রলীগের চাঁদাবাজি ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ : রিজভী ||কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের অভিযোগে সীমান্তে‌ হাই অ্যালার্ট||ভারতের পর এবার বিশ্বকে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি পাকিস্তানের||সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক||মেক্সিকোয় কুয়া থেকে ৪৪ মরদেহ উদ্ধার করল বিজ্ঞানীরা||অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : কাদের    ||সৌদির তেল স্থাপনাতে হামলায় ইরানকে দায়ী করল যুক্তরাষ্ট্র

মিন্নি কেন ৭ নম্বরে, এমপিপুত্র কেন নেই— দুই ভাইয়ের চিৎকার

  অধিকার ডেস্ক

০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:৪০
মিন্নি, সুনাম, রিফাত ফরাজী ও নিশান ফরাজী
আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি, সুনাম দেবনাথ, রিফাত ফরাজী ও নিশান ফরাজী (ছবি : সংগৃহীত)

রিফাত শরীফ হত্যা মামলার চার্জশিটে এমপিপুত্র সুনাম দেবনাথকে আসামি না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এ মামলার অন্যতম আসামি সহোদর দুই ভাই রিফাত ফরাজী ও রিশান ফরাজী।

মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) বরগুনার আদালতে হাজিরা শেষে প্রিজনভ্যানে ওঠানোর সময় দুই ভাই চিৎকার করে বলতে থাকেন, ‘এটা অন্যায়, এটা অবিচার। যে (রিফাত হত্যার পরিকল্পনা) করছে সে (মিন্নি) কেন ৭ নম্বরে, সুনাম দেবনাথ কেন আসামি নাই, সুনাম দেবনাথ হত্যার নির্দেশদাতা, সে কেন আসামি নাই, বাদশা হত্যার কেন বিচার নাই? এটা অবিচার, এটা অন্যায়।’ এরপরই পুলিশ তাদের দ্রুত প্রিজনভ্যানে তুলে বরগুনা কারাগারে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগ নেতা সুনাম বলেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ইন্ধনে এ হত্যাকাণ্ডে আমার জড়ানো হচ্ছে। আমার দুর্নাম রটাতে এগুলো হচ্ছে, এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র।

রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের পর থেকে আলোচনায় রয়েছেন আওয়ামী লীগের স্থানীয় এমপি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে সুনাম। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক।

মামলার ধার্য দিনে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার ১৪ আসামিকে বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচার বিভাগীয় হাকিম মো. সিরাজুল ইসলাম গাজীর আদালতে হাজির করা হয়। বিচারক আসামিদের মধ্যে অপ্রাপ্তবয়স্ক ৬ জনকে যশোর শিশু-কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে এবং বাকিদের বরগুনা কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। ১৮ সেপ্টেম্বর মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে।

শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি দুই শর্তে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে গ্রেফতারের ৪৮ দিন পর বরগুনা জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।

রিফাত হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকায় মিন্নিকে ৭ নম্বর আসামি এবং তদন্ত শেষে ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে পুলিশ।

বরগুনা সরকারি কলেজের মূল ফটকের সামনের রাস্তায় ২৬ জুন সকালে স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সামনে কুপিয়ে জখম করা হয় রিফাত শরীফকে। বিকাল ৪টায় বরিশালের শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। ২৭ জুন রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ বরগুনা থানায় ১২ জনের নামে এবং চার-পাঁচজনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করেন। প্রধান আসামি নয়ন বন্ড ২ জুলাই ভোরে পুলিশের সঙ্গে কথিত 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত হয়।

ওডি/এমআর

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড