• রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে : শামীম

  মির্জাপুর প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল

০২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:২৪
পানি সম্পদ উপমন্ত্রী
নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী (ছবি : দৈনিক অধিকার)

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বংশাই নদী ভাঙন ও বুধিরপাড়া-কেশবপুর স্লোপের প্রতিরক্ষামূলক কাজ পরিদর্শন করেন পানি সম্পদ উপমন্ত্রী একে এম এনামুল হক শামীম। 

সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) মির্জাপুরে বংশাই নদী ভাঙন ও বুধিরপাড়া-কেশবপুর স্লোপের প্রতিরক্ষামূলক কাজ পরিদর্শন করেন তিনি।

তিনি বলেন, নদী ভাঙন ও বন্যা কবলিত ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো চিহ্নিত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং অবৈধভাবে নদী থেকে বালু উত্তোলনকারীদের কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।

তিনি আরও বলেন, বন্যা কবলিত এলাকায় ১১৫ কোটি টাকার ডিপিপি প্রকল্প প্রণয়ন করা হয়েছে। সারা দেশের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো চিহ্নিত করে আগাম ব্যবস্থা নেওয়ার ফলে এবার গত বছরগুলোর চেয়ে নদী ভাঙনের ভয়াবহতা কমেছে। সারা দেশে সরকার ৬৫০টি এলাকাকে বন্যা কবলিত এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করেছে যার মধ্যে ৬৫টি অধিক ঝুঁকি সম্পন্ন বলে জানান তিনি।

ওই সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর আসনের সাংসদ মো. একাব্বর হোসেন, সভাপতি, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মঈনুল হক, সহকারী পুলিশ সুপার মির্জাপুর সার্কেল দিপঙ্কর ঘোষ, মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. সায়েদুর রহমান, উপজেলা আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ প্রমুখ। 

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড