• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

মুকসুদপুরে প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের অভিযোগে সেনা সদস্য গ্রেফতার

  গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

০২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৭:৪০
গ্রেফতার
গ্রেফতারকৃত সেনা সদস্য রাকিব হোসেন ওরফে সেন্টু মিয়া (ছবি : দৈনিক অধিকার)

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলায় প্রতিবন্ধীকে (২১) ধর্ষণের অভিযোগে রাকিব হোসেন ওরফে সেন্টু মিয়া নামে সদ্য প্রাক অবসর ছুটিতে আসা এক সেনা সদস্যকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে থানা পুলিশ। একই সঙ্গে পুলিশ ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য গোপালগঞ্জ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

গ্রেফতারকৃত রাকিব হোসেন ওরফে সেন্টু মিয়া মুকসুদপুর উপজেলার বাশবাড়ীয়া গ্রামের মজিদ মুন্সীর ছেলে ও চার সন্তানের জনক। 

রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে থানায় দায়ের করা ভিকটিমের মায়ের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ওই দিন রাতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

মামলার বরাত দিয়ে মুকসুদপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবদুল্লাহ আল মামুন বিশ্বাস জানান, মুকসুদপুর উপজেলার বাশবাড়ীয়া গ্রামের বাসিন্দা সদ্য প্রাক অবসর ছুটিতে (এলপিআর) আসা বেঙ্গল রেজিমেন্টর সেনা সদস্য রাকিব হোসেন ওরফে সেন্টু মিয়ার বিরুদ্ধে একই গ্রামের ২১ বছর বয়সী শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী ওই প্রতিবন্ধীর মা। অভিযোগ অনুযায়ী গত ২৯ আগস্ট দুপুরে সদ্য অবসরে আসা সেনা সদস্য রাকিব হোসেন সেন্টু তার প্রতিবন্ধী মেয়েকে একটি পেয়ারা দিয়ে তাদের গোয়ালঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ৩১ আগস্ট রাতে ওই প্রতিবন্ধী মেয়েটি তার মায়ের কাছে ধর্ষণের বিবরণ তুলে ধরলে তিনি পরদিন ১ সেপ্টেম্বর দুপুরে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগটি প্রাথমিকভাবে আমলে নিয়ে একই দিন রাতে অভিযান চালিয়ে রাকিব হোসেন সেন্টুকে গ্রেফতার করা হয়। 

ভুক্তভোগী ওই প্রতিবন্ধীর মা জানান, তার মেয়ের বয়স ২১ হলেও সে ছোটবেলা থেকে শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী। ঘটনাটি ঘটার দুই দিন পরে সে জানায় রাকিব হোসেন সেন্টু তাকে পেয়ারা দিয়ে গোয়ালঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ঘটনাটি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জানালে তারা থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেন। এরপরই তিনি থানায় এসে মামলা করেন। এ সময় তিনি অভিযোগ করেন, ধর্ষকদের জমির পাশ দিয়ে যাতায়াত করলে তারা মারতে আসতো ও গালিগালাজ করত।

এ দিকে, পুলিশের হেফাজতে থাকা অভিযুক্ত রাকিব হোসেন সেন্টু জানান, ‘তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার। এ মামলার অভিযোগকারীরা আমার জমি নষ্ট করে যাতায়াত করায় বাধা দিলে তারা আমার নামে এ মিথ্যা মামলা দিয়েছে। তিনি এ ধর্ষণের মতো অপরাধের সঙ্গে জড়িত না। তাকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানো হচ্ছে।’

গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মশিউর জানান, এজাহারভুক্ত একমাত্র আসামিকে গ্রেফতারের পর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। এছাড়া ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে গোপালগঞ্জ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ওডি/আইএইচএন

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড