• শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

৭০ কিলোমিটার ভেসে যমুনা থেকে বেঁচে ফিরল দুই শিক্ষার্থী

  সারাদেশ ডেস্ক

১০ আগস্ট ২০১৯, ০৮:৫৩
জেলার ম্যাপ
ছবি : দৈনিক অধিকার

জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় ইঞ্জিনচালিত নৌকাডুবিতে নিখোঁজ হওয়া শিক্ষার্থীসহ ছয়জন যাত্রীর মধ্যে দুইজন শিক্ষার্থী অলৌকিকভাবে বেঁচে ফিরেছে। কাঠের টুকরো ধরে উত্তাল যমুনায় প্রায় ৭০ কিলোমিটার ভেসে থেকে বেঁচে থাকার লড়াইয়ে জয়ী হয়েছে তারা।

জানা যায়, শুক্রবার (৯ আগস্ট) বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলা থেকে উদ্ধার করা হয় নয়ন নামে এক ছাত্রকে। সাহসী ওই ছাত্র দুই দিন উত্তাল যমুনায় ভেসে ছিল। পরে শুক্রবার সারিয়াকান্দিতে একটি কাশবন থেকে স্থানীয় পাট শ্রমিকরা প্রায় অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর নয়ন জানায়, চিত হয়ে দীর্ঘ সময় সাঁতার কাটায় বেঁচে ফিরেছে সে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৮ আগস্ট) উদ্ধার করা হয় মমতা বিথি নামে অপর এক ছাত্রীকে। বিথিও একইভাবে বেঁচে থাকার লড়াইয়ে উত্তাল যমুনায় কাঠের টুকরো ধরে প্রায় ৭০ কিলোমিটার পথ ভেসে ছিল। তাকেও সারিয়াকান্দি উপজেলার চন্দন বাইসা ঘুঘুমারি এলাকা থেকে জীবিত উদ্ধার করে স্থানীয়রা।

উদ্ধার হওয়া নয়নের পরিবার জানায়, গাইবান্ধার পলাশবাড়ি উপজেলার বেদকা গ্রামের শাহনূরের ছেলে নয়ন বড় ভাই সেলিমের শ্বশুরবাড়ি বেড়াতে এসেছিল। ত্রাণ নিয়ে ফেরার সময় নৌকাটি ডুবে গেলে সারা রাত যমুনায় ভেসে থাকার পর বৃহস্পতিবার সকালে সারিয়াকান্দি উপজেলার তীরে আসে নয়ন। 

দেওয়ানগঞ্জের চরহলকা গ্রামের ময়েন উদ্দিনের স্ত্রী ফিরোজা বেগম জানান, তার মেয়ে মমতা বিথী স্থানীয় হাবরাবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী। তারা বুধবার রাতে চুকাইবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ভিজিএফের চাল নিয়ে নৌকায় করে চরহলকা গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন। এ সময় ঝড়ের কবলে ২৭ জন যাত্রীসহ ওই নৌকাটি মাঝ নদীতে ডুবে যায়। নৌকাডুবির ঘটনায় এলাকাবাসী ২১ জনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও নিখোঁজ হয় বিথী ও নয়নসহ ছয়জন। শুক্রবার ভোরে উপজেলার চন্দনবাইশার শেখপাড়া এলাকা থেকে বিথী নামে সাত বছরের ওই মেয়েকে জীবিত উদ্ধার করেন পারভিন বেগম নামে এক গৃহবধূ। 

উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে সারিয়াকান্দি থানার ওসি আল আমিন জানান, শুক্রবার দুপুরে বিথিকে তার মায়ের কাছে ও নয়নকে তার ভাইয়ের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, নৌকাডুবির ঘটনায় শুক্রবার নিখোঁজ হওয়া আরও দুইজন যাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে দুপুরে দেওয়ানগঞ্জ থেকে ৭০ কিলোমিটার ভাটিতে পাতালবাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয় নিখোঁজ রেজিয়া খাতুনের (৪৫) লাশ। এছাড়া ওই দিন বিকালে পার্শ্ববর্তী উপজেলা ইসলামপুরের জিগাবাড়ি এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে নিখোঁজ তৈয়ব আলীর ছেলে দুলালের (৩০) মরদেহ। তবে এখন পর্যন্ত ওই নৌকার আরও দুইজন যাত্রী নিখোঁজ রয়েছেন।

ওডি/আইএইচএন

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড