• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

তালায় ফসলি জমিতে ইটভাটা নির্মাণ

  সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

০৫ আগস্ট ২০১৯, ১৭:১৩
ইটভাটা
ফসলি জমিতে নির্মিত ইটভাটা (ছবি : দৈনিক অধিকার)

সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় ফসলি জমিতে গড়ে উঠছে ইটভাটা। উপজেলার ১১ নম্বর জালালপুর ইউনিয়নের জনবহুল এলাকা জেঠুয়ায় চলতি বছরের ২৫ জুন একটি ইটভাটার নির্মাণ কাজ শুরু হয়। যার চারপাশে রয়েছে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, মাধ্যমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয়, ঐতিহ্যবাহী জেঠুয়া বাজার, এতিমখানা ও প্রবহমান একটি নদী। 

ইতোমধ্যে ভাটার কার্যক্রম শুরু হওয়ায় এলাকার পরিবেশ বিপর্যয়ের আশঙ্কায় রীতিমতো আতঙ্কে রয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী। তারা তদন্ত পূর্বক ওই এলাকায় ভাটার কার্যক্রম বন্ধে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

জানা গেছে, তালা উপজেলার জেঠুয়া গ্রামের আলহাজ মোবারক হোসেন ও আব্দুর রশিদ সরদারের ছেলে হাফেজ জহুরুল ইসলাম একই এলাকার কামরুল ইসলাম ও মো. মোতালেব গংদের কাছ থেকে ১১ নম্বর জালালপুর ইউনিয়নের জেঠুয়া মৌজা এলাকার প্রায় চার একর সম্পত্তি ইজারা নিয়ে গত ২৫ জুন মঙ্গলবার সকালে উদ্বোধনের মাধ্যমে ইট ভাটা স্থাপনের কাজ শুরু করেন। যার একপাশে রয়েছে, ঐতিহ্যবাহী জেঠুয়া হাট-বাজার, জনবহুল মালোপাড়া, ঘোষপাড়া। অপর পাশে জালালপুর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, জাগরণী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, জেঠুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি এতিমখানা ও অপর পাশ দিয়ে বয়ে গেছে ঐতিহ্যের ধারক কপোতাক্ষ নদ।

এলাকাবাসীর দাবি, প্রথমত মালিক পক্ষ অটো ভাটার নামে প্রচার দিলেও মূলত তারা সেখানে হাওয়া ভাটা তৈরির কার্যক্রম এগিয়ে নিচ্ছেন। জনবহুল ও বিভিন্ন সামাজিক, শিক্ষা, ধর্মীয় ও মানবিক প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ইটভাটা স্থাপিত হলে এলাকার সামগ্রিক পরিবেশ বিপর্যয়ের মুখে পড়বে। একই সঙ্গে সর্বস্তরের মানুষ মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হবে।

শুধু এখানেই শেষ নয়, নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, ভাটার জমি দাতা ও মালিক পক্ষ পরস্পর যোগসাজশে বসত-ভিটা থেকে শুরু করে ফসলি জমির দাগ-খতিয়ান সম্পৃক্ত করে ইজারা চুক্তি সম্পন্ন করলেও মূলত তারা বিআরএস খাস খতিয়ানের জমিতেই ভাটা স্থাপন করছেন। যা আইন বহির্ভূত।

ভাটার ম্যানেজার মফিজুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ভাটার মালিক বাইরে আছে বলে আর কিছু বলতে রাজি হননি।

এ ব্যাপারে তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন বলেন, আমি তালা উপজেলায় নতুন এসেছি। এখনো পর্যন্ত এ নিয়ে কোনো অভিযোগ পায়নি। এলাকাবাসী ক্ষতিকর দিকগুলো তুলে ধরে অভিযোগ করলে অবশ্যই তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড