• শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

মায়ের সহযোগিতায় মেয়েকে ধর্ষণ করল বাবা

  খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

১৯ জুলাই ২০১৯, ১৪:২১
ধর্ষণ
ছবি : প্রতীকী

খাগড়াছড়ির রামগড়ে মাদরাসা পড়ুয়া ছাত্রীকে মায়ের সহযোগিতায় ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তারই বাবার বিরুদ্ধে। এ ঘটনা জানাজানির পর বাবা পলাতক রয়েছেন। তিনি পেশায় একজন দিনমজুর বলে জানা গেছে। 

স্থানীয়রা বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) রাতে মা ও মেয়েকে থানায় নিয়ে গেলে পুলিশের কাছে বাবার হাতে যৌন নির্যাতনের মর্মস্পর্শী বর্ণনা দেয় ওই ছাত্রী। এ ধর্ষণের ঘটনায় মায়ের সহযোগিতার কথা উঠে আসে। 

যৌন নির্যাতনের শিকার ছাত্রী জানায়, তার বাবা আবুল কাশেম (৪৩) গত ২ জুলাই রাতে জোরপূর্বক তাকে প্রথম ধর্ষণ করে। একইভাবে আরও ২ থেকে ৩ বার ধর্ষণের শিকার হয় সে। বাবার পা ধরেও রক্ষা পায়নি ওই ছাত্রী। সর্বশেষ গত ১২ জুলাই গভীর রাতে ছোট ভাইবোনের সঙ্গে ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় আবারও তাকে ধর্ষণ করে। 

সে আরও জানায়, ধর্ষণের সময় মেয়ে চিৎকার করতে চাইলে মা তার মুখ চেপে ধরত বলেও জানায়। বিষয়টি প্রকাশ হলে তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হতো। বিষয়টি প্রথমে মেয়ের দাদীকে ও পরে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় গত ১৪ জুলাই তার চাচা ওমর ফারুককে জানায় মেয়েটি। 

স্থানীয় ইউপি মেম্বার মো. আব্দুল হান্নান বলেন, মেয়েটির চাচা ওমর ফারুকের কাছ থেকে বিষয়টি জানার পরে তারা মেয়ের মুখে অভিযোগ শোনেন। পরে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মেয়ে ও তার মাকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। 

রামগড় থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মনির হোসেন বলেন, মেয়ে ও তার মাকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। মেয়েটি একাধিকবার তার বাবার হাতে ধর্ষণের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছে এবং মা নিজেও বিষয়টি স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুুতিসহ ধর্ষণের বাবাকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি জানান।

ওডি/এসজেএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড