• শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অপরিকল্পিত ড্রেনে জনগণের ভোগান্তি

  রাজশাহী প্রতিনিধি

১৩ জুলাই ২০১৯, ০৯:০৮
ড্রেন
বাঘা সড়কে নির্মাণ করা ড্রেন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

রাজশাহীর বাঘা পৌরসভার মাধ্যমে দুই বছর আগে উপজেলা মুজিব নগর চত্বর থেকে নারায়নপুর সড়কঘাট পদ্মানদী পর্যন্ত নির্মাণ করা হয়েছে দুই কিলোমিটার ড্রেন। উদ্দেশ অন্যান্য সময়ের পাশাপাশি বর্ষা মৌসুমে রাস্তার পানি ড্রেনের মাধ্যমে দক্ষিন প্রান্তের পদ্মায় চলে যাবে। তবে বস্তবে হচ্ছে তার উল্টো। ড্রেনের পানি নদীর দিকে না গিয়ে উত্তরের সমতল এলাকায় চলে আসছে। প্রকল্পের ত্রুটির কারণে মূলত এমনটা হচ্ছে। আর এতে করে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন এলাকাকাসীরা। 

বাঘা পৌর সভার সহকারি প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম জানান, ২০১৭ সালে পৌর সভার অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল থেকে ৩ কোটি ৪৩ লাখ টাকা ব্যায়ে পর-পর দুইটি প্রকল্পের মাধ্যমে এই ড্রেন নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন করেন সাবেক পৌর মেয়র আক্কাস আলী। এর একটি প্রকল্প উত্তর আংশে এক হাজার ৭৫৭ মিটার (আরসিসি) কভার ড্রেন ৩ কোটি টাকা ব্যায়ে সম্পন্ন করেন রাজশাহীর মা বিল্ডার নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। 

অপরটি দক্ষিন আংশে ৯০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ২৫০ মিটার পাইপ ড্রেন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেন স্থানীয় ঠিকাদার ও বাঘা পৌর কাউন্সিলর আব্দুল কুদ্দুস সরকার। সে সময় শহিদুল ইসলাম ওই পৌর সভায় কর্মরত ছিলেন না বলে জানান। তবে দুইটি প্রকল্পই বাস্তবায়নেই যথেষ্ট ত্রুটি আছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। 

ভুক্তভোগী স্থানীয়রা অভিযোগ করে জানান, বাঘা পৌর সভার মাধ্যমে সরকারি টাকায় দুই বছর আগে যে ড্রেন নির্মান করা হয়েছে তা জনগনের কল্যানে কাজে আসছে না। গত বছর বর্ষা মৌসুমে ড্রেনের দক্ষিনের পানি উল্টো হয়ে উত্তরে প্রবাহিত হয়। এতে করে অনেককেই রাস্তায় মাছ মারতে শুরু করে। যা বিভিন্ন গনমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। কিন্তু এবার  অবস্থা আরও বেশি খারাপ। ইতোমধ্যে কোনো কোনো স্থানে রাস্তায় পানি জমে থাকার কারণে বড় গর্তসহ ভাঙন দেখা দিয়েছে। যা অনেকেই ফেসবুকে ভাইরাল করেছেন। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা বলেন, গত দুই দিন আগে বাঘা-নারায়নপুর সড়কের বেশ কয়েকটি স্থানে ড্রেন দিয়ে পানি না নামায়  রাস্তার পাশে যে বড় বড় গর্ত হয়েছে তা ফেসবুকে লক্ষ করি। এরপর উপজেলা প্রকৌশলী রতন কুমার এবং বাঘা পৌর সভার  মেয়র আব্দুর রাজ্জাক সাহেবকে বিষয়টি জানায়। ফলে তাৎক্ষনাত পৌর কর্তৃপক্ষ বালি ভরাট দিয়ে সেই গর্তগুলো  ভরাট করে দেন। 

সার্বিক বিষয়ে বাঘা পৌর মেয়র আব্দুর রাজ্জাক বলেন, শুধু বাঘা মুজিব নগর চত্বর থেকে নারায়নপুর সড়কঘাট পদ্মানদী পর্যন্ত পুর্বের মেয়র দায়িত্বে থাকা অবস্থায় যেসব উন্নয়ন মূলক কাজ সম্পন্ন করেছেন সবগুলোর প্রায় একই দশা। তার মতে, স্বজন প্রীতি এবং পরিকল্পনা ভুলের কারণে এমনটি ঘটেছে। তিনি আরও জানান, চলতি বর্ষা মৌসুমের পর এই ড্রেনের কাজ তিনি পুনঃনির্মাণ করবেন।

ওডি/এসজেএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড