• রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

১০০ টাকায় পুলিশের চাকরি পেলেন মুজিবনগরের দুই এতিম শিক্ষার্থী

  মেহেরপুর প্রতিনিধি

২৮ জুন ২০১৯, ০৮:৩৪
শিশু পরিবার
মুজিবনগর সরকারি শিশু পরিবারের দুই শিক্ষার্থী লতা ও প্রিয়া ( ছবি : দৈনিক অধিকার)

মাত্র একশ টাকায় পুলিশের চাকরি পেলেন মুজিবনগর সরকারি শিশু পরিবারের দুই এতিম শিক্ষার্থীসহ ১৮ জন। বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) রাতে মেহেরপুর পুলিশ লাইন রিজার্ভ অফিসে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করেন। 

ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী, ৯ জন পুরুষ ও ৯ জন নারী প্রার্থীর চূড়ান্ত নিয়োগ সম্পন্ন করা হয়। এদের মধ্যে মুজিবনগর সরকারি শিশু পরিবারের দুজন শিক্ষার্থী রয়েছেন।

এরা দুজন হলেন- মেহেরপুর সদর উপজেলার গভিপুর গ্রামের মৃত বাহার আলীর মেয়ে লতা খাতুন ও মুজিবনগর উপজেলার সোনাপুর গ্রামের নূরনবী শেখের মেয়ে প্রিয়া খাতুন। যা প্রতিষ্ঠানটি চালু হওয়ার পর থেকে এই প্রথম চাকরি। তবে এই প্রতিষ্ঠান থেকে মাত্র দুজনই চাকরির জন্য দরখাস্ত করেছিলেন। আর দুই জনের মধ্যে কাউকে ফিরতে হয়নি খালি হাতে।

এদিকে চাকরির খবর শুনে আনন্দে মেতে উঠেছে শিশু পরিবারের সবাই।

চাকরি পেয়ে নিজের অনুভূতি সম্পর্কে জানতে চাইলে লতা খাতুন বলেন, আমার ছোট থেকে স্বপ্ন ছিল আমি পুলিশ হব। দেশ ও জনগণের সেবা করবো। আমার এই স্বপ্ন আমাকে ঘুমাতে দিত না। তবে অবশেষে প্রধান শিক্ষকের সহযোগিতায় আমার মনের আশা পূর্ণ হলো।

প্রিয়া খাতুন বলেন, আমার প্রধান শিক্ষকসহ সকলের সহযোগিতায় আজ আমি পুলিশের চাকরি পেয়েছি। আমি ভাবতাম আমরা এতিম, আমাদের পাশে কেউ নেই! তবে আজ আমাদের এই চাকরির মধ্যে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রমাণ করলেন তিনি এতিমদের মা। সব সময় এতিমদের পাশে আছেন। আর আমিও প্রতিজ্ঞা করছি দেশ ও জনগণের সেবা করবো।

শিশু পরিবারের প্রধান শিক্ষক তন্ময় কুমার শাহ্ বলেন, যখন পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেখি। তখন সকলকে বলি কে কে পুলিশের চাকরি করবে। তখন এরা দুজন আমাকে বলে আমরা করব আমাদের কাগজগুলো জমা দেন। তখন আমি দরখাস্ত থেকে শুরু করে তাদে শেষ প্রযন্ত তাদের সঙ্গে করে নিয়ে সকল জায়গায় গিয়েছি। অবশেষে আমার এই পরিশ্রম ও শিক্ষার্থীদের মেধার ভিত্তিতে একদম বিনা পয়সায় চাকরি হয়েছে। আর এজন্য আমি প্রধানমন্ত্রী ও পুলিশসুপারসহ শিশু পরিবারের সঙ্গে যারা সংশ্লিষ্টদের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ।

শিশু পরিবারের তত্ত্বাবধায়ক আবু তালেব বলেন, আমরা প্রথম থেকেই মেয়েদের উৎসাহিত করে আসছি। তাছাড়া জনপ্রশাসন মন্ত্রী, ডিসি, পুলিশ সুপার সকলেই আমাদের অফিসে গিয়েছেন। তারা আমাদের শিশুদের উৎসাহিত করেছেন।


ওডি/ এসএএফইউ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড