• শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

অ্যাম্বুলেন্স আছে চালক নেই, দুর্ভোগে জনসাধারণ

  চন্দনাইশ প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম

২৩ জুন ২০১৯, ১২:০৮
অ্যাম্বুলেন্স
গ্যারেজে তালাবদ্ধ অ্যাম্বুলেন্স (ছবি : দৈনিক অধিকার)

চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী ৩১ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স আছে কিন্তু তার চালক নেই। চালক না থাকায় দীর্ঘ তিন বছর তালাবদ্ধ গ্যারেজে অলস পড়ে আছে অত্যাধুনিক সরকারি অ্যাম্বুলেন্সটি।

চালকের অভাবে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত রোগীসহ মুমূর্ষু রোগীদের কাজে আসছেনা অ্যাম্বুলেন্সটি। দীর্ঘদিন গ্যারেজে পড়ে থাকায় এসিসহ মূল্যবান যন্ত্রাংশ নষ্ট হবার উপক্রম হলেও কর্তৃপক্ষ নির্বিকার।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সাংসদ নজরুল ইসলাম চৌধুরীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় অত্যাধুনিক অ্যাম্বুলেন্সটি (চট্টমেট্টো-ছ ৭১-০২৪৮) বরাদ্দ দেয়া হয়। ২০১৪ সালের ৫ জুলাই এক অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম জেলার তৎকালীন সিভিল সার্জন ডা. সরফরাজ খান ও চন্দনাইশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শিশির কুমার রায়ের উপস্থিতিতে দোহাজারী হাসপাতালের তৎকালীন আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তার হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি হস্তান্তর করেন এম.পি নজরুল।

অ্যাম্বুলেন্স বরাদ্দ হলেও চালকের পদ সৃষ্টি করা হয়নি। চালকের পদ না থাকায় ২০১৪ সালের ৫ জুলাই থেকে ২০১৬ সালের ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত অন্য হাসপাতাল থেকে ডেপুটেশনে চালক এনে অ্যাম্বুলেন্সটি সচল রাখা হয়। ডেপুটেশনে আসা চালক তার নির্ধারিত কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ায় দীর্ঘ তিন বছর ধরে হাসপাতালের পশ্চিম পার্শ্বের তালাবদ্ধ গ্যারেজে পড়ে থেকে অ্যাম্বুলেন্সটি অযত্ন-অবহেলায় নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

দোহাজারী পৌরসভাসহ পার্শ্ববর্তী সাতবাড়িয়া, বৈলতলী, হাশিমপুর, ধোপাছড়ি ও সাতকানিয়া উপজেলার কালিয়াইশ, খাগরিয়া, নলুয়া, ধর্মপুর, পুরানগড় ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের একমাত্র ভরসাস্থল দোহাজারী হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্সটি চালু না থাকায় চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন মুমূর্ষু রোগীরা।

তাছাড়া চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক সংলগ্ন হওয়ায় দোহাজারী হাসপাতালে প্রায় প্রতিদিনই আহত রোগীরা চিকিৎসা নিতে আসেন। অ্যাম্বুলেন্স সচল থাকাবস্থায় গুরুতর আহত রোগীসহ মুমূর্ষু রোগীদের দ্রুত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতের জন্য প্রতি কিলোমিটারে দশ টাকা করে ফি দিয়ে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া নিয়ে সাধারণ মানুষ সরকারি সুযোগ-সুবিধা পেয়ে আসছিল।

চালক না থাকায় অ্যাম্বুলেন্সের অভাবে এ অঞ্চলের গরিব-অসহায় রোগীদের জরুরি প্রয়োজনে উন্নত চিকিৎসা সেবা পেতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার জন্য অতিরিক্ত অর্থ ব্যয়ে ভাড়া করা প্রাইভেট অ্যাম্বুলেন্স বা অন্য কোনো যানবাহনের মাধ্যমে নিয়ে যেতে হয়। এতে অ্যাম্বুলেন্স থাকা সত্ত্বেও রোগীরা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

চন্দনাইশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বখতেয়ার আলম বলেন, ‘অ্যাম্বুলেন্স বরাদ্দ হলেও চালকের পদ সৃষ্টি করা হয়নি, তাই স্থায়ীভাবে চালক নিয়োগ দেয়া যাচ্ছে না। অন্য হাসপাতাল থেকে ডেপুটেশনে চালক এনে এতোদিন অ্যাম্বুলেন্সটি সচল রাখা হয়েছিল।’

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, ‘দোহাজারী হাসপাতালে চালকের পোস্ট নেই। পোস্ট না থাকলেতো কাউকে পোস্টিং দেয়া যায় না। আর পোস্ট না থাকায় কাউকে ডেপুটেশনেও নিয়োগ দেয়া যাচ্ছেনা। চট্টগ্রামের প্রত্যেক উপজেলায় একজন করে অ্যাম্বুলেন্স চালক আছেন, কোনো একটি উপজেলা থেকে চালক আনলে ওই উপজেলার সেবা বন্ধ থাকবে। দোহাজারী হাসপাতালে চালকের পদ সৃষ্টি করার জন্য বিভাগীয় পরিচালককে লিখিতভাবে অবহিত করেছি।
 
এ ব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে চট্টগ্রাম বিভাগীয় (স্বাস্থ্য) পরিচালক  ডা. শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘দোহাজারী হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স চালকের পোস্টে নেই। চালকের পদে চালক ছাড়া অন্য কাউক ডেপুটেশনে আনা যাবে না। দ্রুততম সময়ে চালকের পদ সৃষ্টি করে দোহাজারী হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স চালক নিয়োগ দেয়ার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হবে’।

ওডি/এসজেএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড