• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

নিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের দুই শর্ত||এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী  ||উদ্বেগ থাকলেও ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ||ছাত্রলীগের চাঁদাবাজি ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ : রিজভী ||কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের অভিযোগে সীমান্তে‌ হাই অ্যালার্ট||ভারতের পর এবার বিশ্বকে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি পাকিস্তানের||সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক||মেক্সিকোয় কুয়া থেকে ৪৪ মরদেহ উদ্ধার করল বিজ্ঞানীরা||অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : কাদের    ||সৌদির তেল স্থাপনাতে হামলায় ইরানকে দায়ী করল যুক্তরাষ্ট্র

৩ বছর ধরে বন্ধুর মেয়েকে ধর্ষণ 

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

১৭ জুন ২০১৯, ২০:৫৩
ধর্ষণ
ধর্ষণকারী মকবুল ( ছবি : দৈনিক অধিকার )

কুড়িগ্রামের ভূরুগামারী উপজেলায় তিন বছর ধরে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া বন্ধুর মেয়েকে ধর্ষণকারী মকবুল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (১৭ জুন) দুপুরে উপজেলার সাব-রেজিস্ট্রার অফিসের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

আটক মকবুল হোসেন উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নের পূর্বকেদার গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস প্রধানীর ছেলে।

নির্যাতনের শিকার ওই ছাত্রী ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ার সময় তার বাবার বন্ধু শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে গেলে সেখানে প্রথম ধর্ষণে শিকার হয়। এরপর বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তিন বছরে অসংখ্যবার তাকে যৌন নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ ওঠে অভিযুক্ত মকবুলের বিরুদ্ধে। গত বুধবার সকালে তাদের দুজনকে এক সঙ্গে দেখে ঘটনা জনসম্মুখে নিয়ে আসে ধর্ষকের স্ত্রী। 

এ দিকে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে উঠে পড়ে লেগেছে একটি মহল। সোমবার ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে কচাকাটা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার ভিত্তিতে ধর্ষককে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নির্যাতিত ওই স্কুলছাত্রী জানায়, বাবার বন্ধু হওয়ায় মকবুল তাদের বাড়িতে যাওয়া আসা করত। তাদের পরিবারও মকবুলের বাড়িতে যাতায়াত করত। দুই পরিবারের মাঝে সখ্যতা রয়েছে। 

ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী আরও জানায়, মকবুল ও তার স্ত্রী মুক্তা বেগম নাগেশ্বরী উপজেলার সাপখাওয়া গ্রামে মুক্তা বেগমের বাবার বাড়িতে বেড়াতে আমাকে সঙ্গে নিয়ে যায়। সেখানে একটি ঘরে মকবুল ও আমাকে রেখে তার স্ত্রী মুক্তা ঘরের বাইরে থেকে দরজা লাগিয়ে দেয়। সেখানে আমাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে মকবুল। পরে আমি কান্নাকাটি করলে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে লোক দেখানো বিয়ে করে। তারপর থেকে প্রায়ই আমাকে ডেকে নিয়ে মিলনে বাধ্য করত মকবুল। 

সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ভূরুঙ্গামারী সার্কেল) শওকত আলী জানান, ধর্ষণের ঘটনাটি আগেই মিডিয়াতে আসে। মামলা হওয়ার পর আমরা সোর্স লাগাই। অবশেষে সোমবার দুপুরে উপজেলা চত্বরের সাব-রেজিস্ট্রার অফিসের সামনে থেকে অভিযুক্ত মকবুলকে আটক করা হয়।

ওডি/এসএএফ 

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড