• রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

বাজেট নিয়ে গাংনীর বিভিন্ন মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

  এ সিদ্দিকী শাহীন,মেহেরপুর

১৬ জুন ২০১৯, ১১:০৪
গাংনী
গাংনীর সংসদ সদস্য সাহিদুজ্জামান খোকন ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান জাভেদ মাসুদ মিল্টন (দৈনিক অধিকার)

গত ১৩ জুন জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা হয়ে গেল। এই বাজেট ঘোষণার পর থেকে দেশের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে চলছে নানা গুঞ্জন ও আলোচনা সমালোচনা। দেশের বিভিন্ন বাজার ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে মানুষের মুখে এখন শুধু বাজেট নিয়ে চলছে মন্তব্য। অনেকেই এ বাজেটকে বলছেন খুবই বাস্তবমুখী ও জনবান্ধব।  অন্যদিকে অনেকে বলছেন এটা জনগণের সঙ্গে তামাশা আর ধোঁকা এবং এক শ্রেণির পুঁজিবাদীদের ভাগ্য উন্নয়নের বাজেট। 

এবারের বাজেট সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহিদুজ্জামান খোকন বলেন, এবারের বাজেট অত্যন্ত বাস্তবমুখী, জনবান্ধব ও উন্নয়নের বাজেট। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের জন্য একটু অসুবিধা হবে যেমন বিড়ি সিগারেট ও বিলাসবহুল পণ্য এসবগুলোর ওপর করারোপ করা হয়েছে সে কারণে ব্যবসায়ীদের একটা অংশ অখুশি হবে। যেহেতু জনবান্ধব বাজেট এক্ষেত্রে কিছু কিছু ব্যবসায়ীরা অখুশি হতে পারে কিন্তু সামগ্রিকভাবে জনগণের উপকার হবে।

বাজেটের ঘাটতি সম্পর্কে জানতে চাইলে এমপি সাহিদুজ্জামান খোকন বলেন, এবারের বাজেটে ঘাটতির কথা নিয়ে যে কথা এক শ্রেণির মানুষ বলছে; আসলে তারা মানুষের কাছে ভুল তথ্য তুলে ধরছে। বাজেটে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার কথা বলা হয়েছে এবং তা অবশ্যই বাস্তবায়ন হবে। 

প্রস্তাবিত বাজেটে ধনীদের সুবিধা ও নিম্ন ও মধ্যবিত্ত শ্রেণি লোকদের বঞ্চিত করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটা এক শ্রেণির সুবিধাবাদী লোকের কথা। শেখ হাসিনার বাংলাদেশে সকলেই সমান সুবিধা পাবে এখানে কোনো বৈষম্য থাকবে না এমন লক্ষেই বাজেট পেশ করা হচ্ছে। এখানে গ্রামের মানুষ শহরের সকল সুবিধা পাবে এটাকে মাথায় রেখে বাজেটে ব্যাপক অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।
 
বাজেট বেকারদের পুনর্বাসিত করার  জন্য একটি যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে প্রতিটি পরিবারে একজন করে বেকার যুবককে চাকরির ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সেজন্য এবারের বাজেটে যুবকদের জন্য অত্যন্ত যুগোপযোগী বাজেট বলে তিনি মনে করেন।

বাজেটে ব্যাংক ঋণের সুদ হার সিঙ্গেল ডিজিটের বিষয়ে তিনি বলেন, এতে করে আরও উদ্যোক্তা বাড়বে, বেকার সমস্যা কমবে।  ব্যাংক ঋণের সুদের হার আরও কমানো গেলে দেশের বেকার সমস্যা আরও কমে যেত। কারণ তারা কর্মক্ষেত্র সৃষ্টি করতে পারবে। সেই ক্ষেত্রে ঋণের সুদের হার কমানো এবারের বাজেটে খুবই যুক্তিযুক্ত ও যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত।

এই সংসদ সদস্য বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের নিয়ে যে প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে যাতে করে আমাদের কৃষি প্রধান দেশে কৃষি কাজে জড়িত এক শ্রেণির মানুষ রয়েছে তাদের ভাগ্য উন্নয়নে এ বাজেট অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

ঘোষিত বাজেট নিয়ে জেলা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান জাভেদ মাসুদ মিল্টন বলেন, এটা কোনো গণমুখী বাজেট নয়। তবে যারা আওয়ামী লীগমনা ব্যবসায়ী তাদের জন্য এ বাজেট মঙ্গল বয়ে আনবে। এটা জনগণকে শোষণ করার বাজেট বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি নেতা জাভেদ মাসুদ মিল্টন বলেন, এ বাজেটটি হচ্ছে মানুষকে অলৌকিক স্বপ্ন দেখানো দুঃস্বপ্ন আর কি। এ বাজেটে মধ্যবিত্ত নিম্নবিত্তদের প্রতিফলন কী হবে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আসলে বাজেটে ধনী-গরিব কোনো মানুষেরই তেমন কোনো উপকার হবে না। তবে একটি বণিক শ্রেণির উপকার হবে।

বেকার যুবক ও নতুন উদ্যোক্তাদের নিয়ে বাজেট কতটুকু ভূমিকা রাখবে এমন প্রশ্নের জবাবে জাভেদ মাসুদ মিল্টন বলেন, বাজেটে সুনির্দিষ্ট কোনো দিক-নির্দেশনা দেওয়া নেই। অতএব আমরা ভালভাবেই বুঝছি এক্ষেত্রে কারা উপকার পেতে পারে। এ বিষয়ে জনগণকে ধোঁকা দেওয়া হয়েছে বলে তিনি মনে করেন।

ব্যাংক ঋণের সুদের হার এক অংকে নামিয়ে আনার বিষয়ে বিএনপি এই নেতা বলেন,  এটা তো অনেক আগে থেকেই বলছে হবে হবে। কিন্তু সেটাতো আজও বাস্তবায়ন করে নাই। যেহেতু এ সরকার একটি অনির্বাচিত সরকার সেহেতু এ বাজেট কেমন হবে তা সহজেই অনুমেয়। যেহেতু জনগণের দীর্ঘ দিনের দাবি একক সংখ্যায় যদি সুদের হার নামিয়ে আনতে পারে তবে সেটা অবশ্যই ভাল।  

বাজেটে প্রত্যাশা পূরণ সম্পর্কে তিনি বলেন, এক কথায় এটা মানুষ মারার বাজেট। এ বাজেটে কোনো মানুষের প্রত্যাশা পূরণ হয়নি হবেও না।

অর্থনীতিবিদদের দৃষ্টিতে যেটাকে চমক বলা হচ্ছে, সেখানে তরুণদের জন্য একশ কোটি টাকা বাজেট রাখা হয়েছে তো এই টাকাটার বাস্তবায়ন কোনো তরুণদের মাধ্যমে করা হবে তা আগামী বাজেট আসলে বোঝা যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি। জেলা বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান জাভেদ মাসুদ মিল্টন এ বাজেটকে একটি অনির্বাচিত সরকারের গণবিরোধী বাজেট বলে মন্তব্য করেন।

এদিকে সদ্য ঘোষিত বাজেট নিয়ে গাংনী উপজেলার ব্যবসায়ীমহল নানা রকম মন্তব্য করছেন। আবার কেউ কেউ বাজেট সম্পর্কে  কোনো ধারণা নেই বলে এর ভাল খারাপ দিক সম্পর্কে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

মেহেরপুর জেলা বণিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও গাংনীর বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর পৌর কৃষকলীগের সভাপতি বদরুল ইসলাম বুদু এ বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এবারের বাজেট অত্যন্ত সময়োপযোগী, বাস্তবসম্মত ও গণমুখী বাজেট। এ বাজেটে বাংলাদেশের সকল শ্রেণি পেশার মানুষের জীবনমান উন্নয়ন হবে বলে তিনি মনে করেন।

অপরদিকে জেলা বণিক সমিতির সদস্য, বামন্দী বাজার কমিটির সভাপতি ও বামন্দী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আব্দুল আওয়াল বলেন,  এটা একটি অনির্বাচিত সরকারের বাজেট এ বাজেট কখনো গণমানুষের কল্যাণ হতে পারে না। ঘোষিত বাজেটে বাংলাদেশের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে তামাশা করা হয়েছে।  যে সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হতে পারে না তাদের কাছে অনেক কিছুই কল্পনা করা যায় কিন্তু তা কখনো বাস্তবে রূপ নেবে না।

এদিকে সাধারণ জনগণের বেশির ভাগই বাজেট সম্পর্ক কোনো ধারণা রাখেন না বলে বাজেট সম্পর্কে তারা তেমন কোন মন্তব্য করতে পারেননি। তবে তারা মনে করেন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম যদি হাতের নাগালে আসে আয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে জিনিসপত্রের দাম ঠিক থাকে তাহলে সেই বাজেটকে সাধারণ জনগণ স্বাগত জানাবে। অন্যথায় বাজেট কত টাকার হলো কি হলো না সেটা নিয়ে সাধারণ জনগণের মাথা ঘামানোর সময় নেই।

ওডি/ এসএএফইউ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
SELECT id,hl2,parent_cat_id,entry_time,tmp_photo FROM news WHERE ((spc_tags REGEXP '.*"location";s:[0-9]+:"গাংনী".*')) AND id<>69056 ORDER BY id DESC LIMIT 0,5

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড