• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

নিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের দুই শর্ত||এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী  ||উদ্বেগ থাকলেও ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ||ছাত্রলীগের চাঁদাবাজি ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ : রিজভী ||কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের অভিযোগে সীমান্তে‌ হাই অ্যালার্ট||ভারতের পর এবার বিশ্বকে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি পাকিস্তানের||সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক||মেক্সিকোয় কুয়া থেকে ৪৪ মরদেহ উদ্ধার করল বিজ্ঞানীরা||অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : কাদের    ||সৌদির তেল স্থাপনাতে হামলায় ইরানকে দায়ী করল যুক্তরাষ্ট্র

বৃষ্টি হলেই সড়কে স্থবিরতা!

  জাহাঙ্গীর আলম, আনোয়ারা, চট্টগ্রাম

১৩ জুন ২০১৯, ১৪:০৯
চট্টগ্রাম
বেহাল হয়ে পড়েছে সড়ক

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় যাতায়াতে বিভিন্ন সড়কের দুর্দশা কাটেনি। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতাধীন অধিকাংশ সড়ক বেহাল হয়ে পড়েছে। এর ফলে ভোগান্তিতে পড়ছেন স্থানীয় বাসিন্দা ও পথচারীরা। প্রয়োজনের তুলনায় বরাদ্দ কম হওয়ায় সড়ক সংস্কার হচ্ছে না বলে জানা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, চাতরী চৌমুহনী বাজার থেকে সিইউএফএল সড়ক, উপজেলার হাসপাতাল থেকে বটতলী রুস্তমহাট পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ ছুরুতবিবি সড়ক, পিএবি সড়কের মাজার গেইট থেকে বটতলী রুস্তম হাট হাজি জান আলী সড়ক, তজমুল আলী ডিসি সড়ক, বখতিয়ার সড়ক (রায়পুর ইউনিয়ন অংশ), এস জে নিজাম সড়ক, বরুমচড়া-বটতলী সড়ক ও ধানপুরা বাজার হাজী আবদুল জলিল সড়ক দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে।

বর্ষা শুরু হলে বৃষ্টিতে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ এসব সড়কগুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার সম্ভবনা। এ অবস্থায় জনদুর্ভোগ ও বাড়বে।

সিএনজি চালক নবী হোসেন বলেন, বৃষ্টি হলেই এসব সড়কে গাড়ি চালানো বন্ধ করে দিতে হয়। সড়কে গাড়ি নামালেই দুঃখের সীমা থাকে না।

আনোয়ারা স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) সূত্র জানায়, উপজেলায় ৫৩০ কিলোমিটার সড়ক রয়েছে। তার মধ্যে ১৪৭ কিলোমিটার পিচ ঢালাই (কার্পেটিং), ৬৪ কিলোমিটার ইটের রাস্তা (ব্রিক সলিং),৭ কিলোমিটার সিসি এবং ৩১৬ কিলোমিটার কাঁচা সড়ক রয়েছে। এসবের মধ্যে নয়টি উপজেলা সড়ক, ১৬টি ইউনিয়ন পর্যায়ের সড়ক এবং ১০টি গ্রামীণ সড়ক রয়েছে। গত পাঁচ বছরে কিছু কিছু সড়কের অংশ সংস্কার করা হলেও উপজেলার বড়  সড়কগুলোর সংস্কার হয়নি।

সূত্র আরও জানায়, উপজেলার বিভিন্ন স্থানের পুরোনো সড়ক মেরামত ও নতুন সড়ক নির্মাণের জন্য গত ৫ বছরে যে বরাদ্দ দিয়েছে তা প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম। এ সময়ের মধ্যে বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রাম ভিত্তিক কিছু সড়ক নতুন করে পিচ ঢালাই, আরসিসি ঢালায় এবং ইট বিছানো হয়।

আনোয়ারার ১১ ইউনিয়নের মধ্যে রায়পুর ইউনিয়নের দশা একেবারেই শোচনীয়। ইউনিয়নে কিছু সড়ক একেবারে বিলীন হয়ে যায়। পূর্বগহিরা, দক্ষিণ গহিরা ও সরেঙ্গা গ্রামে বৃষ্টি হলেই মানুষের যাতায়াত বন্ধ হয়ে যায়।

জানতে চাইলে আনোয়ারা উপজেলা প্রকৌশলী তসলিমা জাহান বলেন, ‘সড়ক সংস্কারে যতটুকু বরাদ্দ দরকার আমরা তা পাইনি বলেই সড়কের করুণ দশা হয়েছে। তবে বর্তমানে ২টি সড়কের সংস্কার কাজ চলছে। আরও কিছু সড়কের দরপত্রের প্রক্রিয়া চলছে, দরপত্রের পর এসব পুরোনো সড়ক সংস্কার করা সম্ভব হবে। বাকি সড়কের বরাদ্দের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

ওডি/আরবি

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড