• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

নিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের দুই শর্ত||এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী  ||উদ্বেগ থাকলেও ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ||ছাত্রলীগের চাঁদাবাজি ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ : রিজভী ||কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের অভিযোগে সীমান্তে‌ হাই অ্যালার্ট||ভারতের পর এবার বিশ্বকে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি পাকিস্তানের||সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক||মেক্সিকোয় কুয়া থেকে ৪৪ মরদেহ উদ্ধার করল বিজ্ঞানীরা||অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : কাদের    ||সৌদির তেল স্থাপনাতে হামলায় ইরানকে দায়ী করল যুক্তরাষ্ট্র

শায়েস্তাগঞ্জের হাজী কমপ্লেক্সে আগুন

  শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

১৬ মে ২০১৯, ১৩:০৭
পোড়া ভবন
আগুনে পোড়া ভবনের সামনে জনসাধারণ (ছবি : দৈনিক অধিকার)

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ শহরে আগুনে আট দোকান পুড়ে প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এতে পাঁচ দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শহরের দাউদনগর বাজরের হাজী কমপ্লেক্সে এ ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

মাকের্টের নৈশপ্রহরী আব্দুল মজিদ বলেন- বিকট শব্দে ঘুম ভাঙতে দেখি শামীম টেলিকম থেকে আগুন বের হচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে আগুন ছড়িয়ে পড়ে পাশের দোকানগুলোতে। এতে বেবি চয়েজ, আফিল ক্লথ স্টোর, সিকদার পয়েন্ট, আল আমিন ওয়াচ, শাপলা ইলেক্টনিক্স এ আগুন ধরে যায়।

হাজী কমপ্লেক্সের মালিকের ছেলে হাবিবুর রহমান সৌরভ জানান- মার্কেটের কাপড়ের দোকানগুলোতে ঈদের জন্য লক্ষ লক্ষ টাকার হাট করা হয়েছে। আগুনে কাপড়ের দোকানগুলোর সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে। এর মধ্যে সিকদার পয়েন্টের ৭০ লক্ষ টাকা, আলিফ ক্লথ ষ্টোরের ৬০ লক্ষ, বেবি চয়েজে ৩০ লক্ষ, শামীম টেলিকমে ৫ লক্ষ, আল আমিন ওয়াচে ৫০ হাজার, শাপলা ইলেক্ট্রনিক্সে ১ লক্ষ টাকার মালামালের পুড়ে ক্ষতি হয়েছে।

শাপলা ক্লথ স্টোরের সেলসম্যান রুস্তম আলী জানান, ঈদের জন্য গত দুইদিন ৩০ লক্ষ টাকার মাল কেনা হয়েছে। আগুনে সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

বেবি চয়েজের মালিক হারুন মিয়া জানান, তার দোকানের সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। অবশিষ্ট কিছুই থাকেনি আগুনের শিখা থেকে। 

মার্কেটের মালিক হাজী জিতু মিয়া জানান, আগুনে মার্কেটের সার্টার, ছাদ, আসবাপত্রের প্রায় ১০ থেকে ১৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

শায়েস্তাগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ আরিফুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে, তবে ধারণা করা হচ্ছে শামীম টেলিকম অথবা বেবি চয়েজের আইপিএস থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। 

তিনি জানান, শায়েস্তাগঞ্জ ফায়ার স্টেশন থেকে দুইটি ও হবিগঞ্জ থেকে তিনটি ইউনিট আগুন নিভাতে কাজ করেছে। আগুনে কোটি টাকার মালামাল পুড়ে ক্ষতি হয়েছে এবং প্রায় ৫ কোটি টাকার মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।

ওডি/এসজেএ

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড