• বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন

মরণ ফাঁদ ব্রিজ দিয়ে চলাচল করছে ২ উপজেলার মানুষ 

  বরগুনা প্রতিনিধি

২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১২:০৫
বেইলি ব্রিজ
ভাঙা বেইলি ব্রিজ দিয়ে চলাচল করছে পথচারী ( ছবি : দৈনিক অধিকার )

বরগুনার আমতলী উপজেলার আড়পাঙ্গাশিয়া নদীর ওপর নির্মিত বেইলি ব্রিজ এখন মরণ ফাঁদ। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে আমতলী ও তালতলী উপজেলার দুই লাখ মানুষ। 

আমতলী উপজেলা এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৯৯২ সালে আমতলী ও তালতলী উপজেলার সংযোগ সড়কের আড়পাঙ্গাশিয়া নদীর ওপর বেইলি ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। ব্রিজ দিয়ে দুই উপজেলার প্রায় দুই লাখ মানুষের চলাচল। প্রতিদিন ঢাকাগামী পরিবহনসহ ব্রিজটি দিয়ে স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজগামী শিক্ষার্থীরাও পারাপার হচ্ছে। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ব্রিজ নির্মাণের ২৭ বছরেও তেমন কোনো মেরামত না হওয়ায় বর্তমানে ব্রিজের বেহালদশায় পরিণত হয়েছে। যেন এক মৃত্যুর ফাঁদ। গত তিন বছর ধরে ব্রিজটি বেহালদশায় পড়ে থাকলেও নেয়া হচ্ছে না মেরামতের কোনো উদ্যোগ। লোহার ব্রিজটির পাটাতন অ্যাঙ্গেল ভেঙে পরায় ও নাট বল্টু খুলে যাওয়ায় ব্রিজ নড়বড়ে হয়ে গেছে। 

আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি হুমায়ূন কবির দৈনিক অধিকারকে বলেন, ব্রিজের অবস্থা এতই নড়বড়ে বেহালদশা যে কোন সময় ভেঙে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই দ্রুত ব্রিজটি সংস্কারের দাবি জানান তিনি।

তালতলী উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. রেজবিউল কবির জোমাদ্দার বলেন, তালতলীর প্রায় দেড় লাখ মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ব্রিজটিতে চলাচল করছে। তাছাড়া ব্রিজটি ভেঙে গেলে তালতলী উপজেলার সাথে সারা দেশের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যাবে। তাই দ্রুত ওই ব্রিজটি মেরামত করে মানুষের যাতায়াতের পথ সুগম করার দাবি জানান তিনি।

আমতলী উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশলী মো. নজরুল ইসলাম জানান, ব্রিজটি মেরামতের জন্য ইতোমধ্যে দরপত্রের আহ্বান করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে ব্রিজের কাজ শুরু হবে। 

ওডি/এসএএফ 

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড