• মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৬  |   ১৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

শিরোনাম :

থেরেসা মে : ব্রেক্সিট ইস্যুতে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভোট জানুয়ারিতে||'নির্বাচনে জনগণের অধিকার নিশ্চিত করতে ব্রিটিশ সরকারের পদক্ষেপ আহ্বান'||রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রস্তাব আলোচনা বর্জন করেছে চীন ও রাশিয়া||৩০০ কোটি টাকায় দুটি রুশ হেলিকপ্টার কিনছে বিজিবি||বরখাস্ত ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কোচ হোসে মরিনহো||সু চি’কে দেওয়া পুরস্কার প্রত্যাহার করল দক্ষিণ কোরিয়া||নির্বাচনি পরিবেশ স্বাভাবিক, লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডও বিদ্যমান : সিইসি||জামায়াতের ২২ নেতার ‘ধানের শীষ’ বাতিলে আদালতে রুল||যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে বসেছে বিএনপি   ||প্রতিশোধের রাজনীতি বন্ধের অঙ্গীকার করল বিএনপি 

প্রধান শিক্ষকের গাফিলতি, পরীক্ষা দিতে পারল না ৩ শিক্ষার্থী

  কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:১৭

কুড়িগ্রাম
পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেননি ৩ জন শিক্ষার্থী

এবারের চলতি পিএসসিতে ছয়টি কেন্দ্রে ৩,৫৮৯ জন ও  এবতেদায়ীতে ৪৯৫ জন পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করার কথা থাকলেও অনুপুস্থিত পিএসসিতে ২০৪ ও এবতেদায়ীতে ৮২ জন।

অপরদিকে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে প্রধান শিক্ষক আফরোজা বেগম প্রিয়ার গাফিলতির কারণে প্রবেশপত্র না আসায় চলতি পিইসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেননি ৩ জন শিক্ষার্থী। পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষার্থীরা উপজেলার চন্দ্রখানা সরকার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির নিয়মিত শিক্ষার্থী। গতকাল রবিবার ফুলবাড়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় (পাইলট) কেন্দ্রে মোট ৩০ জন ছাত্র/ছাত্রী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার কথা থাকলেও সেখানে পরীক্ষার্থী ছিলেন ২৭ জন। 

কিন্তু গত শনিবার ওই শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা জানতে পারেন তাদের সন্তানদের প্রবেশপত্র আসেনি। সারা বছর পড়াশোনা করে প্রস্তুতি নিলেও শেষ মুহূর্তে পরীক্ষায় অংশ নিতে না পারায় সন্তানদের ভবিষ্যত নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন অভিভাবকরা। 

পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষার্থীরা হলো উপজেলার কুমারপাড়া গ্রামের বেলাল হোসেনের ছেলে রিয়াজুল ইসলাম পলাশ ক্লাস রোল নম্বর-২৩, একই গ্রামের গনেশ চন্দ্রের মেয়ে শিমু ক্লাস রোল-১২ এবং রতন চন্দ্রের মেয়ে পল্লবী ক্লাস রোল নম্বর-২৭। 

পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষার্থী রিয়াজুল ইসলাম পলাশের মা পলি বেগম বলেন, পিইসি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আমার ছেলে ফরম পূরণ করেছে, পরীক্ষার জন্য স্কুল থেকে তাকে একটি হার্ডবোর্ডও দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পরীক্ষার আগের দিন জানতে পারলাম তার প্রবেশপত্র আসেনি। এটা প্রধান শিক্ষকের অবহেলার কারণে হয়েছে। আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।
 
চন্দ্রখানা সরকার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আফরোজা বেগম প্রিয়া জানান, ওই শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা তাদের নাম পাঠাতে নিষেধ করায় তাদের নাম পাঠানো হয়নি, তাই প্রবেশ পত্র আসেনি।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার স্বপন কুমার অধিকারী জানান, আমি সব শিক্ষার্থীর প্রবেশপত্র দিয়েছি কোনো পরীক্ষার্থী যদি প্রবেশপত্র না পায় তার দায়-দায়িত্ব প্রধান শিক্ষককে নিতে হবে। 

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. মাছুমা আরেফিন জানান, আমি ঘটনাটি শুনেছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড