• শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ভুয়া কাবিনে বিয়ে করে শারীরিক সম্পর্ক করেছে পুলিশ সদস্য!

  শুভংকর পোদ্দার, হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ):

০৪ মে ২০২৪, ১৫:০৬
পুলিশ

মানিকগঞ্জে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাসিন্দা নারীর সাথে ভুয়া কাবিননামা দিয়ে বিয়ের নাটক সাজিয়ে স্ত্রী পরিচয়ে শারীরিক সম্পর্ক এবং প্রতারণার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ সুপার, জেলা লিগ্যাল এইডে অভিযোগের পরে অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সদর আমলী আদালতে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী নারী।

অভিযুক্ত সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আকবর আলী খন্দকার বর্তমানে হরিরামপুর থানায় কর্মরত আছেন।

লিগ্যাল এইডের প্রতিবেদন, মামলা ও ভুক্তভোগী সূত্রে জানা যায়, এক বছর আগে আমিনুর ইসলাম নামের এক ব্যক্তিকে ২ লাখ টাকা ধার দিয়েছিলেন ভুক্তভোগী নারী। সেই টাকা কথামত ফেরত না দেওয়ায় তিনি আমিনুরের বিরুদ্ধে সদর থানায় অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে সদর থানায় কর্মরত সহকারী উপ-পরিদর্শক আকবর আলী খন্দকারের সাথে পরিচিত হন৷ পরবর্তীতে তারা মোবাইলে বিভিন্ন সময় কথা বলতেন এবং আলী আকবরের কথামতো বিভিন্ন জায়গায় দেখা করতেন। এর মধ্যে এএসআই আকবর আমিনুরের কাছে থেকে ভুক্তভোগী নারীকে ১ লাখ টাকা আদায় করে দেন। কথা ও দেখা করার মাধ্যমে তারা প্রেম ও শারীরিক সম্পর্কে জড়ান। এরপর, গত বছরের ১০ অক্টোবর মায়ের অসুস্থতার কথা বলে ভুক্তভোগীর কাছে থেকে ২ লাখ ২০ হাজার টাকা নেন আকবর।

গত বছরের ১৪ নভেম্বর রাত ৯টার দিকে এক ব্যক্তিকে কাজী পরিচয় দিয়ে ভুক্তভোগীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাড়িতে নিয়ে আসেন এএসআই আকবর আলী খন্দকার। তখন ৫ লাখ টাকা কাবিন করিয়া কাবিননামায় ভুক্তভোগীর স্বাক্ষর নেয় এবং আকবর ভুক্তভোগীকে বলে আজ-থেকে আমরা স্বামী-স্ত্রী। তবে, চাকরির ক্ষতি হবে বলে আপাতত বিয়ের কথা গোপন রাখার কথাও জানান আকবর। এরপর থেকে নিয়মিত ভুক্তভোগীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের বাড়িতে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস ও শারীরিক সম্পর্ক করেন।

পরবর্তীতে গত ৩০ নভেম্বর তার স্ত্রী হিসেবে পরিবারের সাথে পরিচয় করাতে এবং সামাজিক মর্যাদা দিতে বললে আকবর তাকে স্ত্রী হিসেবে পরিচয় দিতে অস্বীকার করেন এবং বিয়ের কথা অস্বীকার করেন। এরপর থেকে ভুক্তভোগীর সাথে যোগাযোগও বন্ধ করে দেন। যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে ২৬ ডিসেম্বর পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। সেখানে অগ্রগতি না দেখায় ২৮ জানুয়ারি জেলা লিগ্যাল এইডে অভিযোগ দায়ের করলে আকবর আলী ভুক্তভোগীকে টাকা দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দিয়ে আপস করার চেষ্টা করেন। সেখানে মীমাংসায় ব্যর্থ হয়ে গত ২৪ এপ্রিল তিনি আদালতে মামলা দায়ের করেন।

ভুক্তভোগী নারী বলেন, "বিয়ের ঘটনার আগে আকবর আলী খন্দকার মানিকগঞ্জ কোর্টের পাশে সিটি ড্রিম এন্ড কনভেনশন সেন্টারের আবাসিক হোটেলে নিয়ে বিয়ের আশ্বাসে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করেছেন। পরবর্তীতে ভুয়া কাবিননামা ও বিয়ের নাটক সাজানোর পরে বহুবার আমার বাসায় এসে আমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক ও বসবাস করেছেন। আমরা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে সংসার করেছি। স্ত্রী হিসেবে সামাজিক স্বীকৃতি চাইলে সে এখন আমাদের বিয়ে অস্বীকার করে বলে যে, তুমি আমার স্ত্রী না। ভুয়া কাবিনে আমার স্বাক্ষর নিয়েছে। আমি অভিযোগ-মামলা করার পর থেকে সে আমাকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি ও বিভিন্ন প্রকার হুমকি দিচ্ছেন। আমি আকবর আলী খন্দকারের কাছে স্ত্রীর স্বীকৃতি ও মর্যাদা চাই।"

এবিষয়ে হরিরামপুর থানার এ এস আই আকবর আলী খন্দকার বিষয়টি সম্পর্কে কিছু জানাতে অপারগতা প্রকাশ করে, মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপারের সাথে কথা বলতে বলেন।

মানিকগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান বলেন, বিষয়টি পিবিআই কে তদন্ত করতে দেয়া হয়েছে, পিবিআই রিপোর্ট দিবে। আর আমাদের এখানে যেটা আছে, সেটা আমরা বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেব।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড