• বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মসজিদের গাছ কেটে নিলো স্কুল শিক্ষক!

  হুমায়ুন কবির সূর্য, কুড়িগ্রাম:

০৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৩:১৭
মসজিদের গাছ কেটে নিলো স্কুল শিক্ষক!

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে এক প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মসজিদের রোপনকৃত মেহগনি গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। মঙ্গলবার বিকাল ৫ টার দিকে উপজেলার পশ্চিম ফুলমতি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে,পশ্চিম ফুলমতি উচ্চ বিদ্যালয় ও পশ্চিম ফুলমতি জামে মসজিদের সীমানা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছে। এ অবস্থায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজার রহমানের নেতৃর্ত্বে স্থানীয় কিছু যুবক সীমানার মধ্যে দন্ডায়মান ওই বিশাল আকৃতির মেহগনি গাছ কাটতে শুরু করেন। সম্পূর্ন গাছটি কাটার উদ্দেশ্যে তারা গাছের মোটা মোটা ডাল কেটে বিদ্যালয় মাঠে স্তুপ করে রাখেন। খবর পেয়ে মসজিদ কমিটি ও স্থানীয় লোকজন গাছ কাটতে বাধা দেয় । এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

মসজিদ কমিটির সভাপতি ও পল্লী চিকিৎসক মো. ইয়াকুব আলী জানান, এটা আমাদের মসজিদের রোপনকৃত গাছ। প্রধান শিক্ষক আজিজার রহমান মাস্তান বাহিনী দিয়ে গাছটি কাটার জন্য বড় বড় ডাল কেটে ফেলেন। মসজিদ কমিটির সদস্য ও স্থানীয় জনগণ গাছের কাটা খন্ডগুলো আটক করেছে। তিনি আইনের তোয়াক্কা না করেই বিশাল আকৃতির জীবিত গাছটি কাটার পায়তারা করছেন।

পশ্চিম ফুলমতি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আজিজার রহমান গাছটি তাদের রোপনকৃত দাবি করে জানান, এটি বিদ্যালয়ের সীমানার ভেতরে। বাউন্ডারী ওয়ালের ক্ষতি হচ্ছে বিধায় গাছের ডাল কেটে ফেলা হয়েছে। বিষয়টি লিখিতভাবে ইউএনও স্যারকে জানিয়েছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেহেনুমা তারান্নুম জানান, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সেখানে তহশিলদারকে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড