• মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

৩ আরসা সন্ত্রাসী রোহিঙ্গা আটক, অস্ত্র উদ্ধার 

  মিজানুর রহমান মিজান, টেকনাফ (কক্সবাজার)

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭:৫৭
আরসা সন্ত্রাসী

বাংলাদেশে অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোর বর্তমানে আরসার সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবুল হাশিম ও আরসা প্রধান আতাউল্লাহ জুনুনির দেহরক্ষী’সহ তিন আরসা সন্ত্রাসী রোহিঙ্গা ক্যাম্প-২০ এক্সটেনশনের একটি গোপন আস্তানা থেকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব।

এসময় ২টি বিদেশী অস্ত্র,১টি দেশীয় তৈরী এলজি এবং ৪ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করেছে র‍্যাব ১৫ কক্সবাজার।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন,আবুল হাসিম পিতা-মোঃ নুর, ৪নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প, ব্লক-জি/৯, উখিয়া,হোসেন জোহার প্রকাশ আলী জোহার পিতা-মৃত আলী আহম্মদ, ১২নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প, ব্লক-এইচ/০১, বালুখালি-২, উখিয়া,মোঃ আলম প্রকাশ শায়ের মুছা (৩৫), পিতা-নূর আলম, ৬নং রোহিঙ্গা ক্যাম্প, ব্লক-ডি/৭, উখিয়া, কক্সবাজার।

বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারি সকালে এ তথ‍্য নিশ্চিত করে সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব বলেন, বর্তমানে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মূর্তিমান আতঙ্কের নাম আরসা’র সন্ত্রাসী গোষ্ঠি। রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে অধিকাংশ হত্যা, অপহরণ, ডাকাতি, চাঁদাবাজি ও মাদকসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িত রয়েছে আরসা’র সন্ত্রাসী গোষ্ঠি। রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের অপরাধ দমনে সার্বক্ষনিক মনিটরিং’সহ র‌্যাব-১৫ শুরু থেকে আরসা’র সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে সচেষ্ট রয়েছে।

র‌্যাব-১৫ এর একটি আভিযানিক দল রাষ্ট্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার সহযোগীতায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কয়েকজন আরসা সদস্য কক্সবাজারের উখিয়ার ২০ এক্সটেনশন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি ঘরে অবস্থান করছে। উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ তারিখ মধ্যরাতে র‌্যাব-১৫, কক্সবাজার এর একটি চৌকস আভিযানিক দল উক্ত স্থানে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি বুঝতে পেরে দিক-বিদিক কৌশলে দ্রুত পালায়নের চেষ্টাকালে বাংলাদেশে অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোর বর্তমানে আরসার সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবুল হাশিম ও আরসা প্রধান আতাউল্লাহ জুনুনির দেহরক্ষী’সহ তিন আরসা সন্ত্রাসী গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

উদ্ধার করা হয় ২টি বিদেশী অস্ত্র, ১টি দেশীয় তৈরী এলজি এবং ৪ রাউন্ড কার্তুজ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, গ্রেফতারকৃতরা জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মায়ানমারের নাগরিক। গ্রেফতারকৃত আবুল হাসিম ২০১৭ সালে মায়ানমারের চিংড়িপ্রাং থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থী হিসেবে বাংলাদেশে প্রবেশ করে এবং ক্যাম্প-০৪, ব্লক-জি/৯ এ স্বপরিবারে বসবাস শুরু করে। পরবর্তীতে ২০১৮ সালে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী সংগঠন আরসায় যোগদান করে। সে প্রথম দিকে নেট গ্রুপের সদস্য হিসেবে কাজ করতো। এরপর ২০২০-২২ পর্যন্ত ব্লক জিম্মাদারের দায়িত্বে ছিল।

তার নেতৃত্বে ক্যাম্প-৪ এবং ক্যাম্প-৪ (বর্ধিত) এ আরসা কর্তৃক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য নতুন করে ঘাঁটি তৈরী করে। এখানে উল্লেখ্য যে, র‌্যাব ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক একেক করে আরসার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দ গ্রেফতার হওয়ায় সন্ত্রাসী সংগঠনটির নেতৃত্বের সংকট দেখা দেয়। ফলশ্রুতিতে করিম উল্লাহ প্রকাশ কলিম উল্লাহ বাংলাদেশে অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোর আরসার নেতৃত্ব গ্রহণ করে এবং গ্রেফতারকৃত আবুল হাসিম সেকেন্ড ইন কমান্ড হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করে। সে আরসার শীর্ষ নেতা ওস্তাদ খালিদের নির্দেশনায় ক্যাম্পে সশস্ত্র দায়িত্ব পালন করে থাকে।

এছাড়া সে বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক গ্রেফতার হয়ে সাজাপ্রাপ্ত আরসা সদস্যদের জামিনে মুক্তির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকে এবং এ সংক্রান্তে ও আরসার সাংগঠনিক কাজে মায়ানমারে যাতায়াত করতো।

সে আরসার সিনিয়র নেতৃবৃন্দদের নির্দেশনা মোতাবেক আরসার আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্রিক শরণার্থী শিবিরে সহিংসতা সৃষ্টি, মারামারি, প্রতিপক্ষ গ্রুপকে ক্যাম্প এলাকা থেকে বিতাড়িত করার জন্য দফায় দফায় সশস্ত্র হামলা, আরসার টার্গেটকৃত মাঝি, সাধারণ রোহিঙ্গা ও বিত্তশালী রোহিঙ্গাদের হত্যা ও অপহরণসহ নানাবিধ অপরাধমূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করতো। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিতে সন্ত্রাসী কার্যক্রম শেষে সে আত্মগোপনে চলে যেত। গ্রেফতারকৃত আবুল হাসিম ৪নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এরশাদ, ইমাম হোসেন ও সাব মাঝি সৈয়দ আলম হত্যা, ৩নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আব্দুল হামিদ, মোঃ কাসিম ও ইউনুস হত্যা এবং ১৭নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাছিম হত্যার সাথে জড়িত বলে রেকর্ডপত্র যাচাইয়ান্তে প্রাথমিকভাবে তথ্য পাওয়া যায়। এ সংক্রান্তে তার বিরুদ্ধে ৭টি মামলা রয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড