• রোববার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সংসারের বোঝা মনে করে বৃদ্ধ মাকে হত্যা, স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুদন্ড

  সোহেল রানা, সিরাজগঞ্জ

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:৩০
স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যুদন্ড

সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে সংসারের বোঝা মনে করে ফাতেমা খাতুন (৮৫) নামে বৃদ্ধ মাকে হত্যার দায়ে ছেলে ও ছেলে বউকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বেলা সোয়া ১টার দিকে সিরাজগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তৃতীয় আদালতের বিচারক কানিজ ফাতিমা এই দন্ডাদেশ দেন। আদেশে বলা হয় আসামিদের প্যানাল কোডের ৩০২/৩৪ ধারায় দন্ডযোগ্য অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করে মৃত্যুদন্ড প্রদান করা হলো। মাননীয় হাইকোর্ট কর্তৃক নিশ্চিত করা সাপেক্ষে মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত আসামীদেরকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রেখে দন্ড কার্যকর করার নির্দেশ দেওয়া হলো।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, কাজিপুর উপজেলার রেহাইশুরিবেড় গ্রামের মৃত মকছেদ আলী মন্ডলের ছেলে মো. আব্দুস সামাদ (৬৫) ও আব্দুস সামাদের স্ত্রী মোছা. রশিদা খাতুন (৬০)। রায় ঘোষণার সময় আসামীরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

ওই আদালতের পেশকার আব্দুল মমিন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট শামছুল আলম জানান, ২০১৬ সালের ১ নভেম্বর সকালে রেহাইশুড়িবেড় গ্রামের আব্দুস সামাদের বাড়ি থেকে ফাতেমা খাতুনের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ভিকটিমের ছেলে আব্দুর রহিম বাদী হয়ে অজ্ঞানামা আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তে বেরিয়ে আসে ছেলে আব্দুস সামাদ ও ছেলের বউ রশিদা খাতুন সংসারের বোঝা মনে করে ফাতেমাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ৩১ অক্টোবর গভীর রাত সাড়ে তিনটার দিকে রশিদার পরামর্শে সামাদ তার মা ফাতেমাকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে পাশের একটি ঘরে নিয়ে জোর করে শোয়াইয়া ফেলে। তার মুখে পরনের কাপড় দিয়ে পেচিয়ে সামাদ পা ধরে রাখে এবং রশিদা বটি দা দিয়ে গলা কেটে তাকে হত্যা করেন। নিহতের গোঙানির শব্দে তার নাতিবউ রুনা খাতুন জেগে উঠে তার গলাকাটা মৃতদেহ দেখতে পায়। তখন রশিদা ও সামাদ তাকে বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য হুমকি দেয়।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মো. আব্দুর রহিম বাদী হয়ে প্রথমে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। পরে পুলিশী তদন্তে বেরিয়ে আসে নিহতের ছেলে ও ছেলে বউ গলাকেটে তাকে হত্যা করেছে। তাদের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। শুনানী শেষে বিচার আজ এই দন্ড দেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড