• শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ১৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

৩০ বছর যাবত ১০ টাকায় চিকিৎসা দিচ্ছেন ওমল

  কাজী কামাল হোসেন, ব্যুরো প্রধান, রাজশাহী:

২৪ জানুয়ারি ২০২৪, ১৫:৩০
১০ টাকায় চিকিৎসা

৩০ বছর যাবত নামমাত্র ১০ টাকায় চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন নওগাঁয় ওমল কুমার রায় নামে এক পল্লী চিকিসৎক। চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের কাছে টাকা না থাকলেও দেন ফ্রী ঔষধ ও বাড়ি যাওয়ার ভাড়া। এতে করে তিনি সবার কাছে ১০ টাকার গরিবের ডাক্তার হিসেবে পরিচিত। তার এই চিকিৎসা সেবা নিয়ে খুশি রোগী ও এলাকাবাসীরাও।

পল্লী চিকিসৎক অমল কুমার রায়ের গ্রামের বাড়ি নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার বিলাশবাড়ী ইউনিয়ের কটকবাড়ী গ্রামে। সেখানে নিজ বাড়িতে বসেই সকাল থেকে রাত পর্যন্ত তিনি এই চিকিৎসা সেবা দেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়- অমল কুমার রায়ের বাড়ির সামনে জড়ো হয়েছেন ১০ থেকে ১৫ জন নারী-পুরুষ। তারা সবাই বিভিন্ন এলাকা থেকে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা নিতে এসেছেন। আর ওমল কুমার রায় একটি ছোট ঘরে বসে রোগীদের দেখছেন। তার কক্ষ থেকে অনেকেই ওষুধের ব্যবস্থাপত্র নিয়ে বের হচ্ছেন আবার কাউকে তিনি নিজেই ঔষধ দিচ্ছেন। রোগী দেখার বিপরীতে কারো কাছ থেকে নিচ্ছেন নামমাত্র ১০ টাকা ফি আবার কারো কাছ থেকে কোনো ফিও নিচ্ছেন না। দিচ্ছেন ফ্রী ঔষধও।

রোগী দেখার ফাঁকেই কথা হয় পল্লী চিকিৎসক অমল কুমার রায়ের সঙ্গে। তিনি জানান, ছোট বেলা থেকেই তার ইচ্ছে ছিল ডিগ্রীধারী বড় চিকিৎসক হয়ে মানুষের সেবা করবেন। কিন্তু অর্থের অভাবে সেই স্বপ্ন তার পূরণ হয়নি। তবে থেমে থাকেনি তিনি। নিজের চেষ্টায় বিএ পাশ করে এক এমবিবিএস ডাক্তারের শরণাপন্ন হন। সেখানে ৫ বছর সহকারির কাজ করে চিকিৎসার প্রাথমিক ধারণা নেয়। পরে ৬ মাসের আরএমপি কোর্স সম্পন্ন করে নিজ গ্রামে শুরু করেন চিকিৎসা সেবা। এভাবেই ৩০ বছর ধরে নামমাত্র ১০ টাকায় চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

অমল কুমার রায় বলেন- জ্বর, সর্দি, কাশ, বাতব্যাথা, প্যারালাইসিস, আঘাত লাগা, শ্বাসকষ্ট, চুলকানিসহ ছোটখাটো প্রায় সব ধরনের চিকিৎসা করেন। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ১০০ থেকে ১৫০ জন রোগী দেখেন তিনি। নামমাত্র ১০ টাকা ফি নেয় রোগীদের কাছ থেকে। আবার কোন রোগীর কাছে টাকা না থাকলে রোগীদের কিছু জরুরি ওষুধ বিনামূল্যে দেয়। এমনকি ফ্রী ঔষধ ও বাড়ি যাওয়ার ভাড়াও দিয়ে দেন। তার এই চিকিৎসা সেবায় অনেকেই ভালো হন এবং উপকৃত হন। তাই আজীবন এভাবেই মানুষকে সেবা দিতে চান তিনি।

তার চেম্বার থেকে চিকিৎসা সেবা নিয়ে বের হলে কথা হয় ফুলবানুর সাথে। এসময় তিনি বলেন- আমি অসুস্থ হলে অনেক ভালো ভালো ডাক্তারের কাছ থেকে ঔষধ খাইছিলাম কিন্তু আমার অসুখ ভালো হয়নি। পরে ওমল ভাইয়ের এখানে এসে ১০ টাকা দিয়ে চিকিৎসা নিয়ে ভালো আছি। আজকে আবার একটু এসে দেখেলাম।

আজিজুল হোসেন নামে চিকিৎসা নিতে আসা আরেক রোগী বলেন- এক্সিডেন্ট করে আমার পায়ের সমস্যা হয়। রাজশাহীতে একটা বড় ডাক্তার দেখায় কিন্তু অনেক টাকার কথা বলে। পরে ওখান থেকে চলে আসার পর মানুষের কাছ থেকে শুনি যে ওমল ডাক্তার খুব ভালো চিকিৎসা করেন ১০ টাকা ভিজিট নিয়ে। পরে এখানে এসে একবার ঔষধ খেয়ে অনেক আরাম পাইছি। আরাম পাওয়ার জন্য আবার আসছি।

স্থানীয় শান্তনা নামে এক নারী বলেন- ওমল ডাক্তার একজন গরীব মানুষের ডাক্তার। তিনি টাকার কোন পরোয়া করেন না। যখনই কোন রোগী আসে তখনই তাকে তিনি চিকিৎসা দেন খুবই আন্তরিকতার সাথে। আমরাও এখানে এসে চিকিৎসা নেয়। টাকা না থাকলেও অনেক সময় তিনি গরীব মানুষদের বিনা টাকায় চিকিৎসা দেন। প্রয়োজনে নিজের পকেট থেকে টাকা দিয়ে তিনি তাদের বাড়ি পাঠিয়ে দেন। ওমল কুমার ১০ টাকার গরিবের ডাক্তার হিসেবে পরিচিত আমাদের কাছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড