• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সিরাজগঞ্জ-৩: নৌকাকে চোঁখ রাঙ্গাচ্ছে ঈগল

  সোহেল রানা, সিরাজগঞ্জ:

০৪ জানুয়ারি ২০২৪, ১৭:২৮
নৌকাকে চোঁখ রাঙ্গাচ্ছে ঈগল

শস্য ও মস্য ভান্ডার হিসাবে খ্যাত চলন বিলাঞ্চলের তাড়াশ ও রায়গঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সিরাজগঞ্জ-৩ আসনে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রচারনার শেষদিনে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারনা জমে উঠেছে নির্বাচন। প্রার্থী ও সমর্থকরা দিনরাত প্রচারনার মাধ্যমে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে আনার জন্য উদ্বুদ্ধকরনসহ দিচ্ছেন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি। আসনটিতে পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করলেও মূলত আওয়ামী লীগ থেকে মনোনীত ডা: আব্দুল আজিজের নৌকা ও কৃষকলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি কৃষিবিদ সাখাওয়াত হোসেন সুইটের ঈগলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। পরিবারতন্ত্র ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়নের অভিযোগ এনে দলের একাংশের নেতাকর্মীরা নৌকা ডোবাতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন।

তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যেও এর চরম প্রভাব পড়েছে। এ কারনে ভোটের লড়াইয়ে ঈগল প্রতীক চোখ রাঙাচ্ছে নৌকাকে। আর উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে ভোট প্রার্থনা করছেন নৌকার কর্মী-সমর্থকরা। এই দুই প্রার্থীর মধ্যেই জয়-পরাজয় নির্ধারণ হবে।

রায়গঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হালিম খান দুলাল ও দেশীগ্রাম ইউপির চেয়ারম্যান জ্ঞানেন্দ্রনাথ বসাক বলেন, এমপি থাকা কালে ডা: আব্দুল আজিজ ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করেনি। অতীতে বিভিন্ন নির্বাচনে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থীর জন্ম দিয়েছেন। আজ নিজেই স্বতন্ত্র প্রার্থীর কবলে পড়েছেন। জনপ্রিয় মানুষ দেখলেই উনার হিংসা হয়, শুধু তেলবাজদের পছন্দ করেন। এছাড়াও ডা. আব্দুল আজিজ এমপি থাকাকালীন টি.আর ও কাবিখার প্রকল্প নিয়ন্ত্রণ করেতো তার ভাই। আর বউ ও ভাই এবং শ্যালকদের দিয়ে ৩/৪টি করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সভাপতি বানিয়ে নিয়োগ বানিজ্য করেছেন। নৌকার মাঝি ভাল না হওয়ায় আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ঈগল পাখির পক্ষে কাজ করছি।

তবে রায়গঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ হৃদয়, সলঙ্গা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি রায়হাজান গফুর ও তাড়াশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত কুমার কর্মকার বলেন, গত ৫ বছরে সিরাজগঞ্জ-৫ আসনে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। দলও আগের চেয়ে এখন অনেক মজবুত। রাগ-অভিমান করে কিছু কিছু নেতাকর্মী স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে মাঠে নেমেছে। তারপরও নৌকা জেতানোর জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

ঈগল প্রতিকের স্বতন্ত্র প্রার্থী কৃষিবিদ সাখাওয়াত হোসেন সুইট বলেন, আমি যেন নির্বাচন করতে না পারি, সেই জন্য অনেক চেষ্টা করা হয়েছে। সর্বশেষ হাইকোর্ট থেকে প্রার্থীতা ফিরে পেয়ে নির্বাচনে লড়ছি। গ্রামের সাধারন কৃষক, দিন মজুর ও দলের বঞ্চিত নেতাকর্মীই আমরা প্রাণ। বিগত সময়ের নির্বাচনগুলোতে এসব মানুষ ভোট দিতে পারেনি। তাই এবার এসব মানুষ ভোট উৎসব মেতেছে।

চলনবিল অধ্যুষিত এ অঞ্চলের উন্নয়নের লক্ষ্যে আমাকেই ভোট দিবে। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট হলে আমি জয়ী হবো। নৌকার প্রতীকের প্রার্থী ডা: আব্দুল আজিজ বলেন, আমি পেশায় চিকিৎসক। মানুষের সেবা করা আমার নেশা এবং পেশা। গত ৫ বছরে এ অঞ্চলে অনেক উন্নয়ন করেছি। সাধারন মানুষের পাশে থেকেছি। আশা করছি এ অঞ্চলের জনগন আবারো আমাকেই ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন।

এ আসনের মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ১৪ হাজার ৮৪৩টি। নৌকা ও ঈগল পাখির প্রর্থী ছাড়াও এ আসনে আরো তিনজন প্রার্থী জাতীয় পার্র্টির জাকির হোসেন (লাঙ্গল), বিএনএম মনোনীত গোলাম মোস্তফা (নোঙ্গর) ও স্বতন্ত্র নুরুল ইসলাম উজ্জল (ট্রাক) প্রতীকে ভোটের মাঠে রয়েছেন।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড