• শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কুকুরের মাংস বিক্রির অভিযোগে গ্রেপ্তার ৪ জনকে কারাগারে প্রেরণ 

  শেখ শান্ত ইসলাম, খুলনা

১৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৮:৪৬
কুকুরের মাংস

খুলনায় কুকুর জবাই করে মাংস বিক্রির ঘটনা সারাদিন ছিল টক অফ দ্যা সিটি। পাড়া মহল্লা থেকে শুরু করে আদালত পাড়ায়ও আলোচনার কমতি ছিল না। খুলনা দীর্ঘ দিন ধরে এমনটি চলে আসছে যা অনেকেই খেয়েছেন; ফলে বিস্মিতও হয়েছেন অনেকে। এদিকে অভিযোগে গ্রেপ্তার হওয়া চারজনকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশ তাদের খুলনা মহানগর দায়রা জজ আদালত-১ এ হাজির করে। শুনানি শেষে বিচারক মো. শরীফ হোসেন হায়দার তাদের কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। আসামিরা হলেন, ইমতিয়াজ হোসেন তাজ (১৫), প্রেম সরকার (১৫), মো. সিয়াম (১৭) ও বিরিয়ানি বিক্রেতা আবু সাঈদ (৩৭)।

নগরীর খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন জানান, জবাই করে কুকুরের মাংস বিক্রির ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে তেরখাদা উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা প্রিয়ঙ্কর কুণ্ডু খুলনা মহানগর দায়রা জজ আদালত-১ এ প্রাণিকল্যাণ আইন ২০১৯ এর ৭ ধারা এবং নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১১ এর ৩৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে শুনানি শেষে আগামীদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। তবে যেহেতু চার জনের মধ্যে তিনজনই কিশোর তাই আইনী প্রক্রিয়ায় কিছুটা জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে।

উল্লেখ্য, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত বুধবার বিকাল ৪টার দিকে নগরীর খালিশপুর থানা পুলিশ খুলনা সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের একটি পরিত্যক্ত ভবনে অভিযান চালিয়ে একটি জবাই করা কুকুরসহ তিনজনকে হাতেনাতে আটক করে। পরে তাদের কথা মতো কুকুরের মাংশ দিয়ে ফেরী করে বিরিয়ানি বিক্রেতা আবু সাঈদকে আটক করে। তারা দীর্ঘদিন ধরে গোপনে ওই জায়গায় কুকুর জবাই করে ৪০০ টাকা কেজি দরে খাসির মাংশ বলে ফেরি করে বিরিয়ানি বিক্রি করে আসছিল। ইতিপূর্বে তারা আরো পাঁচটি কুকুর জবাই করে খাসির মাংশ বলে মানুষের কাছে বিক্রি করেছে বলে পুলিশের কাছে স্বীকারাক্তি দিয়েছে। এছাড়া কুকুরের মাংশ দিয়ে বিরিয়ানি রান্না করে প্রতি প্যাকেট ৩০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি করা হয়েছে। সেই বিরিয়ানি শহরের বিভিন্ন স্থান ছাড়াও টিফিনের সময় বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে এবং আদালত এলাকায় বিক্রি করে আসছিলো।

খুলনা জজ কোর্টের আইনজীবী এ্যাডভোকেট আলীনুর রহমান সরকার বলেন, তারা দুইটি অপরাধ করেছে। একটি হচ্ছে প্রাণী হত্য ও অপরটি হারাম খাবার মানুষকে খাওয়ানো। তাই প্রচলিত আইনে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রত্যাশা করছি। এদিকে বুধবারের এই ঘটনা আলোড়ন সৃষ্টি করেছে বলেছেন নগরীর একাধিক ব্যক্তি। তারা বলেন খুলনায় এমন ঘটনা অভূতপূর্ব। যা আমাদের ভাবিয়ে তুলেছে। জানিনা না বুঝে না জেনে আমরা আরও কী কী খাচ্ছি। এর সাথে আরও কে কে জড়িত সে বিষয়টিও খতিয়ে দেখার অনুরোধ করেন সকলে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড