• বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বড়শিতে ধরা পড়ল ২৮ কেজি ওজনের দুটি কোরাল

  মিজানুর রহমান মিজান, টেকনাফ (কক্সবাজার)

২২ নভেম্বর ২০২৩, ১৫:০০
দুটি কোরাল

কক্সবাজারের টেকনাফের নাফ নদীতে এক জেলের বড়শিতে ধরা পড়লো ২৮ কেজি ওজনের দুইটি কোরাল মাছ। এ মাছ দুটি ২৯ হাজার ৪’শ টাকায় বিক্রি করা হয়।

বুধবার (২২ নভেম্বর) সকালের দিকে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ওয়াব্রাং দিয়ে নাফনদী থেকে মাছ দু’টি এক জেলের বড়শিতে ধরা পড়ে। পরে মাছ জেলেদের কাছ থেকে আলী আহমদ নামের এক মাছ ব্যবসায়ী কিনে নেন।

তিনি বলেন, বুধবার সকালে হ্নীলা ইউনিয়ন এলাকার মোহাম্মদ ইসমাইল ও জামাল ২৮ কেজি ওজনের দুইটি কোরাল মাছ বাজারে বিক্রি করতে আনেন। পরে তার সাথে দর-কষাকষি শেষে কেজি ১০৫০ টাকা করে ২৮ হাজার ৪শ টাকায় কিনে নেওয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, প্রায় সময় নাফনদীতে জেলেদের বড়শিতে বড় কোরাল সহ বিভিন্ন জাতের মাছ ধরা পড়ে। এতে জেলেরা খুব আনন্দিত হয়। ক্রয়কৃত মাছটি বেশি দামে বিক্রি করার জন্য কক্সবাজারের নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

জেলে মোহাম্মদ ইসমাইল ও জামাল বলেন, সকালে দিকে বড়শি নিয়ে নাফনদীর ওয়াব্রাং এলাকায় দিয়ে মাছ ধরার জন্য যায়। প্রায় ২ ঘন্টা পরে বড়শিতে ২৮ কেজি ওজনের দুইটি বড় কোরাল ধরা পড়ে। এরপর অন্যান্য জেলেদের সহায়তায় মাছ দু’টি হ্নীলা বাজারে কেজি ১০৫০ টাকা করে ২৮হাজার ৪শ টাকায় বিক্রি করা হয়।

এ বিষয়ে টেকনাফ উপজেলার জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, কোরাল দ্রুত বর্ধনশীল মাছ। পরিবেশ ভালো পেলে মাছটি সাধারণত ৩০ থেকে ৩৫ কেজি ওজনের হয়ে থাকে। কোনো কোনো সময় এর বেশি ওজনের কোরালও পাওয়া যায়। এই নাফ নদীর মাছ খুবই সুস্বাদু। তাই জেলেরা দামও ভালো পেয়ে থাকেন। এদিকে শীত মৌসুমে নাফ নদীতে বড়শি ফেললে এখন বড় বড় কোরাল মাছ পাওয়া যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড