• শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

তিনি সরকারের উন্নয়ন চিত্র জনগণের কাছে তুলে ধরছেন প্রতিদিন

  এস এম মিজানুর রহমান মজনু, স্টাফ রিপোর্টার, ময়মনসিংহ

০৫ অক্টোবর ২০২৩, ১৫:০০
ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিন

ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসনে দীর্ঘ প্রায় তিন যুগ ধরে মাঠে-ঘাটে আওয়ামী লীগ কর্মীদের সাথে নিয়ে মতবিনিময় ও গণসংযোগসহ চার মেয়াদে শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন চিত্র জনগণের কাছে তুলে ধরেছেন। কখনো মুখে কখনো নিজ অর্থায়নে পোস্টার-ফেস্টুন বানিয়ে প্রচারণা করে যাচ্ছে।

১৯৯১ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত সময়ে নিজ উদ্যোগে ওয়ার্ডে-ওয়ার্ডে আ. লীগের দলীয় অফিস নির্মাণ, দলের জাতীয়, স্থানীয় প্রতিটি অনুষ্ঠানের কর্মকান্ডে ঝাঁকজমক পূর্ণভাবে পালন করতে অর্থের যোগান দেয়। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাট-বাজার, আওয়ামী লীগ অফিসে কিংবা শহর-গ্রামগঞ্জে অলিতে-গলিতে চায়ের দোকানে নেতাকর্মী-জনগণের সাথে বসে চা-বিস্কুট, মিষ্টি ও ইত্যাদি খাওয়ান। এছাড়াও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের প্রত্যেকটি অনুষ্ঠানে অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করেছেন।

বলছি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে ১৯৮৭ সালে বি. এস. সি. ইন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং উত্তীর্ণ হওয়া ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিনের কথা।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসনে এমপি পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ (১৯৬২-১৯৬৯) ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মো. হোসেন আলী সরকারের ছেলে। জন্ম ও বংশগত ভাবেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত থাকায় কারাগারে যান ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিন।

২০০১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরবর্তী সময়ে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের আমলে তান্ডবলীলা, অত্যাচারে অতিষ্ট হওয়ায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের পাশে দাঁড়ান ও গ্রাম-গঞ্জের আনাচে-কানাচে গিয়ে কর্মী-সমর্থকদের মনোবল বৃদ্ধির পাশাপাশি ব্যাপক গণ-আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপি-জামাত জোটকে মোকাবেলা করার ক্ষেত্র তৈরিতে ভূমিকা রাখেন মো. মহিউদ্দিন।

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২০০৪ সালে তৎকালীন সরকারের মদদে গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদ করে এবং ভালুকা উপজেলার আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী-সমর্থক ও সাধারণ মানুষের সুখে-দুঃখে তাদের পাশে থাকেন। তিনি আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে অনেক নেতাকর্মী-সমর্থকদেরকে সাহায্য-সহযোগিতা করেছেন। বিএনপি-জামাত জোট সরকারের আমলে নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা মোকাবেলায় অর্থ, পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা, নেত-কর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মতবিনিময় ও উৎসাহ প্রদান করে ওই ইঞ্জিনিয়ার।

১৯৬২ সালের ১৫ ডিসেম্বর ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের জামিরদিয়া গ্রামে সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করা এই আওয়ামী লীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিন উপজেলা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি দায়িত্ব পালন করেন। ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ময়মনসিংহ জেলা শাখার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে। ছাত্র জীবন থেকে অদ্যাবধি আওয়ামী লীগের প্রত্যেক সাংগঠনিক কর্মকান্ডে সক্রিয় অংশগ্রহণ করে ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন প্রগতিশীল সংগঠনের দায়িত্বশীল পদে থেকে ভূমিকা পালন করেছেন।

এ ছাড়াও উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের জামিরদিয়া ঐতিহ্যবাহী হোসেন আলী সরকার একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা, কাচিনা ইউনিয়নের বাটাজোর সোনার বাংলা ডিগ্রী কলেজের আজীবন দাতা সদস্য, রেডত্রুিসেন্ট সোসাইটি-ময়মনসিংহের আজীবন সদস্য, ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলন ও উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের প্রতিষ্ঠানের সাথে উতপ্রোত ভাবে জড়িত রয়েছেন ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিন।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে দলের প্রতি আনুগত্য থেকে মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়ে রাজনীতি শুরু করা মহিউদ্দিনকে সাধারণ মানুষের মন জয় করতে বেগ পেতে হয়নি। তবে তাকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার প্রাণপণ চেষ্টা করে সুবিধাবাদীরা।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভালুকার সর্বসাধারণের সমর্থনের ভিত্তিতে ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন এবং তৃণমূল পর্যন্ত বর্তমান সরকারের উন্নয়নের বার্তা পৌঁছে দিচ্ছেন।

ভালুকায় জন্ম নেয়া মহিউদ্দিন তার বাবার হাত ধরেই রাজনীতির হাতে খড়ি। সৎ ভাবে বিচার সালিশ, গ্রামের শিশু কিশোরদের স্কুল-মাদরাসায় যেতে আগ্রহ তৈরি করা এবং গ্রামের বিভিন্ন বাজারে গিয়ে সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে। ভালুকাবাসীর একটাই দাবি যে মহিউদ্দিন সরকারের সুখে-দুঃখে এমন ভাবে পাশে আছেন। তাকে আওয়ামী লীগ নমিনেশন দিলে জনগণের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিবেন বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিন তার সততা ও নিষ্ঠা, মেধাবী ও পরিশ্রম দিয়েই ভালুকাবাসীর প্রিয় নেতা হয়ে উঠেন। মহিউদ্দিনের জনপ্রিয়তাকে ভয় পেয়ে নিজ দলের নেতাদের প্রতিহিংসার স্বীকার হতে হয় তাকে। বার বার রাজনীতি থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করা হয়। ময়মনসিংহ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি থেকে বাদ পড়লেও জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে মানুষের কল্যাণে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত শক্তিশালী করতে কাজ করে আসছেন তিনি। সাধারণ মানুষের চাওয়া পূরণ ও সেবা প্রদানের লক্ষ্যে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর কাছে দলীয় মনোনয়ন চাইবেন ওই ইঞ্জিনিয়ার।

আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন চাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. মহিউদ্দিন বলেন, আমি আশা করি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হতে আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়ে ভালুকার জনগণের ও নেতা-কর্মী-সমর্থকদের দীর্ঘ দিনের আকাঙ্ক্ষা পূরণ করবে। আমরাও নৌকাকে বিজয়ী করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে পারবো। উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে অক্ষুন্ন রেখে আগামী প্রজন্মের স্মার্ট বাংলাদেশ ও বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে শেখ হাসিনার সরকার বারবার দরকার।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড