• শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নরসিংদীতে আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতির বলি ৭১ প্রাণ

  নাসিম আজাদ, স্টাফ রিপোর্টার (নরসিংদী)

২৮ জুন ২০২৩, ১২:২১
নরসিংদীতে আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতির বলি ৭১ প্রাণ
মরদেহের পাশে স্বজনদের আর্তনাদ (ফাইল ছবি)

নরসিংদীতে আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এ জেলার সর্বস্তরের মানুষ জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, পেশাজীবী ও সাধারণ মানুষসহ কেউ স্বস্তিতে নেই। গত এক বছরে একজন উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান ও ছাত্রদলের দুই নেতাকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যাসহ জেলায় খুন হয়েছে ৭০ জন। ডাকাতি আট, দস্যুতা ১৪, নারী ও শিশু নির্যাতন ৯৬ ও চুরির দায়ে মামলা হয়েছে ৭৭টি। তবে কাগজে কলমে এ রেকর্ড থাকলেও প্রকৃত অপরাধের সংখ্যা আরও অনেক বেশি বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

জেলায় গত আড়াই বছরে নানা অপরাধ মূলক কর্মকাণ্ড ঘটলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রে থানাগুলোতে পুলিশকে মামলা নিতে দেখা যায়নি। গত আড়াই বছরে অপরাধীদের বিরুদ্ধে থানায় গিয়ে অসংখ্য অভিযোগ দিলেও আমলে নেয়নি পুলিশ। অপরাধ করে পাড় পাওয়ার ফলে সম্প্রতি অপরাধের মাত্রা আরও বেড়ে গেছে।

আর যে সব কারণে অপরাধের মাত্রা বেড়েছে বলে অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন তাহলো সমন্বয়হীনতার অভাব, জনপ্রতিনিধিরা এলাকায় বসবাস না করার কারণ, রাজনৈতিক দলগুলোতে নিজেদের মধ্যে চরম অস্থিরতা ও দলীয় কোন্দল এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জবাব দিহীতার অভাবের ফলে। রাজনৈতিক দলের কতিপয় চিহ্নিত ও প্রশাসনরে কিছু অসাধু কর্মকর্তা অপরাধীদেরকে অনেকটা ওপেন শেল্টার দিচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এছাড়া মাদক সিন্ডিকেট, বালু মহল ও জায়গা-জমি জবর-দখলের ভাগাভাগি নিয়েও প্রতিনিয়ত আইন শৃঙ্খলার চরম অবনতি ঘটছে।

এমন অসহনীয় পরিস্থিতিতে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম তালেব হোসেন আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির বর্তমান অবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, এই জেলা একটি নিরাপত্তাহীন জেলা।

সাংবাদিকদের আরও বেশি বেশি করে এ বিষয়ে লেখালেখি করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আমি উপর মহলেও এ বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো। আমাদের সরকারের এত উন্নয়নের পরও আমরা কেন নিরাপত্তাহীন ও বিচার বিহীন ভাবে থাকবো। সাধারণ মানুষ কেন নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা করবে। এ অবস্থা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

এই রাজনৈতিক বলেন, আমাদের চোখ কান খোলা রেখে এ অন্ধকার থেকে আলোর দিকে বের হয়ে আসতে হবে।

জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী নাজমুল ইসলাম এ বছর গত বছরের চেয়ে হত্যাকাণ্ড কম সংঘটিত হলেও সংখ্যাটা উদ্বেগ জনক বলে দাবি করেন। তারপরও এই পরিস্থিতিতে তুষ্ট থাকার কোনো সুযোগ নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে। অন্যথায় জেলাবাসীকে আরও কঠিন মূল্য দিতে হবে। বিচার সঠিক ও দ্রুত হলে এ অবস্থা থেকে সহসাই পরিত্রাণ পাওয়া যেতে পারে বলে তার দাবি।

নরসিংদী প্রেসক্লাবের সভাপতি হাবিবুর রহমান বলেন, কাগজে-কলমে আইন শৃঙ্খলা কমিটিতে পুলিশ অপরাধের যে সংখ্যা দেখায় তা মোটেও সত্য নয়। কারণ যে পরিমাণ অপরাধ সংঘটিত হয় তা আসলে রেকর্ড হয়না। সম্প্রতি এক মাসে জেলায় ৬টি লাশ পাওয়া যায়। আইন শৃঙ্খলার এসব অবনতির কথা জানতে চাইলে সভায় পুলিশ সুপার মনক্ষুন্ন হয়ে কথা বলেন। এ জেলায় আগে টেটা যুদ্ধ হতো এখন দিন দুপুরে গুলি করে খুন করা হচ্ছে উল্লেখ করে এই সংবাদকর্মী আরও বলেন, সর্বসাধারণের পাশাপাশি আমরাও কেউ নিরাপদ নই।

জেলা বিএনপির সিনিয়র এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বর্তমান পুলিশ সুপার এ জেলায় যোগদান করার পর আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না রাখতে পারলেও মিথ্যা মামলা ও বিণা কারণে গ্রেফতার করে বিরোধী দল দমনে তিনি সফল হয়েছেন। এ আর কম কি।

নরসিংদীতে গত ২৮ জানুয়ারি ২০২১ সালে পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন কাজী আশরাফুল আজিম। তাকে কখনই ফোনে পাওয়া যায় না। এমন অভিযোগ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের। এমনকি কোনো ঘটনা দুর্ঘটনায় জেলার কোনো পুলিশ সদস্যদেরকেও ফোনে পায় না সংবাদ কর্মীরা। প্রায় আড়াই বছর পর গত ১৩ জুন তার বদলীর আদেশ হলো। তারপরও স্বপদে বহাল আছেন তিনি। এই দীর্ঘ সময়ে প্রায় তিন শতাধিক খুন হওয়ার পরও তার দাবি তার আমলে নিরাপত্তার চাদরে তিনি ঢেকে রেখেছেন এ জেলাকে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড