• শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ভাই-বোনকে পাশবিক নির্যাতনের ছয় দিনেও মামলা নেয়নি পুলিশ

  রাকিব হাসনাত, পাবনা

২৯ মার্চ ২০২৩, ১৫:০২
ভাই-বোনকে পাশবিক নির্যাতনের ছয় দিনেও মামলা নেয়নি পুলিশ

পাবনা সদর উপজেলার গাছপাড়ার ইলেকতমা মডেল টাউন প্রকল্পের জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে নিজের ভাই-বোনকে বেধড়ক মারধর ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় চারজনের নাম উল্লেখ্য করে অজ্ঞাত ৮/১০ জনকে আসামি করে পাবনা সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী মোস্তাফিজুর রহমান। ঘটনার ৬ দিন অতিবাহিত হলেও এখনো কোনো মামলা নেয়নি পুলিশ।

ঘটনার পর থেকেই বিভিন্ন মাধ্যমে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছেন অভিযুক্ত আতিয়ার রহমান বাবু খান। ফলে ভুক্তভোগীরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

ভুক্তভোগীরা হলেন- পাবনা শহরের আটুয়া বাবলাতলার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান এবং মেয়ে মোছা. খুশি খাতুন। অভিযুক্তরা হলেন- ভুক্তভোগীদের বড়ভাই আতিয়ার রহমান বাবু খান এবং গাছপাড়ার ইনতাজ, জহুরুল, রিয়াজুল ও শাহিন মেম্বারসহ বেশ কয়েকজন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ মার্চ সার্ভেয়ার (আমিন) নিয়ে জমি পরিমাপ করতে যান মোস্তাফিজুর রহমান ও তার বোন মোছা. খুশি খাতুন। এদিন সকালে তারা গাছপাড়ার ইলেকতমা মডেল টাউন প্রকল্পে পৌঁছালে ইনতাজ, জহুরুল, রিয়াজুল ও শাহিন মেম্বারসহ বেশ কয়েকজন তাদের ওপর হামলা করে বেধড়ক মারধর করেন। এ সময় মোছা. খুশি খাতুন গুরুতর আহত হোন। পরে আশপাশের লোকজন তাদের উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

মোছা. খুশি খাতুন বলেন, গাছপাড়ায় প্রায় ৮৫ বিঘা জমি মালিক ছিলেন আমাদের বাবা আব্দুর রহমান। তিনি মারা গেলে উত্তরাধিকার সূত্রে জমির মালিক হই আমরা ৮ ভাই-বোন। কিন্তু বড় ভাই আতিয়ার রহমান বাবু খান প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে প্রায় ২৭ বিঘা জমি দখল করেন এবং বিভিন্ন জনের কাছে বিক্রি করেন। এক জমি একাধিকবারও তিনি বিক্রি করেছেন। অনেকে এখনও জমি বুঝিয়ে পাননি। সর্বশেষ বিএস রেকর্ডে তিনি আগের বিক্রি করা জমিসহ বেশ কয়েক বিঘা জমি নিজের নামে রেকর্ড করেছেন, এনিয়ে মামলা চলমান। তারপরও তিনি প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে বিভিন্ন জনের কাছে এখনও জমি বিক্রির পাঁয়তারা করছেন।

মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ঘটনার ৬ দিন হলো কিন্তু পুলিশ এখনও আমাদের মামলা নেয়নি। বিভিন্ন মাধ্যমে সন্ত্রাসীরা আমাদের প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন। আমাদের এভাবে মারধরের পরও যদি থানা মামলা না নেয়, বিচার না পাই তাহলে কোথায় যাব?

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আতিয়ার হোসেন বাবুর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

পাবনা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কুপা সিন্দু বালা বলেন, প্রতিদিন তো কতই অভিযোগ থানায় জমা পড়ে। কোন অফিসারের কাছে অভিযোগটা দিয়েছে সেটা খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড