• শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের ব্যানারে এমপির ছবি-নাম না থাকায় হামলা

  সোহেল রানা, সিরাজগঞ্জ

১৮ মার্চ ২০২৩, ১১:৩৩
বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের ব্যানারে এমপির ছবি-নাম না থাকায় হামলা

সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৩তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানের ব্যানারে স্থানীয় সংসদ সদস্যের নাম ও ছবি না থাকায় ক্ষুব্ধ হয়ে এমপির উপস্থিতিতে তার সমর্থকরা হামলা চালিয়ে মারপিট ও বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেছে। হামলায় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেনসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন।

গতকাল শুক্রবার সকালে বেলকুচি উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা জানান, বাঙালি জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে শুক্রবার সকালে দলীয় কার্যালয়ের সামনে পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে আলোচনা সভায় যোগ দিতে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মমিন মণ্ডল এমপি ও সাধারণ সম্পাদক আশানুর বিশ্বাস দলীয় কার্যালয়ের ভেতরে প্রবেশ করেন।

এ সময় ব্যানারে এমপি মমিন মণ্ডলের ছবি ও নাম না থাকায় এমপি সমর্থকরা ক্ষিপ্ত হয়ে সাধারণ সম্পাদক আশানুর বিশ্বাসের সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে আশানুর বিশ্বাসের সমর্থক উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন প্রতিবাদ করলে এমপির উপস্থিততেই তার সমর্থকরা হামলা চালায়। হামলা ও সংঘর্ষে পাঁচজন আহত হয়। এমপি সমর্থকরা বঙ্গবন্ধু শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত ব্যানার ছিঁড়ে নীচে ফেলে দেয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশানুর বিশ্বাস জানান, জাতির পিতার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন একটি জাতীয় অনুষ্ঠান। এই অনুষ্ঠানে ব্যানারে বঙ্গবন্ধু ও জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া আর কোনো ছবি থাকতে পারে না। ওই ব্যানারে সভাপতির নাম ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আমার নামও নেই। এমপির সাথে এক সাথে পতাকা উত্তোলন করে পার্টি অফিসের ভেতরে যাই।

তিনি আরও বলেন, এ সময় এমপির সাথে থাকা আলোচিত হুদা খুনের আসামীরা পার্টি অফিসে ঢুকে পড়ে। পরে ব্যানারে এমপির নাম ও ছবি না থাকায় তার সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে হামলা করে। এমনকি আব্দুস সবুর আকন্দ নামে এক সন্ত্রাসী ধাক্কা দিয়ে পার্টি অফিস থেকে আমাকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে।

বেলকুচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম হোসেন জানান, পার্টি অফিসের ভেতরে ব্যানারকে কেন্দ্র করে এমপি মমিন মণ্ডল ও আশানুর বিশ্বাসের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি ও সংঘর্ষ হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

এ বিষয়ে বেলকুচি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল মমিন মণ্ডলের মোবাইলে বার বার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. কে এম হোসেন আলী হাসান জানান, আজকের এই দিনে বেলকুচি উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে যে ঘটনা ঘটেছে তা অত্যন্ত ন্যাক্কারজন ও দুঃখজনক। বিষয়টি তদন্তপূর্বক সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড