• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১  |   ৩৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রেকর্ড পরিমাণ সরিষার আবাদে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

  মাজেদুল ইসলাম হৃদয়, ঠাকুরগাঁও

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১:২০
রেকর্ড পরিমাণ সরিষার আবাদে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

সবুজ সরিষার গাছে ও হলুদ ফুলে দিগন্ত জোড়া ধু-ধু ফসলের মাঠ ভরে উঠেছে। যতদূর চোখ যায় ততোদূর শুধু দেখা যায় সরিষা ফুলের হলুদ রঙের সমারোহ। এ যেন এক নয়নাভিরাম মনোমুগ্ধকর দৃশ্য।

কালের বিবর্তনে আধুনিকতার ছোঁয়ায় দিন দিন এগিয়ে চলেছে কৃষি খাত। আগে যেখানে কৃষাণ-কৃষাণীরা মাঠ থেকে সরিষা কেটে মাড়াই করা হতো গরু ঘুরি ও হাত দিয়ে বাসের লাঠির বারি মেরে। এখন যুগের পরিবর্তনে ও আধুনিক যন্ত্রাংশের কারণে কৃষি খাতে এসেছে অগ্রণী পরিবর্তন।

এখন আর আগের মতো গরু বা লাঠি দিয়ে সরিষা মাড়াই করতে হয় না। মেশিনের মাধ্যমেই মাড়াই করা হচ্ছে সরিষা। এতে আগের তুলনায় সরিষা আবাদ কৃষকদের কাছে সহজ হয়ে উঠায় জেলায় আবাদ বৃদ্ধি পেয়েছে।

ঠাকুরগাঁও জেলায় বিগত কয়েক বছরের তুলনায় এবার রেকর্ড পরিমাণ জমিতে সরিষার আবাদ ও ফলনে সম্ভাবনার উঁকি দিচ্ছে। ফলন ও দামে সন্তুষ্টও চাষিরা। চলতি বছরে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ও বর্তমান বাজার অনুযায়ী প্রায় ১৭৯ কোটি ১৩ লাখ (১৭৯১৩০০০০০) টাকার সরিষা উৎপাদিত হবে শুধু এ জেলা থেকেই।

কমবেশি জেলার পাঁচ উপজেলার ফসলি জমিতে অধিকাংশ কৃষকরা এবার চাষ করেছেন সরিষা। এখনো অনেক জমির সরিষা পরিপক্ব না হলেও আগাম জাতের সরিষা কর্তন শুরু করেছেন চাষিরা।

দেখা যায়, চলতি মৌসুমে বোরো চাষের জন্য আগাম জাতের সরিষা জমি থেকে কৃষাণ-কৃষাণীরা হাতে কাসতি (করিচা) নিয়ে সরিষার গাছ কর্তন করে আটি বেঁধে ভ্যানে করে ঘরে তুলতে। এসব সরিষা কেউ বাড়ির উঠানে, কেউ আবার মিলের চাটালে রেখে মেশিন দিয়ে মাড়াই করতে চরম ব্যস্ত সময় পার করছেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ পরিচালক (শস্য) এর দেওয়া তথ্য মতে, ঠাকুরগাঁও জেলায় গতবারের তুলনায় এবার বেশি ২০% অর্থাৎ দুই হাজার ৫৪৯ হেক্টর জমিতে সরিষার হয়েছে। গত বছর আবাদ হয়েছিল ১৩ হাজার ৩৭৪ হেক্টর এবার ২০২২-২৩ অর্থবছরে আবাদ হয়েছে ১৫ হাজার ৯২৩ হেক্টর জমিতে। এর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৩ হাজার ৮৮৪ মেট্রিক টন।

কৃষকরা বলছেন, বেশিরভাগ জমি বোরো আবাদের জন্য প্রায় তিন মাস পরে থাকত। কিন্তু এই জমি গুলোকে ফেলে না রেখে সরিষা চাষ করে লাভবান হচ্ছেন তারা। এতে বছরে তারা আমন, সরিষা ও বোরো আবাদ করতে পারছেন এবং সরিষার ব্যাপক ফলন ও দামে সন্তুষ্টও তারা।

জেলার সদর উপজেলার গড়েয়া কিসামত তিয়ারিগাঁও গ্রামের কৃষক মঞ্জুরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, এবার ৪ বিঘা জমিতে চাষ করেছি সরিষা ফলনও হয়েছে ব্যাম্পার। ‘বর্তমানে সরিষা আবাদ করতে তার বিঘা প্রতি সর্বমোট খরচ হয়েছে ১০-১২ হাজার টাকা ও বিঘা প্রতি ফলন হয়েছে ১০-১১ মণ সরিষা। যার বিঘা প্রতি বর্তমান মূল্য ২৮-৩০ হাজার টাকা। এই ফসলের খরচ কম ফলনও ভালো এবং বছরে তিনটা ফসল করতে পারছি তাতে মোটামুটি ভালোই লাভ হয়। আগামীতে আরও বেশি করে সরিষা চাষ করব।

সরিষা চাষি সোনু বলেন, বোরো আবাদের আগে এই জমি গুলো আমাদের ফেলে রাখতে হতো। কিন্তু এখন ফেলে না রেখে আমরা সরিষার চাষ করছি। তাই এবার অন্যান্য বারের তুলনায় আমাদের এই দিকে সরিষার ব্যাপক চাষ হয়েছে এবং বর্তমানে বাজারে শুকনা সরিষা তিন হাজার টাকা করে মন বিক্রয় হচ্ছে। সরিষার দাম ও ফলেন আমরা সন্তুষ্ট।

কৃষক মো. সহিদুল ইসলাম বলেন, এ দিকে আগে এতো বেশি সরিষার আবাদ হতো না। এবার দ্বিগুণ আবাদ হয়েছে। এলাকার অধিকাংশ কৃষক এই ফসলটি চাষ করেছেন। সরিষা চাষ পদ্ধতি সহজ হওয়ায় এবং দাম ও ফলন ভালো পাওয়ায় কৃষকরা এটি চাষ করতে বেশি করে ঝুঁকছেন। মনে হচ্ছে আগামীতে এটির চাষ আরও বৃদ্ধি পাবে।

প্রকারভেদে বর্তমান সরিষার বাজার দর কাঁচা সরিষা প্রতি মণ দুই হাজার থেকে ২৫০০ টাকা এবং তিন হাজার থেকে ৩২০০ টাকা বিক্রয় হচ্ছে বলে জানান সোনু বর্মণ নামে আরেক সরিষা চাষি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ পরিচালক (শস্য) ও কৃষকদের দেওয়া তথ্য মতে, জেলায় সরিষার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ২৩ হাজার ৮৮৪ মেট্রিক টন (১ মেট্রিক টন=১ হাজার কেজি)। প্রতিমণ শুকনা সরিষার দাম (১ মণ=৪০ কেজি) ৩ হাজার টাকা হলে এবার জেলায় মোট ১৭৯ কোটি ১৩ লাখ (১৭৯১৩০০০০০) টাকার সরিষা উৎপাদন হবে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ পরিচালক(শস্য) আলমঙ্গীর কবির বলেন, গতবারের তুলনায় জেলায় এবছর আড়াই হাজার হেক্টর এর অধিক জমিতে সরিষা চাষ করেছেন কৃষকরা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ফলন ভালো হয়েছে ও কৃষকরা দামও ভালো পাচ্ছেন এবং লাভবান হচ্ছেন। চলতি মৌসুমে সরিষা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে। তাই আশা করছি উৎপাদন লক্ষমাত্রাও অর্জিত হবে এবং আগামীতে এর আবাদ আরও বৃদ্ধি পাবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড