• বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ব্রিটিশ শাসনামলে প্রতিষ্ঠিত পৌরসভা আবারও ফিরে পাওয়ার দাবি

  কে এম রেজাউল করিম, দেবহাটা (সাতক্ষীরা)

২৩ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:৫৯
ব্রিটিশ শাসনামলে প্রতিষ্ঠিত পৌরসভা আবারও ফিরে পাওয়ার দাবি
ব্রিটিশ শাসনামলে প্রতিষ্ঠিত পৌরসভার নামফলক (ছবি : অধিকার)

সাতক্ষীরা জেলার দেবহাটা উপজেলাটি একটি ঐতিহ্যবাহী উপজেলা। বর্তমানে বাংলাদেশ ও ভারতের আন্তর্জাতিক সীমানা নির্ধারণকারী নদী ইছামতী নদীর ধার ঘেঁষে দেবহাটা উপজেলার অবস্থান। ইছামতীর ওপারে রয়েছে ভারতের হাসনাবাদ রেলস্টেশন। যার কারণে ব্রিটিশ শাসনামলে এ অঞ্চলের মানুষের দ্বিতীয় ঠিকানা ছিল কলকাতা শহর। তারা অনায়াসেই রেলে করে কলকাতা যেতে পারতেন।

এই দেবহাটার সুশীলগাতী গ্রামে রয়েছে উপমহাদেশের প্রখ্যাত চিকিৎসক ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী ডা. বিধান চন্দ্র রায়ের বাড়ি। টাউন শ্রীপুরে রয়েছে ভারতের সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল শংকর রায় চৌধুরীর পৈত্রিক নিবাস। এই দেবহাটার নামকরণ নিয়ে নানাজনের কাছ থেকে নানারকম মতামত পাওয়া যায়।

কেউ বলেন- প্রাচীনকালে এখানে দেব-দেবীর হাট বসত, সে জন্য নাম হয়েছে দেবহাটা। আবার কেউ বলেন, প্রাচীনকালে এখানে ঘন জঙ্গল ছিল। সেই জঙ্গলে বিভিন্ন বনদস্যু বা অনেকে রাগারাগি করে যেয়ে পালিয়ে থাকত। তারা বলত ঐ জঙ্গলে দেবো----হাটা। আর কালে আবর্তে সেখান থেকে নাম হয়েছে দেবহাটা। তবে যে যাই বলুক না কেন এই দেবহাটাকে ঘিরে এক দিকে যেমন রয়েছে নানা রকম কল্পকাহিনী ঠিক তেমনি রয়েছে অনেক প্রাচীন কীর্তি বা নিদর্শন।

প্রাপ্ত তথ্য মতে জানা গেছে, ১৮৬৭ সালে তৎকালীন ব্রিটিশ আমলে দেবহাটার টাউন শ্রীপুরে দেবহাটা পৌরসভা গড়ে উঠেছিল। ঐ সময় বর্তমান বিভাগীয় শহর খুলনাতেও পৌরসভা গড়ে ওঠেনি। সেই পৌরসভার চেয়ারম্যান ছিলেন দেবহাটা সদরের বাসিন্দা স্বনামধন্য ও প্রজা হিতৈষী জমিদার ফণীভূষণ মণ্ডল।

যিনি একটানা ত্রিশ বছর পৌরসভার চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন। দেবহাটা থেকে টাউন শ্রীপুর পর্যন্ত সাড়ে ৩ কিলোমিটারের মধ্যে জমিদার ও গাঁতিদার মিলে ১৮ জন বসবাস করতেন। এই ১৮ জনের মধ্যে কেউ ছিলেন অত্যাচারী আবার কেউ ছিলেন প্রজা হিতৈষী।

জমিদারদের মধ্যে প্রধান ছিলেন জমিদার ফণীভূষণ মণ্ডল। যিনি মানুষের কল্যাণার্থে ও সেবার মনোভাব নিয়ে অনেক স্থাপনা তৈরি করে গেছেন। তার মধ্যে আছে দেবহাটা পাইলট হাইস্কুল (বর্তমানে মডেল হাইস্কুল), থানার পাশে ফণীভূষণের মা ভুবন মোহিনীর নামে প্রতিষ্ঠিত কমিউনিটি ক্লিনিক (যেটি বর্তমানে উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে মানুষের সেবা প্রদান করা হয়) সহ অসংখ্য কল্যাণকর স্থাপনা।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড