• বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শিক্ষক পেটানোর ঘটনায় আ. লীগ নেতাসহ ১২ জনের নামে মামলা 

  হুমায়ুন কবির সূর্য, কুড়িগ্রাম

২২ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬:২২
শিক্ষক পেটানোর ঘটনায় আ. লীগ নেতাসহ ১২ জনের নামে মামলা 

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলায় প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবীকে তুলে নিয়ে গিয়ে পেটানোর ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান রোকনসহ সহকারী শিক্ষক আসাদুল ইসলাম এবং আরও অজ্ঞাত ১২ জনকে আসামি করে রৌমারী থানায় একটি মামলা হয়েছে। ভুক্তভোগী শিক্ষক নিজে বাদী হয়ে এই মামলা করেন।

গতকাল শনিবার বিকালে মামলাটি রুজু হয়। মামলা নং-১৪। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে ভুক্তভোগী ওই শিক্ষক বাদী হয় একটি লিখিত অভিযোগ দেন রৌমারী থানায়।

আসামিরা হলেন- উপজেলার চরশৌলমারী ইউনিয়নের পাখিউড়া গ্রামের আজমত আলীর ছেলে রোকনুজ্জামান রোকন। তিনি সদ্য ঘোষিত আংশিক কমিটির রৌমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক। এছাড়াও এই মামলায় একই ইউনিয়নর ফুলকারচর গ্রামের মৃত আকায়েত উল্লাহ’র ছেলে আসাদুল ইসলামকে (৪৭) আসামি করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার নুরুন্নবী উপজেলার ফুলকারচর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তিনি চরশৌলমারী ইউনিয়নের চরশৌলমারী গ্রামের মোংলা মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, গত ১৯ জানুয়ারি দুপুরে অফিসিয়াল কাজে উপজেলা শিক্ষা অফিস যান প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবী ও বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী আব্দুর রশিদ। কাজ শেষে উপজেলা চত্বর থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা রোকনুজ্জামান রোকনের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন ওই প্রধান শিক্ষককে তুলে নিয়ে যায়। প্রথমে তাক উপজেলা চত্বরের পাশেই পলি পরিবহনের বাস কাউটার নিয়ে আটক রাখা হয় এবং প্রাণ নাশর হুমকি দেওয়া হয়। কিছুক্ষণ পর সেখান থেকে মোটরসাইকেলে করে ওই প্রধান শিক্ষককে নিয়ে যাওয়া হয় রৌমারী সিজি জামান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হোরায়রার বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে।

সেখান ঘটনার বর্ণনা দিতে থাকেন ভুক্তভোগী শিক্ষক নুরুন্নবী। এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান হঠাৎ ক্ষিপ্ত হয়ে ওই শিক্ষকের উপর চড়াও হয়ে মুখমণ্ডলে এলোপাতাড়ি চড় থাপ্পড় ও কিল ঘুষি মারতে থাকেন। তা দেখে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দ্রুত চেয়ার থেকে উঠে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ সময় তিনি রোকেন তার কক্ষ থেকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেন। পরে আহত ওই প্রধান শিক্ষককে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়।

ঘটনার দিন রাতেই ভুক্তভোগী শিক্ষক বাদী হয়ে আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান রোকন, আসাদুল ইসলামের নাম উল্লেখ করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। প্রধান শিক্ষককে মারধরের সিসি টিভির ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে শিক্ষক সমাজের ক্ষোভসহ উপজেলায় সমালোচনার ঝড় বইছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া দুই মিনিট ৩২ সেকেন্ডের ওই ভিডিয়ো ফুটেজে দেখা যায়, ১৯ জানুয়ারি দুপুর ১টা ৫৩ মিনিট। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রৌমারী সিজি জামান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু হোরায়রা অফিস কক্ষে বসে কাজ করছেন। পাশে বসে আছেন ফুলকারচর মাধ্যমিক বিদ্যালয়র প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবী ও আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান রোকনসহ কয়েকজন ব্যক্তি। ঠিক ১টা ৫৫ মিনিট ২৬ সেকেন্ড ওই আওয়ামীলীগ নেতা রোকনুজ্জামান হঠাৎ চেয়ার থেকে উঠে ওই প্রধান শিক্ষকের সামনে গিয়ে দাঁড়ান। ঠিক ১টা ৫৫ মিনিট ৪৯ সেকেন্ড থেকে ১টা ৫৫ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড পর্যন্ত ওই ভুক্তভোগী প্রধান শিক্ষককে এলোপাতাড়ি চড়থাপ্পর মারতে দেখা যায়। এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হোরায়রা চেয়ার থেকে উঠে এসে আওয়ামী লীগের ওই নেতাকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেন।

ভুক্তভোগী ওই প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবী বলেন, প্রধান শিক্ষক পদ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। প্রধান শিক্ষকের পদ নিয়ে তদন্ত হয়েছে এবং আমাকে দায়িত্ব দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু রোকন আমার সহকর্মী আসাদুল ইসলামের নিকট ২০-২৫লাখ টাকা উৎকোচ নিয়ে আমার উপর অন্যায়ভাবে অত্যাচার করে আসছে। আমি এই ঘটনায় থানায় মামলা করেছি। এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।

ফুলকারচর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়র পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ বলেন, বিদ্যালয়ের কমিটি গঠনের কাজ শিক্ষা অফিস গিয়ে ছিলেন প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবী। তাকে অন্যায়ভাবে তুলে নিয়ে মারপিট করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।

রৌমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হোরায়রা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এটা ন্যক্কারজনক ঘটনা। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান রোকনের বিরুদ্ধে অবশ্যই সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রূপ কুমার সরকার বলেন, প্রধান শিক্ষককে পেটানোর ঘটনায় রোকনুজ্জামান রোকনসহ দু’জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও ১০ থেকে ১২ জনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। মামলার বাদী ভুক্তভোগী প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবী। আসামিদের গ্রেফতার চেষ্টা চলছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড