• সোমবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৬ মাঘ ১৪২৯  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

খামারি খাদ্যের দাম আকাশচুম্বী (পর্ব-১)

বিপাকে বেকার খামারি উদ্যোক্তারা 

  মোস্তাকিম আল রাব্বি সাকিব, মনিরামপুর (যশোর)

১৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১২:০৪
খামারি খাদ্যের দাম আকাশচুম্বী (পর্ব-১)

বিশ্বে কৃষি প্রধান দেশ হিসেবে যতগুলো রাষ্ট্র আছে তার মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ার ঘনবসতিপূর্ণ দেশ বাংলাদেশও অন্যতম। এখানকার শতকরা ২০% লোক সরকারি/বেসরকারি চাকুরিজীবী। বাকি ৮০% মানুষ নিজস্ব তৈয়ারকৃত ব্যবসা-বাণিজ্যসহ কৃষি পেশায় নিয়োজিত। সে কারণেই বাংলাদেশকে কৃষি প্রধান দেশ বলা হয়ে থাকে।

তার মধ্যে বেশিরভাগ লোকই কৃষি কাজে নিয়োজিত আছে। কৃষি কাজের মধ্যে ফার্ম ও খামারি উদ্যোক্তা উল্লেখযোগ্য। তাই এদেশের বেশিরভাগ মানুষ এখন শিক্ষিত কিন্তু চাকুরি সিমিক। তাই এদেশের বেশিরভাগ যুবক সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে নিজেকে একজন উদ্যোক্তা ও খামারি হিসাবে গড়ে তোলার জন্য এবং নিজেকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করার জন্য খামারি পেশায় বিভিন্ন যুবক ঝুঁকি নিচ্ছেন।

অনেক যুবক এই খামারি পেশায় যেমন পোল্ট্রি ফার্ম বয়লার ফার্ম সোনালি ফার্ম ছাগলের ফার্ম গরুর খামার এবং ফার্মের পেশায় নিয়োজিত হচ্ছে। আর যুবকদের ফার্ম ও খামারি পেশায় সহযোগিতা করার জন্য বাংলাদেশ সরকার প্রত্যেকটি উপজেলায় সরকারি নিজস্ব অর্থায়নে যুবকদের ট্রেনিং এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের ফার্ম ও খামারের উদ্যোক্তা হতে ও নিজেকে স্বাবলম্বী হিসাবে গড়ে তোলার জন্য স্বল্প পরিমাণ লভ্যাংশে ঋণ প্রদান করছেন।

তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের বেকার যুবকেরা এখন সরকারি বেসরকারিভাবে ট্রেনিং নিয়ে ফার্ম ও খামারি পেশায় নিয়োজিত হচ্ছে। অনেকেই আবার ছোটখাটো ব্যবসা ছেড়ে গরু ছাগল, মুরগির ফার্ম করার জন্য সরকারিভাবে ট্রেনিং প্রাপ্ত হয়ে সরকারের নিকট থেকে ঋণ গ্রহণ করে উদ্যোক্তা ও স্বাবলম্বী হচ্ছে।

যার কারণে পার্শ্ববর্তী অনেক বেকার যুবক উদ্যোক্তার ফার্মে তার কর্মসংস্থান খুঁজে পাচ্ছে। কিন্তু মাছ, গরু, ছাগল, হাস, ব্রয়লার বিভিন্ন প্রকার খামার ও ফার্মের খাদ্যের যে পরিমাণে বাজার দর বেড়েই চলেছে তাতে খামারি পেশায় নিয়োজিত সকল উদ্যোক্তা ও নিয়োজিত কর্মচারীরা বিপাকে পড়ে যাচ্ছে।

জানা যায়, গোখাদ্য মাছের খাদ্যসহ সকল প্রকার খামারি খাদ্যের মজুদকারী ব্যবসায়ীগণ এই খাদ্যকে মজুদ করে বাজারে খামারি খাদ্যের সংকট দেখিয়ে দিন দিন দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। যার ফলে ফার্ম ও খামারি উদ্যোক্তারা ও ব্যবসায়ীরা এ ব্যবসা থেকে সরে আসছে ফলে দিন দিন বেকারত্ব আরও বেড়েই চলেছে।

এ বিষয়ে বিভিন্ন প্রকার খামারি উদ্যোক্তার সাথে কথা বললে তারা বলেন- আমাদের খামারি ব্যবসার খাদ্যের যে পরিমাণ দাম বাড়ছে তা খরচ বাঁচিয়ে লভ্যাংশ পাওয়া অনেক কষ্টের। আমরা আমাদের পুঁজি দিয়ে খামারে বয়লার এর বাচ্চা তুলে অথবা নির্ধারিত পুঁজি দিয়ে গরু-ছাগল ক্রয় করে ভালো লভ্যাংশ পাওয়ার জন্য গুণগত মানের খামারি খাদ্যের প্রয়োজন কিন্তু খামারি খাদ্যের দাম ব্যাপক হারে বাড়াই আমরা এ পেশা থেকে অনেকেই সরে যাচ্ছি। আমরা এই পেশায় থাকতে গেলে প্রশাসনিকভাবে বাজার দর নিয়ন্ত্রণ করা একান্ত আবশ্যক।

মনিরামপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেছেন, আমরা কৃষি দপ্তর থেকে প্রতিনিয়ত বাজার মনিটরিং এর কাজ করছি। বর্তমানে সব পণ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার বাজারে এমন অবস্থা হয়েছে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড